ঢাকা, বৃহস্পতিবার 27 December 2018, ১৩ পৌষ ১৪২৫, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রিটানিং অফিসের সভা শেষে ফেরার পথে ডা. শফিকের প্রতিনিধি নিখোঁজ পরে গ্রেফতার

রিটার্নিং অফিসারের আহ্বানে নির্বাচন মনিটরিং টিম এর সভা শেষে ফেরার পথে ঢাকা-১৫ সংসদীয় আসনের ২০ দলীয় জোট মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ডা. শফিকুর রহমানের মনোনীত ও প্রেরিত প্রতিনিধি এডভোকেট আল-মহসীন তাওহীদ রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ এবং পরবর্তীতে একটি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করার ঘটনার তীব্র নিন্দা-প্রতিবাদ এবং অবিলম্বে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আইনজীবী বিভাগের সভাপতি এডভোকেট এস এম কামাল উদ্দীন ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের আইনজীবী বিভাগের সভাপতি এডভোকেট মো. মঈন উদ্দীন।
গতকাল বুধবার দেয়া বিবৃতিতে আইনজীবী নেতৃদ্বয় বলেন, সরকার পাতানো নির্বাচনের মাধ্যমে আবারও ক্ষমতা দখলের জন্য জনগণের উপর জুলুম-নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে। সরকারের স্বৈরাচারি ও ফ্যাসীবাদী মানসিকতার কারণেই বিরোধী দল নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিতে পারছে না। তারা নেতাকর্মীদের হামলা, মামলা ও গণগ্রেফতার অব্যাহত রেখেছে। সরকারের জিঘাংসা ও প্রতিহিংসা থেকে রেহাই পাচ্ছে না আইনজীবীসহ কোন শ্রেণি ও পেশার মানুষ। সে ধারাবাহিকতা বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা অডিটরিয়ামে গত ২৫ ডিসেম্বর ‘নির্বাচন মনিটরিং টিম’ এর সভা থেকে ফেরার পথে ঢাকা-১৫ সংসদীয় আসনের ২০ দলীয় জোট মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ডা. শফিকুর রহমানের মনোনীত ও প্রেরিত প্রতিনিধি আল-মহসীন তাওহীদ রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন। গতকাল তাকে দারুসসালাম থানায় মামলা নং-৩৪(১২)১৮ তাং-২৫/১২/১৮-এ গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। ঘটনার ধারাবাহিকতায় প্রমাণ হয় যে, সরকারি গোয়েন্দা সংস্থায় এডভোকেট তাওহিদকে প্রথমে অপহরণ ও পরে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মামলা দিয়ে আদালতে সোপর্দ করেছে।
তারা বলেন, এডভোকেট আল-মহসীন তাওহীদ একজন সংসদ সদস্য প্রার্থীর প্রতিনিধি। তাই তাকে অপহরণ, গ্রেফতার ও মামলা প্রদানের মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে সরকার, নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসন অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। তাই বর্তমান অবস্থায় কোন ভাবেই গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব নয়। তারা এডভোকেট তাওহীদকে অপহরণ ও পরবর্তীতে গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং অবিলম্বে তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ