ঢাকা, শনিবার 23 February 2019, ১১ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

'সিরিয়ায় ইরানি লক্ষ্যেবস্তুতে হামলা ইসরায়েলের

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

ইসরায়েলের সেনাবাহিনী জানিয়েছে যে তারা সিরিয়ার ইরানি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করা শুরু করেছে, তবে সেসব হামলা প্রতিহত করার দাবী করেছে সিরিয় সেনারা।বিবিসি সহ  সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম ও রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ খবর দিয়েছে।

ইসরায়েল ডিফেন্স ফোর্সেস (আইডিএফ) জানিয়েছে তারা কুদস বাহিনী - যারা ইরানিয়ান রেভুলশনারি গার্ডের এলিট ফোর্স - তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে বিস্তারিত না জানা গেলেও সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে সোমবার সকালে হামলার খবর পাওয়া গেছে।

রোববার আইডিএফ জানিয়েছে, গোলান হাইটসের ওপর একটি রকেটের পথরোধ করেছে তারা।

সোমবার সকালে এক টুইটের মাধ্যমে এই অভিযানের খবর প্রকাশ করে আইডিএফ।

যুক্তরাজ্য ভিত্তিক সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, ইসরায়েলি রকেট 'রাজধানী দামেস্কের নিকটবর্তী' স্থানে আক্রমণ করছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা দামেস্কে ব্যাপক বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে বলে জানান।

তবে সিরিয়ার একটি সামিরক সূত্র রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সানাকে বলেছে, “আমাদের বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ইসরাইলের একটি আগ্রাসন নস্যাৎ করে দিয়েছে এবং সব  রকমের লক্ষ্য পূরণে বাধা দিয়েছে।”  

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক টুইটার পোস্টে বলেছে, দামেস্ক বিমানবন্দরের কাছে সিরিয়ার সামরিক বাহিনী ইসরাইলের সাতটি ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করেছে। তবে কোনো হতাহেতর ঘটনা ঘটে নি এবং বিমানবন্দরেরও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয় নি। বিষয়টি নিয়ে ইসরাইলের সামরিক মুখপাত্র কোনো মন্তব্য করতে রাজি হন নি।

ইসরায়েলিদের ভাষ্য অনুযায়ী 'গোলান হাইটসের উত্তরাঞ্চলে রকেট হামলা করা হলে তা প্রতিহত করে আয়রন ডোম এরিয়াল ডিফেন্স সিস্টেম'; আর এর পরেই সিরিয়ায় অভিযান শুরু হয়।

গোলান হাইটসের জনপ্রিয় শীতকালীন পর্যটন কেন্দ্র মাউন্ট হেরমন সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এর কারণে।

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনয়ামিন নেতানিয়াহু রবিবার চাদ সফরের সময় একটি সতর্কবার্তা জারি করেন; তিনি বলেন, "আমাদের একটি নির্দিষ্ট নীতি রয়েছে, সেটি হলো সিরিয়ায় ইরানি স্থাপনায় আঘাত করা এবং যারা আমাদের ক্ষতি করার চেষ্টা করেছে তাদের ক্ষতি করা।"

সিরিয়ার অভ্যন্তরে আক্রমণ চালানোর বিষয়টি কদাচিৎ স্বীকার করে ইসরায়েল।

তবে ২০১৮ সালের মে মাসে সিরিয়ার অভ্যন্তরের প্রায় সবকটি সেনাঘাঁটিতে আঘাত করার দাবি করেছিল ইসরায়েল।

ইহুদিবাদী ইসরাইল গত কয়েক বছর ধরে মাঝেমধ্যেই সিরিয়ার ওপর বিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে আসছে। সিরিয়া যে উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে সে লড়াই বানচাল করার জন্য ইসরাইল এসব হামলা চালিয়ে আসছে। যারা উগ্র সন্ত্রাসীদেরকে অর্থ, অস্ত্র ও সামরিক সহযোগিতা দিচ্ছে তার মধ্যে ইসরাইলও রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ