ঢাকা, বুধবার 23 January 2019, ১০ মাঘ ১৪২৫, ১৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ফরিদপুরে আ.লীগের ২ গ্রুপে ফের সংঘর্ষ, আহত ৩০

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

ফরিদপুর-৪ আসনে (ভাঙ্গা, সদরপুর ও চরভদ্রাসন) ফের সংঘর্ষ হয়েছে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে। এতে দুই পক্ষের অন্তত ৩০ নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

রোববার (১৬ ডিসেম্বর) রাতে নিক্সন সমর্থকরা সদরপুর উপজেলার ঢেউখালী ইউনিয়নের পিয়াজখালী বাজারে মিছিল বের করে। এ সময় কাজী জাফরউল্ল্যাহের সমর্থকরা হামলা করে। এতে নিক্সন গ্রুপের অন্তত ১৫ জন আহত হয়।

এরপর নিক্সন গ্রুপ সংগঠিত হয়ে নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিসে হামলা করলে দুই পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় গুলিবিদ্ধসহ দুই পক্ষের অন্তত আরও প্রায় ১৫ নেতাকর্মী আহত হয়।

আহতদের উদ্ধার করে সদরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে পায়ে গুলিবিদ্ধ ১ জন সহ গুরুতর আহত ৮ জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর মধ্যে নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক চরবলাইশাইল গ্রামের শামসু মাস্টারের ছেলে দিদার, লাভলু এবং শিল্পী নামে এক নারীর অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছে চিকিৎসকরা।

এদিকে এ ঘটনার পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঢেউখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক ওমর ফারুককে আটক করে। এ কারণে সাংসদ নিক্সনসহ নেতাকর্মীরা সদরপুর থানা ঘেরাও করে। সমর্থকেরা খবর পেয়ে রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ঢাকা খুলনা মহাসড়ক ও ফরিদপুর-সদরপুর আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ করে রাখে। মুচলেকা দিয়ে চেয়ারম্যান মুক্তি পাওয়ায় রাত ১২টার পরে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এ ব্যাপারে সাংসদ নিক্সন চৌধুরীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহিদুর রহমান রিয়ন বলেন, ‘আমাদের মিছিলে অতর্কিত হামলা চালিয়ে কর্মীদের আহত করা হয়। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ওমর ফারুক থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ তাকেই আটক করে। বিষয়টি জানতে পেরে নিক্সন চৌধুরী থানায় আসলে তার কয়েক হাজার কর্মী সমর্থক থানা ঘেরাও করে রাখে।’

বিষয়টি নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা উম্মে সালমা তানজিয়া জানান, নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গ করায় সাংসদের এক চেয়ারম্যান সমর্থককে পুলিশ আটক করেছিল। তাকে বিধি ভঙ্গ করার দায়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও মুচলেকা নিয়ে মুক্তি দেয়া হয়েছে। পুরো পরিস্থিতি এখন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

উল্লেখ্য, ফরিদপুর-৪ আসনে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করছে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক সাংসদ কাজী জাফরউল্ল্যাহ। সিংহ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান সাংসদ মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরী।

এর আগে গত ১৪ ডিসেম্বর এই দুই পক্ষ ভাঙ্গায় সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ