ঢাকা, বুধবার 19 December 2018, ৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

মাইক ভাংচুর ॥ জামায়াত বিএনপির ১২ জন গ্রেফতার

ঝিকরগাছা (যশোর) সংবাদদাতা, ১৭ ডিসেম্বর: যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বাকড়া ইউনিয়নের মাটশিয়া গ্রামে ধানের শীষ প্রার্থী মুহাদ্দীস আবু সাঈদের গাড়ি বহরে হামলা করেছে আওয়ামী লীগ কর্মীরা।
জানা যায় বাকড়া গণসংযোগ শেষ করে মাটশিয়া পৌছলে হঠাৎ অতর্কিত ভাবে ১৫/২০ জনের একটি আওয়ামী লীগ গ্রুপ মুহাদ্দীস আবু সাঈদের গাড়ি আক্রমণ করে। সেখান থেকে নাহিদ নামের একজনকে পুলিশ আটক করে।
অন্য সুত্রে জানা গেছে ঝিকরগাছার বিভিন্ন ইউনিয়নে ধানের শীষের প্রচার মাইক ভাংচুর করে চালককে আহত করা হয়েছে।
অন্য দিকে জানা গেছে ঝিকরগাছার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে  জামায়াত বিএনপির অন্তত ১২ জনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।  আটককৃতরা হলেন পানিসারা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আব্দুস সাত্তার, তবিবর রহমান  আব্দুস সবুর, আজিজুল ইসলাম, নাভারন ইউনিয়নের জামায়াত কর্মী ইব্রাহীম, ওয়াদুদ, ইস্রাফিল, মাওলানা ইকরাম উদ্দিন, মোজাহার হোসেন, গদখালী ইউনিয়নের জামায়াত কর্মী বারেক, মতিয়ার, মোবারক, মুয়াজ্জেম, জাকির হোসেন, সাখাওয়াতকে আটক করেছে পুলিশ।
শিমুলিয়া ইউনিয়ন মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে আটক হয়েছে আব্দুল মালেক, শ্রীরামপুর মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক ও ঝিকরগাছা ইউনিয়নের গাজী ফয়েজ উদ্দিন। এসব ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে যৌথ  বিবৃতি দিয়েছেন  জেলা ও থানা বিএনপির - জামায়াত নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিতে তারা বলেছেন আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে পুলিশ জামায়াত বিএনপির নেতা কর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চলিয়ে গ্রেফতার, হয়রানি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে যাতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একক প্রার্থী মুহাদ্দীস আবু সাঈদের পক্ষে কেউ কাজ করতে না পারে, এবং যশোর ২ আসনে ধানের শীষের প্রথীর পক্ষে গণজোয়ার উঠায় তারা দিশেহারা হয়ে মাইক ভাংচুর, হামলা, মামলা, পেশী শক্তি ব্যবহার করছে।  জামায়াত নেতারা প্রশাসনের এ নগ্ন হস্তক্ষেপ বন্ধ ও প্রচার, গণসংযোগ, সমাবেশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না করতে  নির্বাচন কমিশনের নিকট জোর  দাবি করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ