ঢাকা, শনিবার 5 January 2019, ২২ পৌষ ১৪২৫, ২৮ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

প্রতিরক্ষা খাতে জোরদার হচ্ছে পাকিস্তান ও তুরস্কের বাণিজ্য সম্পর্ক

৪ জানুয়ারি, সাউথ এশিয়ান মনিটর : সাম্প্রতিক বছরগুলোতে প্রতিরক্ষা শিল্পে চুক্তি সইয়ের মাধ্যমে তুরস্ক ও পাকিস্তানের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক নতুন গতি পেয়েছে। আগামী কয়েক বছরে তুরস্ক পাকিস্তানকে এটিএকে হেলিকপ্টার ও মিলজেম করভেটের সরবরাহ করবে। গত বছরের প্রথম ১১ মাসে পাকিস্তানে তুরস্কের রফতানি ৪০০ মিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যায়। বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইমরান খান প্রথম তুরস্ক সফরে গেছেন। তার এই সফর দুই দেশের বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সম্পর্কে নতুন খাতের উদ্ভাবন ঘটাবে বলে আশা করা হচ্ছে। তুরস্কের পরিসংখ্যান ইন্সটিটিউটের তথ্যে দেখা যায়, গত এক দশকে পাকিস্তানে তুরস্কের রফতানি ব্যাপকভাবে বেড়েছে। ২০০৮ সালে যেখানে রফতানি ছিলো ১৫৫ মিলিয়ন ডলার সেখানে ২০১৭ সালে হয়েছে ৩৫২ মিলিয়ন। অন্যদিকে একই সময়ে পাকিস্তান থেকে তুরস্কে আমদানি ৫৮৬ মিলিয়ন ডলার থেকে ৩২৩ মিলিয়ন ডলারে নেমে গেছে।

গত বছর প্রথম ১১ মাসে পাকিস্তানে তুরস্কের রফতানি ছিলো ৪১৫ মিলিয়ন ডলার, যা গত এক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ। একই সময়ে পাকিস্তান থেকে আমদানি দাঁড়ায় ৩০৫ মিলিয়ন ডলার। এই প্রেক্ষাপটে পাকিস্তান ও তুরস্কের মধ্যে অর্থনৈতিক ও ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্ক শক্তিশালী করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

পাকিস্তানের ডিফেন্স প্রোডাকশন মিনিস্ট্রি ৩০টি টি১২৯ এ্যাটাক এন্ড ট্যাকটিক্যাল রেকনেইসেন্স হেলিকপ্টার কেনার জন্য টার্কিশ এরোস্পেস ইন্ডাস্ট্রি (টিএআই)’র সঙ্গে চুক্তি করেছে। এছাড়াও দুই পক্ষ লজিস্টিক, স্পেয়ার পার্স, প্রশিক্ষণ ও গোলাবারুদসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে চুক্তি করেছে। তাছাড়া পাকিস্তান নৌবাহিনীর জন্য তুরস্কের মিলিটারি ফ্যাক্টরিজ এন্ড শিপইয়ার্যস ম্যানেজমেন্ট ইনক (আসফাট) করভেট নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী চারটি মিলজেম আইল্যান্ড ক্লাস করভেটের দুটি নির্মাণ করা হবে তুরস্কে। বাকি দুটি পাকিস্তানে নির্মাণ করা হবে। পাকিস্তানের একটি সাবমেরিন আধুনিকায়নের দরপত্রে ফরাসি কোম্পানিকে হটিয়ে কাজ বাগিয়ে নেয় তুরস্কের এসটিএম ডিফেন্স টেকনলজিস ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ট্রেড ইনক। সাবমেরিনগুলো ফ্রান্সের  তৈরি। দ্বিতীয় আগোস্টা ৯০বি ক্লাস সাবমেরিন আধুনিকায়নের জন্যও এসটিএমকে বিবেচনা করা হচ্ছে। এসটিএম পাকিস্তান নৌবাহিনীর ফ্লিট ট্যাঙ্কার (পিএনএফটি) নির্মাণের কাজ সফলতার সঙ্গে শেষ করেছে। গত অক্টোবরে ট্যাঙ্কারটি পাকিস্তান নৌবাহিনীকে হস্তান্তর করা হয়। সম্প্রতি পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আধুনিকায়ন ও সামর্থ্য বৃদ্ধির মতো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের পর আগামী দিনগুলোতে দেশটিতে আরো নতুন প্রকল্প বাস্তবায়নর প্রস্তুতি নিচ্ছে তুরস্কের প্রতিরক্ষা শিল্প।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ