ঢাকা, শুক্রবার 01 February 2019, ১৯ মাঘ ১৪২৫, ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

৬ ফেব্রুয়ারি কালোব্যাজ ধারণ এবং ২৪ ফেব্রুয়ারি  প্রার্থী ও ভুক্তভোগীদের নিয়ে গণশুনানি

 

# গণফোরামের দুই এমপি শপথ নিবেন না ----- ড. কামাল

 # চা-চক্র প্রহসন ছাড়া কিছুই না ---- মির্জা ফখরুল 

 

স্টাফ রিপোর্টার : ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে ভোট ডাকাতির প্রতিবাদে আগামি ৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে কালো ব্যাজধারণ এবং ২৪ ফেব্রুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থী ও ভুক্তভোগীদের নিয়ে গণশুনানি করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। 

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর মতিঝিলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে ঘণ্টাব্যাপী স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ঘণ্টাব্যাপী স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক শেষে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। কর্মসূচি ঘোষণা করেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর আগে বিকেলে সাড়ে ৪টায় স্টিয়ারিং কমিটির এ বৈঠক শুরু হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, অবৈধ সংসদের প্রতিবাদে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে কালো ব্যাজ ধারণ কর্মসূচি পালন করা হবে। ওইদিন বিকেলে এক ঘণ্টা জোটের শীর্ষ নেতারা কালো ব্যাজ ধারণ করে অবস্থান নেবেন। আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থী ও ভুক্তভোগীদের নিয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হবে। তবে গণশুনানির স্থান এখনো ঠিক হয়নি। 

গণফোরামের দুই সংসদ সদস্য শপথ নেবে কি-না, এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এটার ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারব না। এটা গণফোরামের বিষয়।

এ সময় ড. কামাল হোসেন বলেন, আমরা আগেই দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে বলে দিয়েছি, আমাদের কেউ শপথ নেবেন না। সুতরাং এ ব্যাপারে নতুন করে কিছু বলার নেই। মির্জা ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আলোচনায় সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, নির্বাচনের পরে আমাদের হাজার হাজার নেতাকর্মী কারাগারে রয়েছেন। আহত, নিহত হয়েছেন অনেকে। এমনকি প্রার্থীরাও আহত হয়েছেন। 

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ২ ফেব্রুয়ারি বিকেল সাড়ে তিনটায় গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের। নেতাদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও চা-চক্রে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে অংশ নেওয়া দল ও জোটের নেতাদেরও আমন্ত্রণ জানানো হয়। শুরু থেকেই জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা বলে আসছিলেন যে, তারা এতে অংশ নেবেন না।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠিতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ইকবাল সিদ্দিকী, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, জগলুল হায়দার আফ্রিক, রেজা কিবরিয়া প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ