ঢাকা, বুধবার 24 July 2019, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

অবাধ নির্বাচনের পরিবেশ তৈরীতে নির্বাচন কমিশন ব্যর্থ হয়েছে: ড.শফিকুল ইসলাম মাসুদ

সংগ্রাম অনলাইন : বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ও কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলেন, দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে লাখো প্রাণের বিনিময়ে বিজয় অর্জিত হয়েছে ঠিকই কিন্তু এদেশের মানুষের সত্যিকারের মুক্তি সম্ভব হয়নি। এখনও দারিদ্রতার কষাঘাতে জর্জরিত দেশের অধিকাংশ জনগোষ্ঠী। বাকশাল ও নব্য স্বৈরাচারের কবলে পড়ে আজ গণতন্ত্র মৃত প্রায়।  সমাজের শ্রেণী বৈষম্য দূর করতে হলে অসহায়, আর্ত-পীড়িত মানুষের কল্যাণে সবাইকে কাজ করতে হবে। বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ানোর মাধ্যমে বিজয়ের সুফল তাদের দ্বারে পৌঁছানো সম্ভব। '৭১ এর বিজয় কোন একক গোষ্ঠীর ছিলনা। এই বিজয় ছিল দেশের আপামর জনতার। তাই বিজয়ের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে দারিদ্র ও ক্ষুধা মুক্ত, সুখী-সম্দ্ধৃ সোনার বাংলাদেশ গড়তে হলে নিপীড়ন-নির্যাতনকারী ক্ষমতাসীন গোষ্ঠীর পতন এবং সকলকে সহনশীলতার রাজনীতি চর্চা করতে হবে। 

আজ রোববার রাজধানীতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কলাবাগান থানার উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে শীতার্ত ও অসহায় মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ কর্মসূচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কলাবাগান থানা আমীর আবু জয়নবের সভাপতিত্বে ও থানা সেক্রেটারি জাহেনূর ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরোও উপস্থিত ছিলেন জামায়াত নেতা নজরুল ইসলাম, নূর মুহাম্মদ ভূঁইয়া, সাদিক দীদার, মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, মুঃ সায়েম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

ড. মাসুদ আরো বলেন, সরকার ও নির্বাচন কমিশন মুখে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের কথা বললেও দেশে অবাধ, সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোনো পরিবেশ এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান নয়। বরং নির্বাচন কমিশনের ব্যার্থতায় উল্টো  চিত্রই আমরা প্রতিনিয়ত দেখতে পাচ্ছি। ঢাকা মহানগরীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বিএনপি, জামায়াত, ছাত্রশিবির সহ বিরোধী জোটের নেতা-কর্মীদের কোন কারণ ছাড়াই অব্যাহতভাবে গ্রেফতার করছে। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি তো দুরের কথা বরং বিরোধী ২০ দলীয় জোট ও ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদেরকে কোন ধরনের নির্বাচনী কার্যক্রম চালাতে দেয়া হচ্ছে না। পদে পদে তাদের কার্যক্রমে বাধা সৃষ্টি করা হচ্ছে। মামলা, হামলা, মারপিট, ভাংচুর এবং বিরোধী দলগুলোর অফিসে তালা ঝুলানো থেকে শুরু করে সরকারী দলের পক্ষ থেকে ব্যাপক সন্ত্রাসী কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এ নির্বাচন ব্যর্থ হলে নির্বাচন কমিশনকে এর দায়ভার বহন করতে হবে।

ডেমরা থানা উত্তরঃ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের ডেমরা থানা উত্তরের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে অসহায় ও বিধবাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। থানা আমীর হাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য আব্দুস সবুর ফকির।  আরোও উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী মোহাম্মদ আলী হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসাইন, জামায়াত নেতা এম এম রহমান, দেলোয়ার হোসাইন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

খিলগাঁও পুর্ব থানাঃ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের খিলগাঁও পুর্ব থানার উদ্যোগে স্থানীয় একটি মিলনায়তনে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। থানা সেক্রেটারী আশরাফুল আলম ইমনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের মজলিশে শুরা সদস্য এস এম জুয়েল। উপস্থিত ছিলেন থানা কর্মপরিষদ সদস্য এম আর জামান, এম এ আলম মজুমদার, জামায়াত নেতা সাজিদুর রহমান, এম আর রহমান প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদ ও অপরিসীম ত্যাগ স্বীকারকারী বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ সকলের জন্য বিশেষ দোয়া ও মুনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। 

হাজারীবাগ থানা দক্ষিণঃ হাজারীবাগ দক্ষিণ থানার উদ্যোগে স্থানীয় একটি মিলনায়তনে আলোচনা সভা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। থানা আমীর আবু জারীফের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী এম এ ইসলাম ফারুক, আসাদুজ্জামান রাসেল, তপু, এনামুল প্রমুখ।

নিউমার্কেট থানাঃ জামায়াতে ইসলামী নিউমার্কেট থানার উদ্যোগে থানা আমীর মাওলানা মহিব্বুল হক ফরিদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ আব্দুর রব। আরও উপস্হিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী জগোলাম সরওয়ার, থানা কর্মপরিষদ সদস্য মোঃ শাহীন সিকদার, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার ইকরামুল হক ও ওয়ার্ড দায়িত্বশীলসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। স্বাধীনতা সংগ্রামে আত্মত্যাগকারী শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিশেষ দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা মহিব্বুল হক ফরিদ। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ