ঢাকা, বুধবার 19 December 2018, ৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রংপুর-১ গঙ্গাচড়া আসনে মহাজোট প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সাংবাদিক সম্মেলন

রংপুর অফিস : রংপুর-১ গঙ্গাচড়া আসনে মহাজোট প্রার্থী জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গার (লাঙ্গল) বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী আসাদুজ্জামান বাবলু  (মোটরগাড়ি)।
সোমবার বিকেলে গঙ্গাচড়ার নিজ বাসভবনে  সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বাবলু জানান, রংপুর-১ গঙ্গাচড়া আসনে মহাজোট প্রার্থী স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা ও তার কর্মী বাহিনী তাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে।  রোববার মহিলা গার্লস স্কুল এলাকাসহ তার ২টি নির্বাচনী অফিস ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। বাবলুর কর্মীকে লাঞ্ছিত করাসহ ২টি মোটরসাইকেল ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে।
বাবলু জানান, প্রতিমন্ত্রী রাঙ্গা যে নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করেছেন, তা পদে পদে প্রমাণ রেখে গেছেন। তিনি নিজে দেশের সবচেয়ে বড় গুন্ডা বলে একাধিক জায়গায় বলেছেন। চলতি মাসের ৩ তারিখের পর নির্বাচনের মাঠে থাকতে পারবো না এমন হুমকিও দিয়েছেন। এতে আমি সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছি । এত হুমকি থাকা সত্ত্বেও ভোটারদের ভালোবাসায় আমি নির্বাচনের মাঠে রয়েছি।
বাবলু অভিযোগ করেন, কয়েকদিন আগে কাশিয়াবাড়ি এলাকার কফিল উদ্দিনের পুত্র মোফা নামে এক কর্মীকে মোটরগাড়ি মার্কায় প্রচারণার সময় পুলিশ দিয়ে রাঙ্গা তাকে আটক করিয়েছে । যদিও তাকে পরে ছেড়ে দেয়া হয়। এরপর থেকে ওই কর্মী আমার নির্বাচনের প্রচারণায় আর অংশ নেয়নি।
রাঙ্গার পক্ষে পুলিশ প্রশাসন কাজ করছে অভিযোগ এনে বাবলু বলেন, গঙ্গাচড়া থানার ওসি ভোটে প্রতিমন্ত্রীর পক্ষে কাজ করছেন। এতে করে নির্বাচনের পরিবেশ ঠিক থাকছে না। আমার কর্মী-বাহিনী রাঙ্গার সন্ত্রাসী বাহিনী ও পুলিশের ভয়ে ভীত হয়ে পড়েছে। ভোটাররাও শংঙ্কায় রয়েছে ভোটকেন্দ্রে যেতে পারবে কি না।
তিনি অভিযোগ করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চায় একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন। এই নির্বাচনকে একটি প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন করার লক্ষ্যে এ ধরনের কর্মকান্ড চালাচ্ছে রাঙ্গা। তিনি প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে বলে বেড়াচ্ছেন যদি ২ টিও ভোট পান তবে তিনি নির্বাচিত হবেন এমন প্রতিশ্রুতি প্রধানমন্ত্রী তাকে দিয়েছেন। 
বাবলু জানান, ইতোপূর্বে রাঙ্গার বিরুদ্ধে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেও কোন কাজ হয়নি। প্রতিমন্ত্রী রাঙ্গা’র এ ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, পুলিশ প্রশাসনের নিরপেক্ষতা নিয়ে নির্বাচন কমিশন বরাবর তিনি আবারও অভিযোগ করবেন বলে জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ