ঢাকা, মঙ্গলবার 05 February 2019, ২৩ মাঘ ১৪২৫, ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ছড়া/কবিতা

ছোট্ট মেয়ে
-মারইয়াম জামিলা হাফসা

রিনিঝিনি বাজিয়ে চুড়ি, আলতা রাঙা পায়
গাঁও গেরামের শোভা দেখে অবাক চোখে চায়।
বেজায় খুশি, চঞ্চলা মন ছোট্ট মেয়েটির
মনের কোণে করছে খেলা কৌতুহলের ভীড়।
আকাশ-পাতাল-সাগর নদী জানবে অনেক কিছু
সাদা মেঘের পাল কোথায় যায়, নেবে তাহার পিছু।
মেঘের কোলে বিহগ উড়ে মেলে তাদের ডানা
দূর দেশেতে দিচ্ছে পাড়ি, করছে না কেউ মানা।

রং বেরংয়ের প্রজাপতি ধরবে ছুটে রোজ
প্রতিদিন ভর দুপুরে দিবে চড়ুই ভোজ।
সন্ধেবেলা বাঁশের ঝাড়ে জোনাক নেভে জ্বলে
দেখতে পেয়ে ধরতে জোনাক দৌড়ে ছুটে চলে।
রাত্রিবেলা চাঁদের থেকে উপচে আলো পড়ে
উঠোনকোণে চুপটি বসে দু’হাত মেলে ধরে।

ছোট্ট মেয়ে নরম গালে মাখছে চাঁদের আলো
চাঁদের মত রূপ হবে তার বলবে না কেউ কালো!
ছোট্ট মেয়ের কাণ্ড দেখে যখন সবাই হাসে
অমনি হঠাৎ মুখখানা তার চোখের জ্বলে ভাসে।



সুদূরের পানে
-কানিজ ফাতেমা

সাদা-কালো মেঘ ভেসে যায়
              ঐ সুদূরের পানে
আমি চেয়ে থাকি বিমুগ্ধ চিত্তে
                 অম্লান বদনে।
তারায় তারায় আলোর লুটোপুটি
তারই মাঝে যেন কারই হাতছানি।
তুমি কিগো ডাক প্রভু
                 তারার রাজ্যে বসে
মন-প্রাণ আকুল হয়ে যায়
                 তোমারই আলে।
কতনা সুন্দর এই ধরিত্রী
না জানি তুমি আরও কত সুন্দর।
                  হে দয়াময়,
সৃষ্টি করেছো এই অনুপম পৃথিবী
পাঠিয়েছো শ্রেষ্ঠ মানব সন্তানেরে
অনাবিল প্রশান্তিতে মন ভরে যায়
যখন ভাবি তুমি আছ মোর সাথে,
নাই কেহ নাই তোমার সমান
তুমি আছো থাকবে চিরদিন
                ইহকাল আর পরকালে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ