ঢাকা, বৃহস্পতিবার 17 January 2019, ৪ মাঘ ১৪২৫, ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

শাহনাজের স্কুটি ‘সিনেমার মতো’ উদ্ধার করে দিল পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার : চুরি যাওয়ার ১০ ঘণ্টার মধ্যেই শাহনাজ আক্তারের  মোটর সাইকেল (স্কুটি) উদ্ধার করে দিয়েছে পুলিশ, যা ‘সিনেমার মতো’ মনে হচ্ছে এই রাইডারের কাছে। মঙ্গলবার বিকালে ঢাকার মানিক মিয়া এভিনিউ থেকে এই নারীর জীবিকার মাধ্যম স্কুটিটি প্রতারণা করে হাতিয়ে নিয়েছিলেন জোবায়দুল ইসলাম জনি (২৭) নামে এক যুবক। রাতেই তা উদ্ধার করে আনে পুলিশ।
ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার গতকাল বুধবার তার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “১০ ঘণ্টার মধ্যে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার বাসা থেকে জনিকে গ্রেপ্তার এবং মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করা হয়।”
জীবিকা নির্বাহের জন্য পেশা হিসেবে স্কুটি চালনা বেছে নিয়েছেন ৩০ বছর বয়সী শাহনাজ আক্তার পুতুল। পেশার সূত্র ধরেই আরেক রাইডার জনির সঙ্গে তার পরিচয়।
পুলিশ কর্মকর্তা বিপ্লব বলেন, “পরিচয়ের সূত্র ধরে পুতুলকে ভাল চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দেয় জনি। এরই এক পর্যায়ে মঙ্গলবার জনি তাকে বিমানবন্দর এলাকায় নিয়ে যায়। সেখান থেকে বিকাল ৫টার দিকে সংসদ ভবন এলাকার সামনে আসে। এখানে রাস্তার পাশে টং দোকানে তারা চা পান করে। এরপর চাবি নিয়ে স্কুটি চালিয়ে দেখার কথা বলে জনি পালিয়ে গেলে শাহনাজ মামলা করেন শেরেবাংলা নগর থানায়।
উপকমিশনার বিপ্লব বলেন, “তখন পুলিশ অভিযানে নামে। মোবাইল প্রযুক্তি ব্যবহার করে ১০ ঘণ্টার মধ্যে ভোররাতে তাকে (জনি) গ্রেপ্তার করা হয়।” আটক জনিকে ‘প্রতারক’ উল্লেখ করে তার বিরুদ্ধে অন্য কোনো অভিযোগ আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।
স্কুটি ফিরে পেয়ে নারী রাইডার শাহনাজ সাংবাদিকদের বলেন, কোনো চাকরি না পাওয়ার কারণে এই ‘স্বাধীন পেশা’ বেছে নিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার বিকালে স্কুটি হারানোর ১০ ঘণ্টা পরেই রোজগারের মাধ্যম এই বাহনটি ফিরে পেয়ে পুলিশের এমন দ্রুত পদক্ষেপে অভিভূত হন তিনি।
পুলিশ সদস্যদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, “পেশাদারিত্বের সাথে যে কাজটি পুলিশ করেছে তা প্রশংসনীয়। রীতিমতো কমান্ডোর মতো, সিনেমার গল্পের মতো।”
জনি ২ দিনের রিমান্ডে : স্কুটি ছিনতাইয়ের মামলার আসামী জুবায়দুল ইসলাম জনির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলাম শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এর আগে এদিন দুপুরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শেরে বাংলা নগর থানার উপ-পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম খান আদালতে আসামীকে সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক আসামির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এর আগে স্কুটি ছিনতাইয়ের অভিযোগে জনিকে আসামি করে শেরে বাংলা নগর থানায় শাহানাজ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।
মামলার এজাহারে উল্লেখ, গত ১০ জানুয়ারি মিরপুরের শ্যামলী এলাকায় জনির সঙ্গে আমার পরিচয় হয়। এসময় সে নিজেকে পাঠাও চালক বলে পরিচয় দেয়। সে আমার জন্য একটি স্থায়ী চাকরির ব্যবস্থা করে দিতে পারবে বলেও জানায়। আমি তার কথায় কিছুটা আশ্বস্ত হয়ে চাকরি পাওয়ার জন্য তাকে অনুরোধ করি। এর জন্য ১৫ জানুয়ারি দুপুর ১২টার সময় জনি আমাকে খামার বাড়িতে আসতে বলে। তার কথামতো স্কুটি নিয়ে যথাসময় সময় সেখানে এসে তার সঙ্গে দেখা করি। এরপর হঠাৎ সে আমার স্কুটিতে উঠে বসে এবং আমাকে নিয়ে বিমানবন্দর এলাকাসহ রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ঘোরাঘুরির পর পুনরায় মানিক মিয়া এভিনিউয়ে আসে। এখানে রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে এসে একটি টং দোকানে জনিকে নিয়ে চা খাচ্ছিলাম আমি। এমন সময় সে কৌশলে আমার স্কুটি ছিনতাই করে নিয়ে যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ