ঢাকা, সোমবার 31 December 2018, ১৭ পৌষ ১৪২৫, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ভোটের মাঠের সহিংসতায় ১৭ জেলায় নিহত ২০

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোটের মাঠের সহিংসতায় দেশের ১৭ জেলায় ২০ জন নিহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। গতকাল রোববার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে বলে একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। সূত্রে প্রাপ্ত সংবাদ অনুযায়ী নিহতদের মধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের সাথে সাধারণ জনগণও রয়েছেন বলে জানা গেছে। এছাড়া একজন আনসার সদস্য রয়েছেন বলে জানা গেছে। বিভিন্ন সুত্রে যে প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে,তারমধ্যে আওয়ামী লীগের ১১ জন, বিএনপির ৩, জাতীয় পার্টির ১ জন রয়েছেন। বাকীরা সাধারণ জনগণ।
আমাদের সংবাদদাতাসহ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রাপ্ত খবর:
চট্টগ্রামে নিহত ৩
চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার কাথারিয়া ইউনিয়নের বরইতলির প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহমেদ কবীর (৪৫) নামে একজন ব্যক্তি গুলীবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন। গতকাল ভোরে স্থানীয় দুই গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহত আহমেদ কবীর কাথারিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। বিষয়টি নিশ্চিত করে বাঁশখালী থানার ওসি কামাল হোসেন বলেন, ‘ ভোরে ওই কেন্দ্রের সামনে দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলী হয়। এতে গুলিবিদ্ধ কবীরকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’
এদিকে পটিয়ায় ভোটকেন্দ্র দখলকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আবু সাদেক (১৮) নামের একজন নিহত ও দুই জন গুলীবিদ্ধ হয়েছেন। বেলা ১১টার দিকে ওই উপজেলার জিরি ইউনিয়নের দক্ষিণ মালিয়ারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পটিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নিহত আবু সাদেক দক্ষিণ মালিয়ারা এলাকার আবুল কাশেম মেম্বারের ছেলে। আহতরা হলেন মো. মুন্না (২৮) ও মো. ইলিয়াস (৪০)।
সহকারী পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন বলেন, ‘ভোটকেন্দ্র দখলকে কেন্দ্র করে ধানের শীষ ও নৌকার প্রার্থীরা সংঘর্ষে জড়ান। দুই পক্ষের সংঘর্ষের মাঝে পড়ে আবু সাদেক নিহত হন। খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ওই কেন্দ্রে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই ঘটনায় এক ঘণ্টার মতো ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর দুপুর ১২টার দিকে ফের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। বর্তমানে ওই কেন্দ্রের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে ও বর্তমানে ওই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে।’
এর আগে চট্টগ্রাম-১২ আসনের পটিয়া এলাকায় দ্বীন মোহাম্মদ (৩৫) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। শনিবার (২৯ ডিসেম্বর) রাত ৯টার দিকে পটিয়া উপজেলার কুসুমপুর ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল সাংবাদিকদের এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। পুলিশ জানায়, নিহত দ্বীন মোহাম্মদ যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তিনি স্থানীয় মৃত ইউসুফ কমান্ডারের ছেলে। বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা তাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে।
কুমিল্লায় নিহত ২
কুমিল্লার নাঙলকোট ও চান্দিনায় নির্বাচনি সহিংসতায় দুই জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গতকাল ভোট শুরুর পর এই ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নাঙলকোটে মুরগাও ভোটকেন্দ্রে প্রবেশের পথে বাচ্চু মিয়া (৪৫) নামে এক ভোটারকে মারধর করে কিছু দুর্বৃত্ত। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। স্থানীয়রা জানান, তিনি বিএনপি সমর্থক। তার বাবার নাম ইদরিস মিয়া। বাড়ি নাঙলকোটের সুন্দাইল গ্রামে। তিনি পেশায় বর্গা চাষি।
এদিকে চান্দিনায় পশ্চিম বেলাসার সরকারি প্রাথমিক কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে একজন নিহত হয়েছেন। পশ্চিম বেলাসারের প্রিজাইডিং অফিসার হুমায়ুন কবির দাবি করেন, ‘কেন্দ্র থেকে ভোটের বাক্স ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশের গুলিতে একজন নিহত হয়।’ নিহত ব্যক্তির নাম মুজিব (৩৫)। তার বাবার নাম সুজাদ আলী। চান্দিনা থানার ওসি আবু ফয়সাল তার নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন।
রাজশাহীতে নিহত ১
রাজশাহী-৩ আসনের মনপুর উপজেলায় বাকুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মেরাজ আলী (৩২) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র এবং সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, নিহত মেরাজ আওয়ামী লীগের কর্মী ছিলেন। তবে বিএনপির দাবি, মেরাজ তাদের দলীয় কর্মী ছিল। নিহত মেরাজ আলী জাহানাবাদ ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে।
জানা গেছে, বাকুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় প্রতিপক্ষের হাসুয়ার আঘাতে মেরাজ ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।
টাঙ্গাইলে নিহত ১
টাঙ্গাইলের গোপালপুরে হাজী আব্দুল আজিজ (৬৫) নামের এক বিএনপি নেতার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সকালে উপজেলার নগদা শিমলা ইউনিয়নের বাইশখাইল এলাকা থেকে তার লাশটি উদ্ধার করা হয়। আব্দুল আজিজ ওই এলাকার ওয়ার্ড বিএনপি’র সহ-সভাপতি বলে জানা গেছে।
স্থানীয়রা জানান, সকালে স্থানীয় লোকজন নগদা শিমলা বাইশখাইল এলাকায় আব্দুল আজিজের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে তার লাশটি উদ্ধার করে।
জেলা বিএনপির সভাপতি ও এই আসনের প্রার্থী সুলতাল সালাউদ্দিন টুকুর বড় ভাই কৃষিবিদ শামছুল আলম তোফা অভিযোগ করেন, ‘সকালে ওয়ার্ড বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুল আজিজ ভোটার লিস্ট নিয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার সময় নৌকার সমর্থকরা তাকে হত্যা করে লাশ ধানক্ষেতে ফেলে রাখে। এঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
কক্সবাজারে নিহত ১
কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের সংঘর্ষে এক যুবলীগকর্মী নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম আবদুল্লাহ আল ফারুক (২৫)। তিনি রাজাক আলী গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।
কক্সবাজার আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেন, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মাতবরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিএনপি সমর্থকদের হামলায় তিনি গুরুতর আহত হন। এ সময় তাকে কুপিয়ে জখম করা হয়। পরে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে তার মৃত্যু হয়।
পেকুয়া থানার ওসি জাকের হোসেন ভূঁইয়া জানান, তিনি ঘটনা জানতে পেরে ওই এলাকায় দায়িত্বরত পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেছেন। তবে এ ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত কোনও মামলা হয়নি।
রাঙামাটিতে নিহত ১
রাঙামাটি জেলোর কাউখালি উপজেলায় ঘাগড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষে ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বাছির উদ্দিন (৩৫) নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন ১০ জন। গতকাল ভোটগ্রহণের আগে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। কাউখালি উপজেলার নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মিজানুর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
স্থানীয়রা জানান, সকালে ভোটগ্রহণ শুরুর আগে ইউনিয়নের রাঙ্গিপাড়া এলাকায় নৌকা ও ধানের শীষের দু’দল সমর্থকের মধ্যে হঠাৎ সংঘর্ষ শুরু হয়। এসময় বাছির উদ্দীনসহ উভয়পক্ষের অন্তত ১১ জন আহত হন। আহতের মধ্যে গুরুতর বাছির উদ্দীনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসব তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহতদের কাউখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
কাউখালী থানার ওসি মঞ্জুর আলম বলেন, ‘ভোটগ্রহণের আগে দু’দলের সংঘর্ষে চট্টগ্রামে নেওয়ার পথে এক যুবলীগের নেতার মৃত্যু হয়েছে।'
নরসিংদীতে নিহত ১
নরসিংদী-৩ আসনের শিবপুরে মো. মিলন মিয়া (৪৫) নামে আওয়ামী লীগের এক নির্বাচনি এজেন্টকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। দুপুর ১২টার দিকে নরসীংদী-৩ শিবপুর কুন্দারপাড়া কেন্দ্রে অদূরে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিবপুর থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ। তিনি জানান, ‘ দুপুর ১২টার দিকে নরসীংদী-৩ শিবপুর কুন্দারপাড়ার ভোট কেন্দ্রের অদূরে গন্ডগোল দেখা দিলে পুলিশ সেখানে গিয়ে মো. মিলন মিয়ার (৪৫) গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখে। কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তদন্ত করা হচ্ছে।’
নাটোরে নিহত ১
নাটোরে ধানের শীষে ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে বাকবিতন্ডায় ভাতিজার হাতে চাচা খুন হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের নাম হোসেন আলি (৫০) এবং তার ভাতিজার নাম রতন (৩০)। সকালে নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার সমসখলসী গ্রামে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নলডাঙ্গা থানার ওসি সফিকুর রহমান।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভাতিজা বউ ধানের শীষে ভোট দেওয়ায় চাচা হোসেন আলি তাকে বকাঝকা করেন। এ নিয়ে তার ভাতিজার বউ প্রতিবাদ করলে তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এসময় রতন এসে স্ত্রীর পক্ষ নিয়ে চাচার সঙ্গে বাকবিতন্ডা শুরু করে। এর এক পর্যায়ে রতন ধারালো অস্ত্র দিয়ে চাচা রতনকে আঘাত করে। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত হোসেন আলি বিপ্র বেলঘরিয়া ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য বলে নিশ্চিত করেছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসাদ্দেকুল ইসলাম বাদশা।
বগুড়ায় নিহত ১
বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের কাহালু উপজেলার পাইকড় ইউনিয়নের বাগইল গ্রামে আজিজুল ইসলাম (৩০) নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মী নিহত এবং নাজমুল হুদা ডুয়েল নামে এক ইউপি সদস্য আহত হয়েছেন। বগুড়ার কাহালু থানার ওসি শওকত কবির ও পাইকড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিঠু চৌধুরী এই খবর নিশ্চিত করেছেন। ধানের শীষের কর্মীদের হামলায় হতাহতের এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।
 নোয়াখালীতে নিহত ১
 নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) আসনের বেগমগঞ্জ উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের তুলারাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে আওয়ামী লীগের সংঘর্ষে কর্তব্যরত আনসার সদস্য নুরন্নবী গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। জেলা পুলিশ সুপার ইলয়াস শরিফ একথা জানান। ভোট চলার সময় এ ঘটনা ঘটেছে।
গাজীপুরে নিহত ১
গাজীপুর মহানগরের কাজী আজিমউদ্দিন ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক ভিপি লিয়াকত হোসেনকে (৪০) কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। দুপুর পৌনে ৩টার দিকে মহানগরির হাড়িনাল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন সদর থানার ওসি সমীর সূত্র ধর জানান, ‘হামলার ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। কারা তার ওপর হামলা করেছে তা তদন্ত করে দেখা হবে।’ লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রাখা হয়েছে।
লালমনিরহাটে নিহত ১
লালমনিরহাট-৩ আসনের (সদর) রাজপুর ইউনিয়নের পাগলারহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে ভোট দিতে যাওয়ার পথে তোজাম্মেল হোসেন (৬০) নামে এক ব্যক্তি দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন।
২ নং ইউনিয়নের সদস্য শাহজাহান আলী জানান, দুপুর ১টার দিকে তোজামম্মেল হোসেনকে ছুরিকাঘাত করা হয়। তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর বিকাল ৩টা ২০ মিনিটের দিকে মারা যান তিনি।
পেশায় দিনমজুর তোজাম্মেল ২ নং ওয়ার্ড এলাকার বাসিন্দা। তার চার ছেলে ও পাঁচ মেয়ে রয়েছে।
ইউপি সদস্য শাহজাহান আলীর দাবি, ভোটকেন্দ্রে যেতে মানা করার পরও তোজাম্মেল হোসেন যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়।
লালমনিরহাট-৩ আসনের (সদর) রাজপুর ইউনিয়নের পাগলারহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে ভোট দিতে যাওয়ার পথে তোজাম্মেল হোসেন (৬০) নামে এক ব্যক্তি দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন। ২ নং ইউনিয়নের সদস্য শাহজাহান আলী জানান, দুপুর ১টার দিকে তোজামম্মেল হোসেনকে ছুরিকাঘাত করা হয়। তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর বিকাল ৩টা ২০ মিনিটের দিকে মারা যান তিনি। পেশায় দিনমজুর তোজাম্মেল ২ নং ওয়ার্ড এলাকার বাসিন্দা। তার চার ছেলে ও পাঁচ মেয়ে রয়েছে। ইউপি সদস্য শাহজাহান আলীর দাবি, ভোটকেন্দ্রে যেতে মানা করার পরও তোজাম্মেল হোসেন যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিহত ১
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সদর-৩ আসনে সদর উপজেলার রাজঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে সহিংসতার ঘটনায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে ইসরাইল মিয়া (১৮) নামের আওয়ামী লীগের এক কর্মী নিহত হয়েছেন। দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ওই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মো. শওকত হোসেন জানান, আহতাবস্থায় তিন জন সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসে। এদের মধ্যে ইসরাইল মিয়া নামের এক যুবক পিঠে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ছিল। সে হাসপাতালে আসার আগেই মারা যায়।
যশোরে নিহত ১
 ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার পথে মারধরের শিকার হয়ে যশোরের অভয়নগরে শামসুর রহমান মোল্যা (৭৫) নামে ধানের শীষের এক এজেন্ট মারা গেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সকালে উপজেলার শ্রীধরপুর ইউনিয়নের বর্নি গ্রামে নৌকা মার্কার লোকজন তাকে লাঠি দিয়ে বেদম মারপিট করে বলে অভিযোগ করেন নিহত ব্যক্তির স্বজনরা । ময়নাতদন্তের জন্যে পুলিশ শামসুর রহমানের মরদেহ যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
যোগাযোগ করা হলে অভয়নগর থানার ওসি আলমগীর হোসেন মারধরের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ‘নিহতের দুই হাতে জখমের চিহ্ন পেয়েছি। বয়স্ক মানুষ এবং শারীরিকভাবে অসুস্থ ছিলেন, হয়তো সেকারণে তার মৃত্যু হয়েছে।’
দিনাজপুর
দিনাজপুরের বিরল উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় পড়ে গিয়ে কিনা মোহাম্মদ (৬৫) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার শহরগ্রাম মন্ডলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে এ ঘটনা ঘটে।
সিলেট
সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলায় পুলিশের গুলিতে উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সায়েম আহমদ সুহেল নিহত হয়েছেন। বেলা আড়াইটার দিকে উপজেলার পশ্চিম গৌরিপুর ইউনিয়নের আজিজপুর গ্রামের ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সুহেল গৌরিপুর ইউনিয়নের নলজুড় গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ফজলু মিয়ার পুত্র।
 সিরাজগঞ্জ
সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার হাট ঘোরজানে পুলিশের ধাক্কায় আতঙ্কিত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নিহতের নাম লাভলু মিয়া (৪৫)। তিনি স্থানীয় ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। চৌহালী উপজেলার ঘোরজান ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব আলী সরকার জানান, সকালে লাভলু মিয়া হাট ঘোরজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে গেলে হঠাৎ বিশৃঙ্খলা হয়। তখন দায়িত্বরত পুলিশ তাকে সজোরে ধাক্কা দিলে আতঙ্কিত হয়ে দৌড়ে বাড়িতে গিয়ে মারা যান তিনি। চৌহালী থানার ওসি জাহাঙ্গীর হোসেন জানিয়েছেন, বিষয়টি আমাদের জানা নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ