ঢাকা, শনিবার 19 January 2019, ৬ মাঘ ১৪২৫, ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

খুলনায় চাকরি দেয়ার নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

খুলনা অফিস : তারেক আকিজ খান (৪০) নিজেকে কখনও ডিবি অফিসার আবার কখনও সিকিউরিটি কোম্পানির এজেন্ট ও প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা। সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে কন্ট্রাক সার্ভিসের মাধ্যমে চাকরি পাইয়ে দেয়ার জন্য ভুয়া অফিস খুলে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। সম্প্রতি সোনাডাঙ্গা এলাকার খান ফয়সাল ও দিঘলিয়ার কামরুল মোড়ল নামের দুই ব্যক্তিকে চাকুরি দেয়ার নামে তিন লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিলে বিষয়টি নতুন করে সামনে আসে। তারেক আজিক খান চেক ডিজনার ও প্রতারণা মামলায় একাধিকবার হাজত খাটলে তাকে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ-এর আহ্বায়কের পদ থেকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় কমিটি।
ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, নগরীর খানজাহান আলী রোডে মর্ডান ফার্নিচার সংলগ্ন এলাকায় মাছরাঙ্গা সিকিউরিটি কোম্পানি নামে একটি অফিস চালু করে রূপসা যুগীহাটি গ্রামের কবীরের মোড় এলাকার বাসিন্দা শহীদ আলী খান-এর ছেলে তারেক আকিজ খান। এই কোম্পানির মাধ্যমে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে কন্ট্রাক সার্ভিসের মাধ্যমে চাকরি দেয়ার কথা বলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। সম্প্রতি সোনাডাঙ্গা এলাকার ফয়সাল খান ও দিঘলিয়ার কামরুল মোড়লকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অফিস সহকারী পদে চাকরি দেয়ার কথা বলে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা নেয়। এরপর কয়েক দফা তারিখ পেছানোর পর একটি ভুয়া নিয়োগপত্র দেয়। ফয়সাল নিয়োগপত্র নিয়ে যথাসময় কর্মস্থলে গিয়ে জানতে পারে নিয়োগ পত্রটি ভুয়া ও তারেক আকিজ সিকিউরিটি কোম্পানির কোন এজেন্ট না এবং সে যে অফিসটি ব্যবহার করে সেটি কোম্পানির অফিস না ব্যক্তিগত।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নগরীর মো. সুপ্ত, শেখ সাদী, কামরুল মোড়ল, মো. উজ্জ্বল, মো. সুমন, বেগ আমীন, তন্ময়, মো. আলমগীর ও ইমরানসহ অনেকের সাথেই চাকুরি দেয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় সে। এদিকে মাছরাঙ্গা সিকিউরিটি কোম্পানির নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন মানুষের সাথে প্রতারণা করায় কোম্পানির পক্ষ থেকে গত ৩ অক্টোবর তারেক আকিজের বিরুদ্ধে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়। এদিকে প্রতারণার বিভিন্ন অভিযোগের পর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ জেলা কমিটি থেকে তাকে বহিষ্কার করে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি।
অভিযোগের বিষয় অভিযুক্ত তারেক আকিজ খান বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ মিথ্যা। বিএনপি-জামায়াতের লোক এরা। এদের কাছে আমি আরও উল্টো অনেক টাকা পাবো। আমার কাছে এদের দেয়া চেকও আছে। আমার সম্মান নষ্ট করতে চক্রান্ত করছে এরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ