ঢাকা, মঙ্গলবার 05 February 2019, ২৩ মাঘ ১৪২৫, ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রিহ্যাবের ৫ দিনব্যাপী আবাসন মেলা শুরু আগামীকাল

গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে রিহ্যাব মেলা উপলক্ষে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন রিহ্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট (প্রথম) লিয়াকত আলী ভূঁইয়া -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : আগামীকাল বুধবার রাজধানীতে শুরু হতে যাচ্ছে আবাসন খাতের সবচেয়ে বড় মেলা ‘রিহ্যাব ফেয়ার-২০১৯’। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) শুরু হতে যাওয়া ৫ দিনব্যাপী এই মেলা শেষ হবে আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি।
গতকাল সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে মেলা আয়োজনের এসব তথ্য তুলে ধরা হয়। এবারের মেলায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ২০২টি স্টল থাকছে। আর অংশ নেবে ২০টি বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালস ও ১৪টি অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠান। আবাসন খাতে ব্যবসায়ীদের সংগঠন রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব) এই মেলার আয়োজন করছে। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রিহ্যাবের ভাইস-প্রেসিডেন্ট (প্রথম) লিয়াকত আলী ভূঁইয়া। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন রিহ্যাবের পরিচালক শাকিল কামাল চৌধুরী, ভাইস- প্রেসিডেন্ট (দ্বিতীয়) আনোয়ারুজ্জামান ও ভাইস- প্রেসিডেন্ট (তৃতীয়) কামাল মাহমুদ।
আয়োজকরা জানান, এবারে মেলা উদ্বোধন করবেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। ওই অনুষ্ঠানে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াও উপস্থিত থাকবেন। সকালের উদ্বোধন শেষে দুপুর দুইটা থেকে দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে মেলা প্রাঙ্গণ।
বাকি দিনগুলোতে সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীরা মেলায় প্রবেশ করতে পারবেন। মেলায় সিঙ্গেল টিকিটের প্রবেশ মূল্য ৫০ টাকা ও মাল্টিপল এন্ট্রি টিকিটের মূল্য ১০০ টাকা। মাল্টিপল এন্ট্রি টিকেট দিয়ে দর্শনার্থীরা মেলায় ৫ বার প্রবেশ করতে পারবেন। আর এন্ট্রি টিকিটের প্রাপ্ত অর্থ দুঃস্থদের সাহায্যার্থে ব্যয় করা হবে।
লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বর্তমান সরকার সরকারি চাকুরিজীবীদের জন্য ভর্তুকি দিয়ে ৫ শতাংশ সুদে গৃহঋণ চালুর পর এ খাত স্থবিরতা থেকে বেরিয়ে আসার ক্ষেত্রে আশার আলো দেখা যাচ্ছে। তবে এখনও উচ্চ নিবন্ধন ব্যয়, সব নাগরিকের জন্য দীর্ঘমেয়দী ঋণের ব্যবস্থা না থাকা এবং ব্যাংক ঋণের উচ্চ হার এই খাতের বড় প্রতিবন্ধকতা। জাতীয় প্রবৃদ্ধিতে প্রায় ১৫ শতাংশ ভূমিকা রাখা আবাসন শিল্পে রেজিস্ট্রেশন ব্যয় কমিয়ে ৬ থেকে ৭ শতাংশে নিয়ে আসলে এ খাত অর্থনীতিতে আরও অবদান রাখতে পারবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
এক প্রশ্নের উত্তরে আয়োজকরা জানান, আবাসন খাতে যারা ব্যবসা করে তাদের রিহ্যাবের সদস্য হওয়া বাধ্যতামূলক করে সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। তবে রিহ্যাব তো আর পুলিশ নয়, যারা সদস্য হবে না তাদের ধরে নিয়ে আসা যাবে না। যারা সঠিক কাগজপত্র দিয়ে আবেদন করবে, তাদের রিহ্যাবের সদস্য করা হবে।
অন্য এক প্রশ্নের উত্তরে রিহ্যাব নেতারা বলেন, ‘গত বছরের মেলায় ৯০০ থেকে ৯৫০ কোটি টাকার বুকিং পাওয়া যায়। বেচাকেনার পরিমাণ হয়তো হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছিল। নতুন সরকার আসায় এবারও ফ্ল্যাট বা প্লট বুকিংয়ের ক্ষেত্রে রিহ্যাব আশাবাদী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ