ঢাকা, বৃহস্পতিবার 21 February 2019, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

প্রটোকল ভেঙ্গে সৌদী যুবরাজকে বুকে জড়িয়ে ধরলেন মোদি

২০ ফেব্রুয়ারি, রয়টার্স/এনডিটিভি : নয়া দিল্লীতে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে ব্যক্তিগতভাবে স্বাগত জানাতে সরকারি প্রটোকল ভেঙেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সাধারণত বিদেশী কোনো অতিথিকে স্বাগত জানাতে প্রধানমন্ত্রীর বিমানবন্দরে যাওয়ার কথা না, তার প্রতিনিধি হিসেবে কোনো কর্মকর্তা বা সরকারের কম গুরুত্বপূর্ণ কোনো মন্ত্রীর যাওয়ার কথা। 

কিন্তু গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় সৌদি যুবরাজ নয়া দিল্লীর বিমানবন্দরে পৌঁছলে সেখানে উপস্থিত মোদি তাকে স্বাগত জানান।

যুবরাজ বিমান থেকে নেমে আসার পর তাকে জড়িয়ে ধরে উষ্ণ অভ্যর্থনায় বরণ করেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। অন্যদিকে মোদির প্রশংসায় পঞ্চমুখ যুবরাজ সালমান বলেছেন, ‘মোদি আমার বড় ভাই’।

“দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের এক নতুন অধ্যায়”, টুইটারে দুই নেতার করমর্দনের একটি ছবি দিয়ে এ মন্তব্য করেছেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাভীশ কুমার। ‘প্রটোকল ভাঙার’ জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদির প্রশংসাও করেছেন তিনি।

এর আগে পাকিস্তান সফরেও উষ্ণ অভ্যর্থনা পেয়েছিলেন সৌদী ক্রাউন প্রিন্স। দেশটিতে দুই দিনের সফর শেষে তিনি ভারতে যান। গতকাল বুধবার মোদির সঙ্গে যুবরাজ মোহাম্মদের বৈঠকের কথা।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ এক প্রাণঘাতী হামলার পর পাকিস্তানকে দায় দেয় ভারত। এ ঘটনা নিয়ে উত্তেজনা চলার মধ্যেই প্রতিবেশী দেশ দুটি সফরে এলেন সৌদী যুবরাজ। এই আঞ্চলিক উত্তেজনা তার এ সফরটিতে নতুন মাত্রা যুক্ত করেছে।

নিজেদের মধ্যে উত্তেজনা চললেও দুটি দেশই সৌদি আরবের সঙ্গে সম্পর্ক আরও জোরদার করার জন্য মুখিয়ে আছে। এরই মধ্যে পাকিস্তানের সঙ্গে ২০ বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ চুক্তি করেছেন যুবরাজ মোহাম্মদ। ভারতও বিনিয়োগ চুক্তির আশায় আছে।  

সৌদি আরব, ভারতে অপরিশোধিত তেলের শীর্ষ যোগানদাতা দেশ। জ্বালানি খাত ছাড়াও দেশ দুটির সম্পর্ক আরও বিভিন্ন দিকে বিস্তৃত হয়েছে।

দুদেশের মধ্যে কৌশলগত অংশীদারিত্ব প্রতিষ্ঠায় দুই সরকার একমতও হয়েছে বলে সম্প্রতি ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।  সৌদি রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম ও ভারতীয় এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সফরে সৌদি যুবরাজ তাদের জাতীয় বিনিয়োগ ও অবকাঠামো তহবিলে প্রাথমিক বিনিয়োগের ঘোষণা দিবেন বলে প্রত্যাশা করছে ভারত। আপাতত সার্বভৌম এই তহবিল ভারতের বন্দর ও মহাসড়ক নির্মাণকাজে ব্যবহার করা হবে। ভারতে সফর শেষে সৌদী যুবরাজের চীন, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়া সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে।

অক্টোবরে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশুগজি খুন হন। এই খুনের ঘটনাকে ঘিরে দেশ-বিদেশে প্রচণ্ড চাপে আছেন যুবরাজ মোহাম্মদ। ওই ঘটনার পর দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়ায় এটিই তার প্রথম সফর। এদিকে বুধবার ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন যুবরাজ সালমান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাভিশ কুমার বলেন, ‘বৈঠকে তারা বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা এবং আঞ্চলিক সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করবেন।’ এদিন হায়দ্রাবাদ হাউসে বৈঠক করবেন মোদি ও সালমান। বৈঠকের পর দুই নেতা কয়েকটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করবেন। ভারতের কর্তৃপক্ষ জানান, এই আলোচনায় যৌথ প্রতিরক্ষা সম্পর্ক উন্নীতকরণ সহ যৌথ নৌ মহড়া নিয়ে আলোচনা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ