ঢাকা, শুক্রবার 11 January 2019, ২৮ পৌষ ১৪২৫, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

৩০ তারিখের ভোট ২৯ তারিখে পুলিশ র‌্যাব বিজিবি দিয়ে হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গত ৩০ ডিসেম্বর নয় ২৯ ডিসেম্বর পুলিশ-র‌্যাব-বিজিবি দিয়ে হয়েছে বলে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) কাছে অভিযোগ করেছে বিএনপি। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের দুই সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে নির্বাচনে বিএনপির নারী প্রার্থীদের বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ সাংবাদিকদের এ কথা জানান। ইইউ প্রতিনিধিদের মধ্যে ছিলেন ড্যাভিড নয়েল এবং ইরিনি মারিয়া। 

শামা বলেন, ‘ইলেকশনের জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে আসা টেকনিক্যাল টিম গত দেড় মাস ধরে ঢাকায় আছে। ইলেকশন প্রসেস নিয়ে তারা কাজ করেছে, বিভিন্ন জায়গায় গিয়েছে। ওনারা বিশেষ করে আমরা যারা নারীরা বিএনপি থেকে নির্বাচন করেছিলাম তাদের সঙ্গে কিছু কথা বলতে চেয়েছেন। নির্বাচনের ব্যাপারে আমাদের ক্যান্ডিডেটদের এক্সপেরিয়েন্সটা কী, নির্বাচনে কী ঘটেছে- সেগুলো নিয়ে কথা বলতে চাচ্ছিলেন। ওনারা এসেছিলেন এবং আমাদের অনেক নারী প্রার্থী এখানে আসতে পারেননি, যদিও তাদের অনেকের সঙ্গে কথা বলেছেন ওনারা- নির্বাচনে কী ঘটনা ঘটেছে ওগুলো নিয়ে।

আপনারা কী বললেন- জানতে চাইলে শামা বলেন, যেগুলো আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় এসেছে, জাতীয়ভাবে প্রকাশিত হয়েছে এবং তারা নিজেরা বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে ঢাকায় ৩০ তারিখে যেগুলো জানতে পেরেছেন, সেটা আমাদের চেয়ে তারা বেশি জানেন। আমরা তাদের যেটা বললাম, ৩০ তারিখে নির্বাচন হয়নি। যেমন আমি ফরিদপুরে নির্বাচন করেছি, আমাদের এলাকায় ২৯ তারিখে নির্বাচন হয়ে যায় এবং পুলিশ র‌্যাব, বিজিবি দিয়ে নির্বাচন হয়ে যায়। নির্বাচনের দিন সব এজেন্টকে বের করে দেয়া হয় এবং মূলত ৩০ তারিখের নির্বাচনটা ২৯ তারিখে সরকার করেছে। সেটা তারা জানে এবং বিভিন্ন তথ্য তারা নিয়েছে।

তিনি বলেন, কেন্দ্রভিত্তিক যে রেজাল্টগুলো হয়েছে, ওগুলো নিয়ে কথা হয়েছে। আমাদের যে গ্রেফতারগুলো হয়েছে গত একমাস ধরে প্রত্যেকটি নির্বাচনী এলাকায়, অনেকে আহত হয়েছেন, অনেকে নিহত হয়েছেন, সেসব তথ্য নিয়ে তারা কথা বলেছেন। তাদের জিজ্ঞাসা ছিল- আমরা নারী প্রার্থী হিসেবে কী ফেস করেছি, আমরা সেই প্রশ্নগুলোর জবাব দেয়ার চেষ্টা করেছি।

তারা কোনও মতামত দিয়েছেন কি না নির্বাচন নিয়ে- এমন প্রশ্নের জবাবে শামা সাংবাদিকদের বলেন, ‘তারা তথ্য কালেক্ট করছেন, এগুলো নিয়ে রিপোর্ট করবেন। তারপর তারা কোনও স্টেটমেন্ট করবেন। আমরা নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে যাব, আপিল করব- সেগুলো নিয়ে কথা হয়েছে।

ইইউ প্রতিনিধি দল নির্বাচন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কি না- জানতে চাইলে শামা বলেন, ‘তারা অত্যন্ত উদ্বিগ্ন, তারা নির্বাচন প্রসেস নিয়ে উদ্বিগ্ন। তারা যেহেতু ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিত্ব করছেন। তারাতো ওভাবে কথা বলতে পারেন না। কিন্তু তারা অবশ্যই উদ্বিগ্ন। তারা ৩০০ আসনের তথ্য কালেক্ট করছেন। রিপোর্ট বানানোর আগে হয়ত কিছু বলবেন না। রিপোর্ট বানিয়ে তাদের মতামতটা তারা পরে প্রকাশ করবেন। এ সময় বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে রুমানা মাহমুদ, জেবা আমিন খান উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ