ঢাকা, বৃহস্পতিবার 27 December 2018, ১৩ পৌষ ১৪২৫, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

জীবন নিয়ে শঙ্কায় ধানের শীষের নেতাকর্মীরা ॥ গ্রেফতার অব্যাহত 

শাহজাহান তাড়াশ সিরাজগঞ্জ থেকে : সিরাজগঞ্জে গ্রেফতার আতংকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন জামায়াত বিএনপির নেতাকর্মীরা। সেনা মোতায়েনের পরও ক্রমবর্ধমান নির্বাচনী সহিংসতায় জামায়াত-বিএনপির নেতারা হতাশা প্রকাশ করেছেন। সিরাজগঞ্জ-৪ উল্লাপাড়া আসনে জামায়াতের সেক্রেটারী জেনারেল রফিকুল ইসলাম খাঁনের জনপ্রিয়তায় আ’লীগ ভয়ে ভিত হয়ে নেকাকর্মীদের উপর মামলা হামলা গুম করে কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করছে। সিরাজগঞ্জ-৩ তাড়াশ রায়গঞ্জ আসনের বিএনপি প্রার্থী আব্দুল মান্নান তালুকদার বলেন, সেনাবাহিনী মোতায়েনের পরও পরিস্থিতি উন্নত হয়নি। 

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া, কামারখন্দ, রায়গঞ্জ, সদর, বেলকুচিসহ নির্বাচনী ৬ আসনে পুলিশের ধরপাকড় এখন সবার জন্য আতঙ্ক হয়ে উঠেছে। অভিযোগ ও এলাকায় খোঁজ খবর নিয়ে যায়,আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে সংঘাত হামলা ও নাশকতা ততই বেড়ে চলেছে। আ’লীগের অরাজকতা দুঃশাসন, ক্রমেই ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। ভোটারদের মধ্যে অনেকে জানিয়েছেন এবছর ভোটের কোন আমেজ নেই। আছে সংশয় শঙ্কা হানাহানি সাংঘাত। আ’লীগ একতরফা মাঠে দখল করে আছে অন্য কোন দলকে নামতে দিচ্ছে না। প্রচার প্রচারনায় নামলেই মামলা হামলা মারপিট, এই ভয়ে আতঙ্কে ঘাবটি মেরে বসে আছে। বিএনপির নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় বাধা কেউ থামাতে পারেনি। নির্বাচনের আর মাত্র বাকি ৩দিন। মাঠে এখনও নির্বাচনী পরিবেশ। গত দুই দিনে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২০ জন জামায়াত বিএনপির নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে। 

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, তাড়াশ উপজেলা ছাত্র শিবির নেতা মোঃ আমানত উল্লা, কামার খন্দ উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা ইউসুফ আলী,জামায়াত কর্মী সাইফুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক, সাইফুল আলম, সিরাজগঞ্জ শ্রমিক সমিতির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক, মানিক আহম্মেদ, বিএনপি নেতা আলম হোসেন, আব্দুর রশিদ, সাগর আহম্মেদ, আতাউর রহমান, রেজওয়ান, আহাদ আলী, আব্দুল বারিক, আমিরুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে নির্বাচনী সমাবেশ থেকে পুলিশ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। এই ঘটনার এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। উপজেলা জামায়াতের আমীর আলী মতুর্জা, সেক্রেটারী আবুল কালাম আজাদ জানান, শান্তিপূর্ণ নির্বাচনী সমাবেশে আ’লীগের হামলা ভোট ডাকাতির পূর্ব আলামতের চিহ্ন। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আ’লীগের ভরাডুবি হবে, তাদের পরাজয় নিশ্চিত, এই আসনের চার, চারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান তালুকদার এর জনপ্রিয়তায় ভয়েভীত হয়ে পুলিশের সহায়তা নিয়ে আ’লীগ সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে এই ভাবে বর্বর হামলা মামলা হত্যা লুন্ঠন করছে। এই আসনের বিএনপি পদ প্রার্থী আব্দুল মান্নান তালুকদার বলেন, লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড সবার জন্য সমান নিশ্চিত করে সুষ্ঠ নির্বাচনী পরিবেশ সৃষ্টি করতে সেনাবাহিনীর সহায়তা কামনা করেছেন। উল্লাপাড়া জামায়াতের আমীর অধ্যাপক শাহজাহান আলী বলেন,সারাদেশে পুলিশ ও ক্ষমতাশীন সন্ত্রাসী দলের হামলায় ধানের শীষের ২৪ প্রার্থীসহ ৫শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। তিনি বলেন,একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনার পর থেকে নির্বাচনী প্রচারনায় আ’লীগের অত্যাচার চলতে থাকে ক্রমেই বিএনপি প্রার্থীদের জন্য সবচেয়ে ভয়ঙ্কর দিন আসছে । 

তিনি বলেন সেনাবাহিনী মোতায়েনের পরও পরিস্থিতি উন্নত হয়নি। আমরা আশা করেছিলাম সেনামোতায়েনে নির্বাচন পরিস্থিতি উন্নত হবে। কিন্ত এখনও পরিবেশ ভাল না হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করতে হচ্ছে। আমরা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নিশ্চিতের জন্য সেনাবাহিনীকে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। সিরাজগঞ্জ জেলা জামায়াত ও বিএনপির নেতাকমীরা জানান, ক্ষমতাশীন দলের লোকেরা ক্রমশঃ উম্মত্ত হয়ে উঠেছে। এবং তারা ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র দখল ও জালিয়াতির পরিকল্পনা করছে।­

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ