ঢাকা, শুক্রবার 14 December 2018, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৬ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

বিএনপির ১৫ নেতাকর্মীর রিমান্ড।। কারাগারে আরও ৩০ জন

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপি’র ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মুছাব্বিরের এক দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছে আদালত। এছাড়া, বিভিন্ন নাশকতার মামলায় বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠনের আরও অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মীকে রিমান্ড ও কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে রাজধানীর প্রায় ২০টি থানার ৩০টি মামলায় আসামীদের আদালতে হাজির করা হয়। ওইসব নেতাকর্মীদের রিমান্ড ও কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন ঢাকার সিএমএম আদালত।

ঢাকা সিএমএম আদালতের পৃথক আদালত শুনানি শেষে মুছাব্বিরসহ ১৫ জনের বেশি আসামীকে বিভিন্ন মেয়াদের রিমান্ডে এবং ৩০ জনের মতো আসামীর জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর এ আদেশ দেন। আসামীদের মধ্যে- বিএনপি নেতা মুছাব্বিরের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর মো. আব্দুল মতিন। এদিন শুনানি শেষে আদালত আসামীকে এক দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।

মুছাব্বিরের বিরুদ্ধে রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, শেরে বাংলানগর থানার পূর্ব রাজাবাজারের নাজনীন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে গত ১০ ডিসেম্বর বিকালে অজ্ঞাতনামা আসামীদের সঙ্গে একত্রিত হয়ে রাষ্ট্রের শান্তি-শৃঙ্খলা বানচাল করার লক্ষে ষড়যন্ত্র করেন মর্মে তথ্য-প্রমাণ রয়েছে। এছাড়া তার নেতৃত্বে ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে তেজগাঁও, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল ও শেরেবাংলা নগর থানা এলাকায় তার নেতৃত্বে গাড়িতে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও রাষ্ট্রীয় সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাকে এলাকার লোক বোমা মুছাব্বির বলে জানে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ৩৯টির বেশি মামলা আছে বলে জানা যায়।

অপর আসামীদের মধ্যে কারাগারে ও রিমান্ডে যাওয়ায় আসামীরা হলেন- যাত্রাবাড়ী থানার দবির হোসেন, হানিফ শেখ, নওশের আলম, রফিকুল ইসলাম, আবুল হোসেন, ফারুক হোসেন, হানিফ দেওয়ান ও হেদায়েতুল ইসলাম, শাহাবাগ থানার সৈয়দ জাহিদ হোসেন, আলী আরশাদ ও জাকির হোসেন, পল্টন থানার মো. আমির হোসেন, এবাদুল হক জাহিদ, মো. হুমায়ুন কবির, মিতু রহমান প্রিন্স, জাসিম উদ্দিন, হাসানুজ্জামান, সাইদুল ইসলাম মিলন, নুর ইসলাম ও রেজাউর রহমান, শাজাহানপুর থানার মো. মিরাজ ও সাইফুর রহমান মানিক, সবুজবাগ থানার কাজী কামরুল ইসলাম, বারিক আহমেদ, হামিদুল হক ও রিফাত, চকবাজার থানার সাইফুদ্দিন, রমনা থানার মো. রাসেল খান, শক্কুর আলী, কদমতলী থানার মো. মাহাবুবুর রহমান, আক্তার হোসেন মনা ও আহমেদ সাইফুল, বিমানবন্দর থানার বাবুল হোসেন ও মোতাহার হোসেন, বনানী থানার বাচ্চু মিয়া, হাতিরঝিল থানার মতিউর রহমান ও মো. রবিন, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার জাকির হোসেন, সাহাদাৎ হোসেন, আশরাফ আরী ও জাহির, শেরেবাংলা নগর থানার মো. হাসিবুর রহমান, সামসুল ইসলাম, ভাষানটেক থানার ফারুক হোসেন, মোহাম্মাদপুর থানার ওসমান গণিসহ আরও অনেকে।

এর আগে বুধবারও প্রায় অর্ধ শতাধিকেরও বেশি বিএনপির নেতাকর্মীর রিমান্ড ও কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের নাশকতার মামলা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ