ঢাকা, শনিবার 5 January 2019, ২২ পৌষ ১৪২৫, ২৮ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ছয় জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ জন নিহত আহত ৮৩ 

সংগ্রাম ডেস্ক : গতকাল শুক্রবার ছয় জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ জন নিহত এবং ৮৩ জন আহত হয়েছে। শীর্ষ কাগজ ও আমাদের সংবাদদাতার খবর।

ঢাকা : সাভারের আশুলিয়ায় ট্রাকচাপায় নারীসহ ২ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩ জন। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ইটখোলা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহতদের মধ্যে মৌসুমী আক্তার (২২) নামে এক পথচারীর নাম জানা গেছে। নিহত অপরজন রিকশাচালক বলে জানা গেলেও তার নাম ঠিকানা জানাতে পারেনি পুলিশ। 

আহতরা হলেন- ফরহাদ আলী (২৫), জাহের আলী (৬০) ও চান্দু বিবি (৬৫)। তাদের প্রথমে স্থানীয় নারী ও শিশু স্বাস্ব্য কেন্দ্রে নেয়া হয়। কিন্তু অবস্থা গুরুতর হওয়ায় পরে তাদের ঢাকা পংগু হাসপাতালে পাঠানো হয়। 

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুস সালাম জানান, গতকাল শুক্রবার সকালে দ্রুতগতির বালু বোঝাই একটি ট্রাক টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়ক দিয়ে আশুলিয়া থেকে বাইপাইলের দিকে যাচ্ছিল। পথে ইটখোলা এলাকায় এসে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি রিকশা ও মৌসুমী নামে এক পথচারীকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই রিকশাচালক মারা যান। এতে গুরুতর আহত হন মৌসুমীসহ চারজন। এ অবস্থায় তাদের নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিলে চিকিৎসকরা মৌসুমীকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এ ঘটনায় ঘাতক ট্রাকটি আটক করা গেলেও এর চালক পালিয়ে গেছে বলে জানান তিনি।

মাধবদী (নরসিংদী) : আমাদের সংবাদদাতা মোঃ আল আমিন জানান, নরসিংদীর মাধবদীতে বাসের ধাক্কায় আবুল হোসেন (৫২) নামে এক মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল পৌনে ৮টায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে মাধবদী শহরের টাটাপাড়া ইসলাম সিএনজি পাম্পের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মটর সাইকেলের নাম্বার দিনাজপুর ল-১২-০২৩৮।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল শুক্রবার খুব ভোরে ঢাকার দিক থেকে আসা মোটরসাইকেল চালক আবুল হোসেন নরসিংদীর দিকে যাওয়ার পথে বিপরিত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাস মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলটি দুমড়ে মুছড়ে যায় এবং চালক আবুল হোসেন ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়ে মৃত্যু বরণ করেন। পরে আশপাশের লোকজন দৌড়ে এসে তাকে উদ্ধারের চেস্টা করে। ততক্ষনে দ্রুতগামি যাত্রীবাহী বাসটি ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

দুর্ঘটানায় নিহতের স্বজনদের খোজ এখনো পাওয়া যায়নি। লাশটি নরসিংদী সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠান পুলিশ। নিহত ব্যক্তির শরীরের পোশাক অনুযায়ি তাকে চাকরীজীবী বলে ধারনা করা হচ্ছে। 

মাধবদী থানার উপ-পরিদর্শক উত্তম কুমার জানান, বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত নাম আবুল হোসেন(৫২)। তার বাড়ি দিনাজপুরে। নিহতের স্বজনেরা ঢাকার মতিঝিলে বসবাস করে। দুর্ঘটনাটি সকাল সাড়ে সাতটা থেকে পৌনে আটটার মধ্যে হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দুর্ঘটনার পরই বাসটি দ্রুতগতিতে স্থান ত্যাগ করে, ফলে আটক করা সম্ভব হয় নাই। নিহতর লাশ নরসিংদী সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বগুড়া থেকে শীর্ষকাগজ জানায়, বগুড়ার শেরপুর উপজেলার গাড়ীদহ এলাকায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় দুলাল হোসেন (২৫) নামে এক ট্রলিচালক নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় আল-আমিন (২৩) নামে চালকের সহকারী আহত হয়েছেন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশ বগুড়া অঞ্চলের কুন্দারহাট ফাঁড়ির এসআই কাজল নন্দী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নয়মাইল এলাকা থেকে ট্রলিতে ইট নিয়ে শেরপুর সদরের দিকে যাচ্ছিলেন দুলাল। ট্রলি মহাসড়কের গাড়ীদহ এলাকায় পৌঁছলে ঢাকাগামী এনা পরিবহনের একটি এসি কোচ (ঢাকা-মেট্রো-ব-১৪-৭২৭৩) পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ট্রলিচালক দুলাল হোসেন ও সহকারী আল-আমিন আহত হন। এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে অ্যাম্বুলেন্সে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টা করলে পথিমধ্যে দুলাল মারা যান।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, কোচটি আটক করা সম্ভব হলেও এর চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে একটি মালবাহী ট্রাকের চাপায় মিনারা রাণী দাস (৪৫) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার সকালে উপজেলার মোগড়াপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মিনারা ফতুল্লার শীষমহল এলাকার নরেশ চন্দ্র দাসের স্ত্রী। ট্রাকটি ওই নারীকে চাপা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) সেলিম মিয়া গণমাধ্যমকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলায় একটি যাত্রীবাহী বাসের (কোচ) সামনের চাকা খুলে উল্টে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার নগরবাড়ী-বগুড়া মহাসড়কে পাইকপাড়া গ্রামের পাশে অলিফ পরিবহনের ওই বাসটি উল্টে যায়।

দুর্ঘটনায় শিশু ও নারীসহ বাসটির কমপক্ষে ৩০ যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদের ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ও পুলিশ স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় উদ্ধার করে উল্লাপাড়া ২০ শয্যা হাসপাতাল, হাটিকুমরুল সাখাওয়াম মেমোরিয়াল হাসপাতালসহ স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত উল্লাপাড়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মাহবুবু হাসান ও উল্লাপাড়া ফায়ার স্টেশনের স্টেশন কমান্ডার নাদির হোসেন জানিয়েছেন, পাবনা থেকে বগুড়া যাওয়ার পথে দুর্ঘটনায় পড়ার কোচটি আহত যাত্রীদের মধ্যে দুই শিশু ও চার নারীর অবস্থা গুরুতর।

তারা জানান, প্রাথমিকভাবে কোনও আহত যাত্রীর পরিচয় জানা যায়নি। উদ্ধার অভিযান অব্যহত রয়েছে।

জয়পুরহাট: জয়পুরহাট সদর উপজেলার গুয়াবাড়িঘাট এলাকায় মোটরসাইকেল ও ব্যাটারিচালিত অটোভ্যানের সংঘর্ষে কামরুন নেছা রেখা (৪৫) নামে এক স্কুলশিক্ষিকা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তার বড় ভাই স্কুলশিক্ষক শামসুদ্দিন বারী বাবুও (৫০) আহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে জয়পুরহাট-গোবিন্দগঞ্জ সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত রেখা কালাই উপজেলার ইন্দাহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা এবং কালাই উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের হারুনুর রশিদের স্ত্রী। আহত বাবুও একই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

স্থানীয়দের উদ্ধৃতি দিয়ে জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম জানান, রেখা ও বাবু একই স্কুলে চাকরি করেন। স্কুল শেষ করে সন্ধ্যায় মোটরসাইকেলে জয়পুরহাট শহরে যাওয়ার পথে গুয়াবাড়িঘাট এলাকায় একটি ব্যাটারিচালিত অটোভ্যানের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে তারা গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করায়। কিন্তু রেখার অবস্থার অবনতি হলে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে রাতে তার মৃত্যু হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ