ঢাকা, শনিবার 8 December 2018, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

চৌদ্দগ্রামে বিরোধী দলীয় নেতাকর্র্মীদের বাড়িতে না থাকার হুমকী পুলিশের

কুমিল্লা অফিস, ৬ ডিসেম্বর : কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২৩ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের বাড়িতে তল্লাশী এবং নির্বাচনের দিন এলাকায় না থাকার জন্য হুমকি দিয়েছে পুলিশ।
গত ৪ ডিসেম্বর গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এমন অভিযোগ করেছেন বিএনপির দলীয় ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ও সাবেক এমপি ডাঃ সৈয়দ আবদুল্লাহ মোঃ তাহের।
তিনি অভিযোগ করেন, উপজেলা জামায়াত নেতা মুন্সিরহাট ইউনিয়নের ছোটখিল গ্রামের বেলাল হোসাইনের বাড়িতে সোমবার রাতে পুলিশ তিনবার গিয়ে তল্লাশীর নামে নারী-পুরুষ ও শিশুসহ পাড়া প্রতিবেশির মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। একই রাতে দেড়কোটা গ্রামের শিক্ষাবিদ প্রফেসর শহিদুল্লাহ, দেড়কোটা বাজারের ব্যবসায়ী মনির হোসেন মোল্লা, বারাইশ গ্রামের শ্রমিক নেতা জাহাঙ্গীর, চিওড়া বাজারের ব্যবসায়ী জিনিদকরা গ্রামের সাইফুল ইসলামের বাড়িতে পুলিশ তল্লাশী চালিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে।
অপরদিকে মুন্সিরহাট ইউনিয়নের মিতল্লা গ্রামের যুবলীগ কর্মী বিল্লাল, সাত্তার ও হুমায়ন পাশ্ববর্তী সিংরাইশ গ্রামের সবুজকে খিরণশাল বাজারে আ’লীগ নেতা মফিজুর রহমানের দোকানে আটকিয়ে মোবাইল রেখে দেয় এবং নির্বাচনে ধানের শীষের পক্ষে কাজ না করতে সাদাকাগজে সাক্ষর নেয়।
এছাড়া পুলিশ উপজেলার মুন্সিরহাট ইউনিয়নের বৈলপুর, ছোটখিল, দেড়কোটা, ফেলনা, সিংরাইশ, মিতল্লা, খিরণশাল, বাংপাই, ফুলমুড়ি গ্রামের দোকান, রাস্তার মোড়ে ও বাড়িতে বাড়িতে তল্লাশীর নামে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। তল্লাশীকালে পুলিশ হুমকি দেয়-নেতাকর্মীরা ৩০ ডিসেম্বর যাতে এলাকায় না থাকে এবং ধানের শীষ প্রতীকের পক্ষে কাজ না করে।
ডাঃ তাহের আরও বলেন, একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে নির্বাচনের লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড শুধু আ’লীগের জন্যই মনে হচ্ছে। তারা প্রতিদিনই পাড়া-মহল্লায় প্রচারণা করলেও নির্বাচন কমিশন ও স্থানীয় প্রশাসন তা দেখেও না দেখার ভান করছে।
অপর দিকে ধানের শীষ প্রতীকের পক্ষের নেতাকর্মীরা এলাকায় হাটলেও খবর পেয়ে পুলিশ বাড়িতে এসে হুমকি দিচ্ছে। প্রশাসনের এক চোখা নীতির কারণে নির্বাচনের শান্ত পরিবেশ দেখা যাচ্ছে না। শিগগিরই প্রশাসনকে সব প্রার্থীর নেতাকর্মীদের সমান সুযোগ দেয়ার আহবান জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ