ঢাকা,মঙ্গলবার 8 January 2019, ২৫ পৌষ ১৪২৫, ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

৭ জানুয়ারিকে ফেলানী দিবস পালনের আহ্বান

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে ৭ জানুয়ারিকে ফেলানী দিবস পালন করার আহ্বান জানিয়েছে নাগরিক পরিষদ নামে একটি সংগঠন।
গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে তারা এ দাবি জানান। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, লেবার পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, নাগরিক পরিষদের সদস্য সচিব হিফজুর রহমান, দুর্নীতি প্রতিরোধ আন্দোলনের আহ্বায়ক মোঃ হারুন অর রশিদ খান, মানবাধিকার নেতা মঞ্জুর হোসেন ঈসা, প্রতিবাদী তারুণ্যের সভাপতি মাসুদ উজ জামান প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘২০১১ সালের৭ জানুয়ারি কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী থানার অনন্তপুর সীমান্তে নুরুল ইসলাম এর সামনে তার নিষ্পাপ কুমারী মেয়ে ফেলানীকে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ গুলী করে হত্যা করে। হত্যাকারী বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষের কোন বিচার হয়নি। বাংলাদেশও বিচার পায়নি। বিচার আর ক্ষতি পূরণের জন্য ঘুরছে ফেলানীর পরিবার।
বক্তারা বলেন, ‘মানবাধিকার ও সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত রিপোর্ট মতে ২০০ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বিএসএফ সীমান্তে দেড় হাজারের অধিক বাংলাদেশীকে হত্যা করেছে। বারবার ও সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঢুকে সাধারণ নাগরিকদের হত্যা নির্যাতন করে এবং ধরে নিয়ে যায়। ৭ জানুয়ারি বিশ্বব্যাপী সীমান্ত হত্যা বিরোধী ফেলানী দিবস পালন এবং বাংলাদেশ সরকার সীমান্ত হত্যা বিরোধী ৭ জানুয়ারি ফেলানী দিবস পালনে জাতিসংঘে প্রস্তাব আনার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন তারা।
এ সময় তারা কিছু দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হল- ৭ জানুয়ারি বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে ফেলানী দিবস পালন করুন, ফেলানীর পরিবারকে কমপক্ষে ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, ফেলানী হত্যাকারী বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষের ফাঁসি ও ফেলানী পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন বন্ধ করতে হবে, সীমান্ত হত্যা বন্ধ করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ