ঢাকা, বুধবার 13 February 2019, ১ ফাল্গুন ১৪২৫, ৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এ বছর হজ্বের ব্যয় বাড়েনি -ধর্মমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকৃত হিসাবে এবছর হজ্বের ব্যয় বাড়েনি বলে দাবি করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ। তিনি বলেছেন, ‘অন্য বছরের স্বাভাবিক ব্যয়বৃদ্ধির তুলনায় এবছর হজে¦র ব্যয় বাড়েনি, বরং কমেছে।’গতকাল মঙ্গলবার ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি একথা বলেন। ব্রিফিংয়ে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আনিছুর রহমানসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বলেন, ‘গত বছর প্যাকেজ-১ এর হজ্বযাত্রীদের জন্য সব মিলিয়ে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছিল তিন লাখ ৯৭ হাজার ৯২৯ টাকা। এবছর হজ্বযাত্রীদের বিমান ভাড়া প্রস্তাব করা হয়েছিল একলাখ ৪৮ হাজার টাকা, যা গত বছরের তুলনায় ২০ হাজার টাকা বেশি। এর সঙ্গে সৌদি আরব সরকারের বাড়ানো ২৪ হাজার ৯৮১ টাকার কর যোগ হবে। সে হিসাবে এবছর প্যাকেজ-১ এর হজ্বযাত্রীদের জন্য সর্বমোট খরচ প্রস্তাব করা হয়েছিল ৪ লাখ ৪২ হাজার ৯১০ টাকা। কিন্তু মন্ত্রিপরিষদ প্যাকেজ-১ এর হজ্বযাত্রীদের জন্য সব মিলিয়ে ব্যয় নির্ধারণ করে চার লাখ ১৮ হাজার ৫১৬ টাকা। প্রকৃত হিসাবে গত বছরের চেয়ে এবছর ২৪ হাজার ৪১০ টাকা ব্যয় কমেছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘গত বছর প্যাকেজ-২ এর হজ্বযাত্রীদের জন্য সব মিলিয়ে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছিল তিন লাখ ৩১ হাজার ৩৬০ টাকা। এবছর হজ্বযাত্রীদের বিমান ভাড়া প্রস্তাব করা হয়েছিল এক লাখ ৪৮ হাজার টাকা, যা গত বছরের তুলনায় ২০ হাজার টাকা বেশি। এর সঙ্গে সৌদি আরব সরকারের বাড়ানো ১৯ হাজার ৩৫ টাকার কর যোগ হবে। সে হিসাবে এবছর প্যাকেজ-২ এর হজ্বযাত্রীদের জন্য সর্বমোট খরচ প্রস্তাব করা হয়েছিল তিন লাখ ৭০ হাজার ৩৯৫ টাকা। কিন্তু মন্ত্রিপরিষদ প্যাকেজ-২ এর এবছরের হজ্বযাত্রীদের জন্য সব মিলিয়ে ব্যয় নির্ধারণ করেছে তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা। প্রকৃত হিসাবে গত বছরের চেয়ে এবছর ২৬ হাজার ৩৯৫ টাকা ব্যয় কমেছে।’
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘গত বছরের চেয়ে এবছর সার্ভিস চার্জ বৃদ্ধি, অতিরিক্ত করারোপ এবং পরিবহন ব্যয় দ্বিগুণের বেশি করেছে সৌদি আরব। এতে হজের খরচ ১৫ হাজার ৩২৬ টাকা ৫০ পয়সা বেড়েছে। গত বছরের অতিরিক্ত সার্ভিস চার্জের উপর ১২ শতাংশ করারোপ করায় অতিরিক্ত তিন হাজার ৭০৯ টাকা হজের খরচ বেড়েছে। এ ছাড়া, সৌদি সরকার কর্তৃক করারোপ করায় আরও ২৫ দশমিক ২৫ টাকা খরচ বেড়েছে। প্যাকেজ-১ এর হজ্বযাত্রীদের জন্য এবছর ট্রেন ভাড়া পাঁচ হাজার ৯৪৫ টাকা ৫০ পয়সা বেড়েছে। সৌদি সরকার কর্তৃক সর্বমোট ২৫ হাজার ছয় টাকা ২৫ পয়সা বেড়েছে।’
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সৌদি সরকার কর্তৃক ব্যয়বৃদ্ধির বিষয়টি বাংলাদেশসহ পৃথিবীর সব দেশের হজ্বযাত্রীদের জন্য প্রযোজ্য।’
এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় সর্বনিম্ন খরচ হবে সরকারি ব্যবস্থাপনার প্যাকেজ-২ এর সমান; কোনোমতেই এর নিচে নেওয়া যাবে না। কারণ তা করা হলে হজ্বযাত্রীদের সেবার মান হ্রাস পাবে, হজ্বযাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়বে, যা কোনোমতেই আমরা সহ্য করবো না।’
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর পরই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসরণ করে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, অন্য সব মন্ত্রণালয় ও হজ্ব এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশসহ (হাব) আমরা সবাই মিলে হজ্ব ব্যবস্থাপনার উন্নতির লক্ষ্যে নিরলসভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছি। হজ্বের খরচ কমানোর বিষয়ে আমরা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়েছি। সে কারণে এবছর হজ্বের প্রকৃত খরচ কমেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ