ঢাকা,মঙ্গলবার 8 January 2019, ২৫ পৌষ ১৪২৫, ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

বন্দরে ডকইয়ার্ডে চুরি

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা, ৫ জানুয়ারি : বন্দরে বি.আই. ডব্লিউ. টিসি ডকইয়ার্ডে চুরি করে পালিয়ে যাওয়ার সময় শামীম (২৬) নামে এক চোরকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে নিরাপত্তকর্মীরা।
 গত ৪ জানুয়ারী শুক্রবার রাতে বন্দর থানার সোনাচড়া বি.আই. ডব্লিউ. টিসি ডকইয়ার্ডে চুরি কালে তাকে হাতে নাতে আটক করা হয় ।
এ ব্যাপারে বি.আই. ডব্লিউ, টিসি নিরাপত্তা কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান খন্দকার বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ্য করে এবং ৩/৪ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ৪(১)১৯ ধারা- ৩৮০/৪১১ দঃবিঃ। 
আটককৃত চোর শামীম বন্দর থানার সোনাচড়া এলাকার আব্দুল খালেক মিয়ার ছেলে । এ ব্যাপারে নিরাপত্তা কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান জানান, গত শুক্রবার রাতে আটককৃত শামীমসহ একই এলাকার মৃত হাশেম ভান্ডারী ছেলে নূর আলম এ মৃত আব্দুল আউয়াল মিয়ার ছেলে শাহ আলম ও মৃত আক্কাস আলী মিয়ার ছেলে মাসুমসহ অজ্ঞাত ৩/৪ জন চোর ডকইয়ার্ড মেশিন সপের জানালার গ্লাস ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে ২০ কেজী মেটাল ডাষ্ট চুরি করে। ওই সময় ডকইয়ার্ডের নিরাপত্তাকর্মীরা চোরের উপস্থিতি টের পেয়ে  ধাওয়া করলে বাকি চোরের দল পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও চোর শামীম (২৬) নিরাপত্তাকর্মীদের হাতে আটক হয়। পরে আটকৃতকে বন্দর থানা পুলিশে সোর্পদ করা হয়। পুলিশ আটককৃত চোরকে চুরি মামলায় শনিবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করে।
এদিকে গত ৪ জানুয়ারী শুক্রবার গভীর রাতে বন্দর থানার ২৩ নং ওয়ার্ডস্থ একরামপুর ইস্পাহানী বড় মসজিদ এলাকায় এ চুরি ঘটনা ঘটে।
 অজ্ঞাত চোরের দল দোকানের ২টি তালা ভেঙ্গে ক্যাশ বাক্স থেকে নগদ ২১ হাজার টাকা ও ৩ লাখ টাকার মূল্যবান ঔষধপত্র চুরি করে নিয়ে যায়।
 এ ব্যাপারে সারোয়ার র্ফামেন্সি মালিক হাফেজ মাওলানা হাসান মুরাদ বাদী হয়ে ৫ জানুয়ারী শনিবার দুপুরে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
এ ব্যাপারে র্ফামেন্সি মালিক জানান, প্রতিদিনের মত শুক্রবার রাতে ঔষধ বিক্রি করে রাত সাড়ে ১০টায় বাড়িতে আসি। শনিবার সকালে দোকানে এসে দেখি দোকানের তালাভাঙ্গা। ভিতরে প্রবেশ করে দেখি ক্যাশ বাক্স খোলা ক্যাশে কোন টাকা নেই। দোকানের বিভিন্ন গ্রুপের প্রায় ৩ লাখ টাকা ওষুধ পত্র চুরি করে নিয়ে গেছে অজ্ঞাত চোরের দল। এ ব্যাপারে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ