ঢাকা, বৃহস্পতিবার 21 February 2019, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

পাক-ভারত উত্তেজনা কমাতে সহায়তার প্রস্তাব জাতিসংঘের

২০ ফেব্রুয়ারি, ইন্টারনেট : ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে চলমান উত্তেজনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস। তিনি দু’দেশকে সর্বোচ্চ সংযম দেখানোর আহ্বান জানিয়েছেন। একই সঙ্গে জাতিসংঘের বিভিন্ন দফতর এই সংকট নিরসনে সহায়তা করবে বলেও দু'দেশকে প্রস্তাব দিয়েছেন গুতেরেস।

এক সংবাদ সম্মেলনে জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বলেন, সর্বোচ্চ সংযমের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে চলমান উত্তেজনা কমিয়ে আনতে দু'দেশকে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ প্রধান। দু'পক্ষ সম্মতি জানালে জাতিসংঘের বিভিন্ন দফতর এ বিষয়ে কাজ করবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

অতীতেও জাতিসংঘের এ ধরনের প্রস্তাব গ্রহণ করেছে পাকিস্তান। তবে পাকিস্তানের সঙ্গে এই বিষয়টিকে দ্বিপক্ষীয় বিরোধ বলে উল্লেখ করে এতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সম্পৃক্ততার বিষয়ে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছে ভারত।

নিজেদের মধ্যকার উত্তেজনা কমিয়ে আনতে মঙ্গলবার ভারত পাকিস্তানকে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানান জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস। একই সঙ্গে দু’পক্ষ যদি সম্মতি জানায় তবে মধ্যস্ততাকারী হিসেবে সমস্যা সমাধান করা হবে বলেও প্রস্তাব দেন তিনি।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু'দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সংঘাত চরমে উঠেছে। ভয়াবহ ওই আত্মঘাতী হামলায় ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর কমপক্ষে ৪০ সদস্য নিহত হয়েছেন। ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদ।

জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বলেন, দু’দেশের মধ্যে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার বিষয়ে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। তিনি আরও বলেন, উত্তেজনা কমাতে দু’পক্ষকেই সর্বোচ্চ সংযম দেখাতে এবং দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার প্রতি গুরুত্ব দিয়েছেন গুতেরেস। দু'পক্ষ চাইলে তারা মধ্যস্ততাকারী হিসেবে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবে বলেও প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এক চিঠিতে উত্তেজনা কমাতে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশী গুতেরেসের প্রতি আবেদন জানিয়েছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

সোমবারের ওই চিঠিতে বলা হয়, দু’দেশের মধ্যকার উত্তেজনা কমিয়ে আনার পদক্ষেপ হিসেবে এটি একটি আবেদন। জাতিসংঘকে উত্তেজনা কমিয়ে আনতে অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী ওই হামলা চালালেও পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি কোন ধরনের তদন্ত ছাড়াই পাকিস্তানের ওপর দোষ চাপানো হচ্ছে।

কূটনীতিকরা বলছেন, ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার জবাবে জাতিসংঘের সন্ত্রাসবাদের তালিকায় জয়েশ-ই মোহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারের নাম অন্তর্ভূক্ত করতে নতুন করে নিরাপত্তা পরিষদের ওপর চাপ প্রয়োগের বিষয়টি বিবেচনা করছে ফ্রান্স, ব্রিটেন এবং যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু এর বিরোধিতা করেছে চীন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ