ঢাকা, শুক্রবার 15 February 2019, ৩ ফাল্গুন ১৪২৫, ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমর্থন চাইলেন মাদুরো

১৪ ফেব্রুয়ারি, ইন্টারনেট :   আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ভেনেজুয়েলার পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। গত বুধবার রাজধানী কারাকাসের প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ আহ্বান জানান। মাদুরো বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অব্যাহতভাবে সামরিক হস্তক্ষেপের হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন। ফলে বিশ্বের সব দেশের প্রতি তার আহ্বান, তারা যেন ভেনেজুয়েলার সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে।

নিকোলাস মাদুরো বলেন, ইতোমধ্যেই ভেনেজুয়েলায় একটি বিকল্প হিসেবে সামরিক হস্তক্ষেপের ইঙ্গিত দিয়েছেন ট্রাম্প। ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা কারও গোলাম, ভিক্ষুক বা কর্মচারী নই। আমরা মুক্ত নারী-পুরুষ। এটাই মাদের ভেতরের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা ও পরিতৃপ্তির জায়গা। এদিকে ভেনেজুয়েলা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও’র সঙ্গে কথা বলেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে দুই নেতার ফোনালাপের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এতে বলা হয়, ভেনেজুয়েলায় মার্কিন হস্তক্ষেপের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘ চার্টারের ফ্রেমওয়ার্কের আওতায় থেকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় রাশিয়া প্রস্তুত রয়েছে।

নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকট ভেনেজুয়েলার জনগণকে তাড়িত করেছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে। বিক্ষোভের সুযোগে ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধী দলীয় নেতা জুয়ান গুইদো। ২৮ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রে ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন তেল ও গ্যাস কোম্পানি পিডিভিএসএর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ট্রাম্প প্রশাসন। প্রেসিডেন্ট নিকোলা মাদুরোকে পদত্যাগে চাপ সৃষ্টিতে এই সিদ্ধান্ত নেয় তারা।

সংকট ভ্যাটিকানের মধ্যস্থতার পর্যায়ে নেই

ভেনেজুয়েলা সংকট এখন ভ্যাটিকানের মধ্যস্থতার পর্যায়ে নেই বলে মন্তব্য করেছেন ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। বুধবার দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে লেখা এক চিঠিতে একথা বলেন পোপ।

চলমান রাজনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণে ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিসের শরণাপন্ন হন মাদুরো। এ ব্যাপারে সাহায্য চেয়ে পোপের কাছে একটি চিঠিও পাঠান তিনি। জবাবে পোপ বলেন, সবকিছুর আগে ভেনেজুয়েলার সাধারণ মানুষের কথা ভাবা উচিত। তিনি বলেন, ‘সংঘাতে সংশ্লিষ্ট সব দলকেই শান্তিও ঐক্যের পথ খুঁজতে হবে। ভেনেজুয়েলার ক্যাথলিক বিশপরও সেখানে শান্তিপূর্ণ ও কাঠামোবদ্ধ সমাধান খুঁজছে বলেও জানান  তিনি।

মাদুরোর বিরুদ্ধে শুরু থেকেই তৎপর যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, স্পেনসহ অপরাপর ইউরোপীয় দেশগুলো ভেনেজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট জুয়ান গুইদোকেই দেশটির অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে। এরইআগে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো নতুন নির্বাচন দেওয়ার বিষয়ে আল্টিমেটাম দিয়েছিল তারা। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের আল্টিমেটামকে অগ্রহণযোগ্য আখ্যা দিয়েছিলেন মাদুরো। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ