ঢাকা, বুধবার 23 January 2019, ১০ মাঘ ১৪২৫, ১৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সাতক্ষীরায় ধানের শীষ প্রতীকের পোস্টারে আগুন, বাড়ী-ঘর ও দোকান-পাটে হামলা

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

সাতক্ষীরা সদর আসনের বৈকারি ইউনিয়নে সোমবার রাতে ধানের শীষ প্রতীকের বিপুল সংখ্যক পোস্টার পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

এসময় তারা কয়েকটি বাড়িতে হামলা ও একটি দোকান ভাঙচুর করেছে। পিটিয়েছে বিএনপি সমর্থক বেশ কয়েকজন ব্যক্তিকে।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা কৃষকদলের সভাপতি সাবেক ইউপি সদস্য গোলাম সরোয়ার জানান, সোমবার সন্ধ্যায় তাদের কর্মী সমর্থকরা বৈকারি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে পোস্টার সাঁটার চেষ্টা করছিল। এ সময় একদল যুবক  কাথন্ডা বাজার ও নাপিতঘাটা এলাকায় ধানের শীষের পোস্টারে আগুন ধরিয়ে দেয়। একই সময়ে তারা নুরুল মুন্সি, সাবেক ইউপি সদস্য জালাল ও  খালেক হাজরার  বাড়িতে হামলা চালিয়ে  মারপিট করে চলে যায়। পরে তারা নাপিতঘাটায় একটি সারের দোকান তছনছ করে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের ছেলে ও যুবলীগ নেতা ইনজামামুল ইসলাম ইঞ্জার নেতৃত্ব এসব ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

তবে ইনজামামুল এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে পুলিশ জালাল মেম্বরসহ তিনজনকে নাশকতার মামলায় গ্রেপ্তার করেছে। 

এর আগে বিকেলে শ্যামনগর উপজেলা সদরের নকিপুর বাজারের নুর কম্পিউটার মার্কেটে ধানের শীষ প্রতীকের ছাপানো বিপুল সংখ্যক পোস্টার ও হ্যান্ড বিল কেড়ে নিয়ে তাতে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ উঠেছে। দুর্বৃত্তরা জেলার নুর কম্পিউটার মার্কেটের বিভিন্ন পোস্টার ছাপানোর (প্রেস) দোকান থেকে ধানের শীষ প্রতীকের ১৮ হাজার পোস্টার ও তিনহাজার হ্যান্ডবিল কেড়ে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রেস মালিকরা। 

এসময় দুর্বৃত্তরা ওই মার্কেটের মুক্তা ছাপাখানা থেকে ১৫ হাজার ও সোনালী প্রেস থেকে ৩ হাজার পোস্টার নিয়ে যায়। এছাড়া সোনালী প্রেস থেকে ছাপানো তিন হাজার হ্যান্ড বিল নিয়ে যায়।

মুক্তা ছাপাখানার মালিক আনিছুজ্জামান ও সোনালী প্রেসের মালিক নুর এ আলম সিদ্দিকী পোস্টার কেড়ে নেয়ার সাথে কারা জড়িত তাদের নাম প্রকাশ করতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

তবে সোনালী প্রেসের মালিক নুর এ আলম সিদ্দিকী বার্তা২৪-কে জানান, 'পোস্টার নিয়ে যাওয়ার আগে হামলাকারীরা তার দোকানে থাকা কর্মচারী আবু সাইদকে বেপরোয়া মারপিট করে। এছাড়া পরবর্তীতে এসব প্রতিষ্ঠানে ধানের শীষ প্রতীকের কোন পোস্টার না ছাপানোর হুমকি দিয়ে চলে যায়।'

যাওয়ার আগে হামলাকারীরা প্রতিষ্ঠান দুটি তালাবন্ধ করে দিয়ে চাবি নিয়ে গেলেও পরক্ষণে এসে আবার চাবি ফেরত দেয় বলে জানায় সংশ্লিষ্টরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ