ঢাকা, বৃহস্পতিবার 14 February 2019, ২ ফাল্গুন ১৪২৫, ৮ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

যুক্তরাষ্ট্র-ইউরোপের অবরোধে তেল রপ্তানিতে এশিয়ার দিকে ঝুঁকছে ভেনেজুয়েলা

১৩ ফেব্রুয়ারি, রয়টার্স/ইয়ন/ ইকোনমিক্স টাইমস : রাজনৈতিক টালমাটালের প্রভাবে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ইউরোপ ও ল্যাটিন আমেরিকার একাধিক দেশ ভেনেজুয়েলা থেকে তেল আমদানি বন্ধ দেওয়ায় তেল রপ্তানিতে এবার ভারতসহ এশিয়ার দেশগুলোর দিকে ঝুঁকছে দেশটি। গত ২৮ জানুয়ারি থেকে ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি পিডিভিএসএ’র ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। এরপর তেল রপ্তানির নতুন অঞ্চল খুঁজতে শুরু করেছে পিডিভিএস।

মূলত নতুন মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় ভেনেজুয়েলার তেলক্রয়ের মূল্য পরিশোধের ওপর অবরোধ আরোপ করা হয়। গত সোমবার এক বিবৃতিতে মার্কিন ট্রেজারি সেক্রেটারি স্টিভেন ম্যুচিন জানান, ‘পিডিভিএসএ’র সঙ্গে তেল ক্রয়ের চুক্তি শর্তসাপেক্ষে স্থগিত থাকবে তবে ভেনিজুয়েলার বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদোকে স্বীকৃতি দেওয়ার মাধ্যমে কোম্পানিটি এটি এড়াতে পারে।’

এর ধারাবাহিকতায়, দক্ষিণ আমেরিকার তেলসমৃদ্ধ দেশটি ভারতের কোম্পানিগুলোর সাথে নগদ অর্থে লেনদেনের দিকে যাচ্ছে। যদিও ভেনেজুয়েলার কাছ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পর দ্বিতীয় বৃহৎ তেল আমিদানিকারক দেশ ভারত। গত সোমবারই দু’টি সুপারট্যাঙ্কার ভেনেজুয়েলার জস টার্মিনাল থেকে তেলবোঝাই কার্গো নিয়ে ভারতের বন্দরে নোঙ্গর করেছে।

রিফাইনিটিভ ইকন’র তথ্য অনুযায়ী, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার দুই সপ্তাহ পর পিডিভিএসএ প্রতিদিন ১১ কোটি ৫০ লাখ ব্যারেল অপরিষোধিত ও পরিষোধিত পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানি করতে সক্ষম রয়েছে। যেখানে নিষেধাজ্ঞার আগে, প্রতিদিন প্রায় ১ কোটি ৪০ লাখ ব্যারেল উৎপাদনে সক্ষম ছিলো। রিফাইনিটিভ’র জাহাজ ট্রেকিং তথ্যে দেখা যায়, ভেনেজুয়েলার অন্তত ১৯টি এশিয়াগামী বৃহদাকার ট্যাঙ্কার ২ কোটি ৪০ লাখ ব্যারেল অপরিষোধিত অথবা জ্বালানি তেলসহ সোমবার ভারত, চীন, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া ও জাপানের দিকে গেছে। এরমধ্যে ৯টি জাহাজ মার্কিন অবরোধ আরোপের পর রপ্তানি করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ