ঢাকা, বুধবার 23 January 2019, ১০ মাঘ ১৪২৫, ১৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

শ্রীনগরে সড়ক ও খাল ইট ভাটার মালিকদের দখলে

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ): সড়ক ও জনপদের খালের মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে ইট ভাটার মালিকরা

শ্রীনগর(মুন্সীগঞ্জ) সংবাদদাতা, ২০ জানুয়ারি: মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে উপজেলার সড়ক ও জনপদের খাল দখলে। নিজের ফসলি জমির আর সড়ক ও জনপদের খালের মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে ইটভাটা মালিকেরা। এতে সড়ক ও জনপদের খালের সর্বনাশ হচ্ছে। আর ফসল উৎপাদন কম হওয়ায় ভয়াবহ বিপর্যয় ঘটছে পরিবেশের। আর কৃষকেরা ফ্রিতে পুকুর উপহার পাচ্ছে। ফলে এলাকায় কমছে আবাদি জমির পরিমাণ। কৃষিজমির মাটি ইটভাটায় ব্যবহার নিষিদ্ধ হলেও কার্যকরী ব্যবস্থা না নেয়ায় সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে দায়ী করেছেন এলাকার ভুক্তভোগী সচেতন লোকজন। অধিকাংশ ইটভাটা সিরাজদিখান উপজেলায় এলাকায় অবস্থিত। পাওয়ার র্টিলার ও ট্রাক্টরে করে ইটভাটায় মাটি কেটে নিয়ে যাওয়ার ফলে কোটি কোটি টাকার নির্মিত পাকা সড়কগুলো ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। একটু বৃষ্টি হলেই কাঁদা পানিতে সড়কগুলো পিচ্ছিল হয়ে যায়। দুর্ঘটনায় পতিত হয় অনেক যানবাহন। শিশুসহ আহত নিহতের ঘটনাও ঘটেছে অনেক। জমির মাটি কেটে ট্রাক্টরে করে পরিবহনের কারণে পাকা সড়কগুলোতে কারপেটিং ওঠে গেছে, নানা খানাখন্দক, ছোটবড় গর্ত হয়ে এবং ভেঙে পাশ ধসে গেছে। ইটভাটায় ব্যবহৃত যানবাহনগুলোর উপর্যুপরি চলাচলে আশপাশের বাড়িঘরগুলো নোংরা ধুলাবালিতে আচ্ছাদিত হয়ে যেন ভূতের এলাকায় পরিণত হয়। এতে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। কমছে না ভোগান্তি। বিভিন্নভাবে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে এবং লোভ দেখিয়ে কৃষকদের বোকা বানিয়ে কৃষিজমিতে মাটি কেটে পুকুর খননে প্ররোচিত করা হচ্ছে। ইটভাটা মালিক ও এক শ্রেণীর দালালচক্র কৃষকদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে এসব করছে। ইটভাটার কারণে এলাকার আম, লিচু, নারকেলসহ বিভিন্ন গাছে ফল ধরছে না, ধরলেও তা কমে অবস্থা বিরাজ করছে। ইটভাটাগুলো নিয়ন্ত্রণে রাখতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের উদ্যোগ নেই। এব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসার নিগার সুলতানা বলেন, আমি ঘটনা স্থালে গিয়ে ছিলাম, এটা আমাদের আন্ডারে নয়। এটা হলো সড়ক ও জনপদের। এ ব্যাপারে শ্রীনগর সড়ক ও জনপদ উপ-সহকারী প্রকৌশলী মুহাম্মদ সালাহ্ উদ্দিন জানান, আমরা প্রতিনিধি পাটাইতেছি। দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ