ঢাকা,মঙ্গলবার 8 January 2019, ২৫ পৌষ ১৪২৫, ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সিরাজগঞ্জ-৩ আসনে এমপি হলেন ডা.আব্দুল আজিজ

শাহজাহান তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) থেকে: একজন চিকিৎসক থেকে বিপুল ভোটে প্রতিদ্বন্ধী বিএনপি প্রার্থীকে পরাজিত করে সিরাজগঞ্জ-৩ (রায়গঞ্জ-তাড়াশ) আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেন ঢাকা শিশু হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে (৩০ ডিসেম্বর) তিনি ২ লাখ ৯৫ হাজার ৫১৭ ভোট পেয়ে বেসরকারী ভাবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী পেয়েছেন মাত্র ২৭ হাজার ২৪৮ ভোট। 
চলনবিলের তাড়াশ উপজেলার সগুনা ইউনিয়নের মাকরশোন গ্রামে জন্ম নেন ঢাকা শিশু হাসপাতালের পরিচালক ও প্রখ্যাত শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আব্দুল আজিজ। ছোটবেলা থেকে মেধাবী আব্দুল আজিজ এক সময়ের যোগাযোগ বিছিন্ন অবহেলিত চলনবিলের মানুষের চিকিৎসা সেবার ব্রত নিয়ে এমবিবিএস পাশ করে দেশের মানুষের চিকিৎসা সেবায় আত্মনিয়োগ করেন। চিকিৎসা পেশার পাশাপাশি পেশাজীবি সংগঠন বাংলাদেশ স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের ঢাকা শিশু হাসপাতালের সভাপতি নব নির্বাচিত সংসদ সদস্য ডা. আব্দুল আজিজ মূলত একজন আর্দশ চিকিৎসক হিসেবে এলাকায় ব্যাপকভাবে পরিচিত।
তাড়াশ উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি শায়লা পারভীন জানান, ডা. আব্দুল আজিজ এলাকার বিশেষ করে তাড়াশ-রায়গঞ্জসহ চলনবিলের শিশুদের চিকিৎসাসহ এলাকার দরিদ্র মানুষের ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে এলাকার মানুষের চিকিৎসার জন্য প্রায় প্রতি মাসেই ২-১টি করে চিকিৎসা ক্যাম্প করে বছরের পর বছর  চিকিৎসা দিয়ে আসছেন নিয়মিত এলাকার শিশু সহ সকল বয়সী মানুষের। তার চিকিৎসা সেবার প্রতিদান হিসেবেই কৃতজ্ঞ চিত্তে এলাকার মানুষ দল মত নির্বিশেষে তাকে বিপুল ভোট প্রদান করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করেছেন।
তিনি আরো বলেন, আর এলাকার যে সকল এলাকার লোকজন  চিকিৎসার জন্য ঢাকায় তার কাছে যান তাদের  বিনামুল্যে চিকিৎসা ও ওষুধপত্র দেবার পাশাপাশি থাকা খাওয়ার ব্যাবস্থাও তিনি করে দিয়েছেন বলেই এলাকায় আর্দশ চিকিৎসক হিসেবে তার হাজার হাজার ভক্তও রয়েছে । খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিনি গ্রামের বাড়িতে আসলেই এত রোগীর চিকিৎসা দিয়ে থাকেন যে এসময় খাবার দাবারের কথাও ভুলে যান তিনি । মূলতঃ  দল মত নির্বিশেষে এলাকার মানুষের চিকিৎসা সেবা দিতে তার মধ্যে বিরক্তি নেই কোন কালেই।
সিরাজগঞ্জ -৩ আসনের আ’লীগের নব নির্বাচিত সংসদ সদস্য  অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ বলেন, আমি একজন চিকিৎসক। তাই যে অবস্থাতেই থাকি রোগী আসলে সব ভুলে তার চিকিৎসা দেয়াটাকে আমি দায়িত্ব মনে করি। আর এতে আমি কখনো বিরক্ত না হয়ে সেবা দেয়াটাকে সব সময়ই গুরুত্ব দিয়ে থাকি। তিনি জানান চলনবিলের চিকিৎসা বঞ্চিত শিশুদের চিকিৎসার্থে তাড়াশে একটি  বিশেশায়িত শিশু হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার জন্য যা যা করা দরকার তা করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ