ঢাকা, শনিবার 5 January 2019, ২২ পৌষ ১৪২৫, ২৮ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

শাহজাদপুরের নদ-নদীতে মাছ নেই জেলে পরিবারের দুর্দিন 

এম,এ, জাফর লিটন , শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ ) থেকে : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের প্রধান নদী যমুনা, করতোয়া,বড়াল, হুরাসাগর নদীর নাব্যতা সংকট। দীর্ঘদিন ধরে নদী খনন ও ড্রেজিং না করার কারণে করতোয়া ও হুরাসাগর নদী এখন নালায় এবং মরায় পরিণত হয়েছে। যার কারণে উপজেলার কমপক্ষে দেড় হাজার জেলে পরিবার বেকার হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। তাদের নৌকা এখন নদীঘাটের বালু চরে আটকা পড়ে রয়েছে। একারণেই বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে অনেকেই ভিন্ন পেশায় জড়িয়ে পড়েছে। উপজেলা সদরের পাশ দিয়ে করতোয়া নদী প্রবাহিত, হাবিবুল্লাহনগর, নরিনা, গাড়াদহ ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত করতোয়া নদীর সিংহভাগ এখন নালায় পরিণত হয়েছে। এছাড়া কৈজুরী, গালা, জালালপুর ইউনিয়নের পাশ দিয়ে যমুনা নদী প্রবাহমান। স্বাধীনতার পর থেকে আজ পর্যন্ত যমুনা নদীর কোন অংশেও ড্রেজিং ও খনন করা হয়নি। একারণেই উজান থেকে বয়ে আসা পলি জমি দীর্ঘ ৪২ বছরে গভীর নদীগর্ভ ভরে উঠেছে। যমুনা ও করতোয়ার বুক জুড়ে এখন হাজার হাজার একর আবাদী জমি। জমি জিরাত খুঁইয়ে যাওয়া পরিবারগুলো তাদের জমি ফিরে পেয়েছে। অপরদিকে নদীর নাব্যতা সংকটের কারণে বেকার হয়ে পড়েছে দেড় হাজার জেলে । তারা এখন ওই পেশা ছেড়ে দিয়ে বিভিন্ন এনজিও সংস্থা ও দাদন ব্যবসায়ীদের নিকট চরা সুদে ঋণ নিয়ে বাড়িতে খোরাকি দিয়ে পাড়ি জমিয়েছে ভিন্ন জেলায়। অনেকে রিক্সা-ভ্যান আবার কেউ কেউ রাজমিন্ত্রী, কাঠমিস্ত্রীর জোগালী হিসেবে কাজ করছেন। নদীতে নৌকা চালিয়ে এবং মাছ ধরে যে রোজগার করতো তারা ভিন্ন জেলায় হাড়কাপানো পরিশ্রম করে সে রোজগাড় করতে পারছেন না তারা। যমুনা পাড়ের জেলে জেলে জয়ন্ত কুমার জানান, দীর্ঘদিন মাছ ধরা এবং নৌ-শ্রমিকের কাজ করে এসে আজ হঠাৎ করে রিক্সা-ভ্যান চালাতে পারছি না।

তারপরও সংসার চালানোর দায়ে এ সব পেশায় পরিশ্রম করতে হচ্ছে। হরিনাথপুরের জেলে অজয় কুমার জানান, নদীতে জল নেই তাই আমরা অলস সময় কাটাচ্ছি। সংসার চলছেনা ঋণগ্রস্থ্য হয়ে পড়ছি। কৈজুরী ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম জানান, নদীগুলোর নাব্যতা ফিরে আনতে হলে নদী খনন ও ড্রেজিং করা একান্ত প্রয়োজন। এতে করে পরিবেশের ভারসাম্য ফিরে আসবে। পাশা পাশি নৌ-শ্রমিক ও জেলে সম্প্রদায় নতুন করে আবার তাদের হারানো পেশা ফিরে পাবে। নাব্যত্য সংকটের কারণে আজ আমার ইউনিয়নের কমপক্ষে ৩০০ নৌ-শ্রমিক ও জেলে সম্প্রদায় বেকার হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ