ঢাকা, শনিবার 09 February 2019, ২৭ মাঘ ১৪২৫, ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

বাসাসপ কাব্যরত্ন ২০১৮ মনোনীত কবি আল মুজাহিদী সম্মাননা পাচ্ছেন দেশ-বিদেশের ১৭ গুণীজন

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিবার (বাসাসপ)’র তৃতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সম্মেলন ও গুণীজন সম্মাননা প্রদান উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, সাহিত্যচর্চা প্রকৃত মানুষ হওয়ার পথনির্দেশক। সাহিত্য মানুষকে প্রতিনিয়ত ভালো কিছু সৃষ্টির উন্মাদনায় জাগায়। এরই ধারাবহিকতায় কবিরা নতুন ছন্দের মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলে অন্তরের বিকশিত রূপ। এসব সাহিত্য ও কবিতাপ্রেমীরা কখনো খারাপ কাজের দিকে মনোনিবেশ করেন না। তাই  তো বর্তমানে অনেক উদীয়মান তরুণ সাহিত্যচর্চাকে ভালোবেসে কবিতা  লেখার মাধ্যমে সমাজ ও দেশের ভালোমন্দ তুলে ধরছেন।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের ৩য় তলাস্থ ‘মওলানা মোহাম্মদ আকরম খাঁ’ হলে মূল ধারার সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিবার (বাসাসপ)’ এর ‘৩য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সম্মেলন ও গুণীজন সম্মাননা’ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় ।
উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলা সাহিত্যে অসামান্য অবদানের জন্য ‘বাসাসপ কাব্যরত্ন-২০১৮’ মনোনীত কবি আল মুজাহিদী এবং বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিভিন্ন শাখায় অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ এপার-ওপার দুই বাংলার নির্বাচিত ১৭ জন গুণী ব্যক্তিকে ‘বাসাসপ সম্মাননা-২০১৮’ প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে ‘বাসাসপ’ এর কেন্দ্রীয় প্রধান সমন্বয়ক কবি ও কথাশিল্পী মুহাম্মদ ইয়াকুব সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মৃত্তিকার কবি আল মুজাহিদী, আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খ্যাতিমান চিকিৎসক ও সাহিত্যানুরাগী অধ্যাপক ডাঃ হাসিনা বানু, গীতিকবি শহীদুল্লাহ ফরায়েজী, কবি ও কথাশিল্পী মুজতাহিদ ফারুকী, কবি ও গবেষক মাহমুদুল হাসান নিজামী, কবি ও সাংবাদিক হারুণ আল নাসিফ, কবি জাকির আবু জাফর, কবি ও অভিনেতা এবিএম সোহেল রশীদ, কবি ও ছড়াকার আতিক হেলাল, ’বাসাসপ’ উপদেষ্টা ড. ইয়াহ্ইয়া মান্নান ও কবি শাহ মোহাম্মদ নিয়ামত উল্লাহ। ।
উল্লেখ্য, অধীক কর্মতৎপরতার জন্য ‘বাসাসপ সংগঠন সম্মাননা-২০১৮’ এর জন্য মনোনীত হয়েছে কবি রোকসানা সুখী নেতৃত্বাধীন সাহিত্য সংগঠন ‘স্বপ্নকথা সাহিত্য পরিষদ (স্বসাপ)’। বাসাসপ সম্মাননার জন্য নির্বাচিত ব্যক্তিবর্গ হলেন, গবেষণায়- কবি ও গবেষক ড. এস এ মুতাকাব্বির মাসুদ (বিধ্বস্ত নীলিমা : কল্পনার বিমূর্ত অস্তিত্ব ও শামসুর রাহমান) এবং কবি ও গবেষক কমরুদ্দিন আহমদ (আল মাহমুদ : কবি ও কথাশিল্পী), সমাজসেবা ও সুশিক্ষার বিস্তারে লায়ন ওসমান সরওয়ার, মফস্বল সাংবাদিকতায় সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করায় সাংবাদিক আরফাত হোসেন বিপ্লব, প্রবন্ধে সাকী মাহবুব (মনীষীদের বইয়ের নেশা), কবিতায়- কবি মাঈন উদ্দিন জাহেদ (নিখিলেশ কেমন আছো), কবি শাহনাজ খান (অব্যক্ত কথা), এবং কবি তাজ ইসলাম (আরো কিছু কান্নার খবর) শিশুতোষ ছড়ায় কবি ও ছড়াকার খন্দকার খাদিজা আন্ জুমান (সবুজ উপশহর), শিশুতোষ ছোটগল্পে কবি ও কথাশিল্পী শেখ বিপ্লব হোসেন (ফুল পাখিদের কলরব), ছোটগল্পে কবি ও গল্পকার লায়লা ফাতেমা সুমী (আকাশীর কথা), উপন্যাসে বিদ্যুৎ রঞ্জন দেবনাথ (বিদায় সন্ধ্যাবেলা)। এবং পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা ও আসামের কবি দিলীপ দাশ, কবি শংকর ব্রহ্ম, কবি প্রবীর কুমার চৌধুরী, কবি অজেয় চক্রবর্তী এবং কবি জন্মেঞ্জয় ঘোড়াই।
বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিবার (বাসাসপ)" বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠাকালীন সংগঠনটির নাম ছিলো "বাংলা কাব্য পরিবার"। পরবর্তীতে কাব্য পরিবর্তন করে সংগঠনটি রূপান্তরিত হয় "বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিবার (বাসাসপ)" নামে। এপ্রিল ২০১৭ মাসে বাসাসপ প্রবর্তন করে বাংলা সাহিত্যে অবদানের জন্য স্বীকৃতি পদক "কাব্যরত্ন, সাহিত্যরত্ন ও সংস্কৃতিরত্ন"। ১০১৬ সালে কাব্যে অবদানের জন্য "মরহুম ওমর ফারুক সম্মাননা স্মারক কাব্যরত্ন-২০১৬" প্রদান করা হয়; কবি আসাদ বিন হাফিজ ও কবি মাহমুদুল হাসান নিজামীকে।
 যার স্বত্বাধিকারী দেশবরেণ্য চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. হাসিনা বানু ও তার পরিবার (অধ্যাপক ডা. হাসিনা বানুর স্বামী মরহম ওমর ফারুক), ২০১৭ সালে কাব্যরতœ পদক প্রাপ্ত হয়েছেনঃ আধুনিক বাংলা সাহিত্যের প্রধান কবি আল মাহমুদ ,২০১৮ সালে কাব্যরতœ পদক প্রাপ্ত হয়েছেনঃ মৃত্তিকার কবি আল মুজাহিদী

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ