ঢাকা, বৃহস্পতিবার 21 February 2019, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

জ্ঞান, দক্ষতা ও দেশপ্রেমকে সমন্বয় করে শিক্ষাব্যবস্থা বিন্যস্ত করতে হবে -প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেছেন, জ্ঞান, দক্ষতা ও দেশপ্রেমকে সমন্বয় করে শিক্ষা ব্যবস্থা বিন্যস্ত করতে হবে। তিনি বলেন, একজন শিক্ষকের প্রধান কাজ হলো, যে বিষয়ে তিনি পাঠদান করবেন সে বিষয় শিক্ষার্থীদের আনন্দদায়ক করে তুলবেন। কারণ যদি শিক্ষার্থীরা আনন্দ না পায়, তাহলে তারা ক্লাসে অমনোযোগী হয়ে পড়বে। পাঠদানের ক্ষেত্রে এ বিষয়টি প্রতিটি শিক্ষককে লক্ষ্য রাখতে হবে। তিনি বলেন, শিক্ষকদের আরও লক্ষ্য রাখতে হবে আমরা কি করে পাঠদান করবো, কিভাবে পাঠ্য নির্ধারণ করবো, কি ভাবে কারিকুলাম তৈরি করবো, কিভাবে কোর্স নির্ধারণ করবো এবং সেসন প্লান তৈরি করবো সে বিষয়ে জানতে হবে। কারণ একজন শিক্ষক যদি নিজেকে যোগ্য শিক্ষক হিসেবে গড়ে তুলতে চায় তাহলে এ বিষয়গুলো জানার কোন বিকল্প নেই। তিনি বলেন, বিশ্বখ্যাত মার্কিন অধ্যাপক এবং শিক্ষা মনোবিজ্ঞানী বেঞ্জামিন ব্লুম জ্ঞান অর্জনের জন্য জ্ঞান, বোধগম্যতা, প্রয়োগ, বিশ্লেষণ, সংস্লেশন এবং মূল্যায়ণ এই ৬টি লেভেলের কথা উল্লেখ করেছেন। আশা রাখি জ্ঞান অর্জনের ক্ষেত্রে আমরা এদিকেও লক্ষ্য রাখবো।
গত রোববার সকালে আইকিউএসি’র সেমিনার কক্ষে “উচ্চ শিক্ষাস্তরে শেখার উদ্দেশ্য সংক্রান্ত বেঞ্জামিন ব্লুম-এর শিখনুত্ত্ব” শীর্ষক কর্মশালা উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) এসব কথা বলেন।
আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. কে.এম আব্দুস ছোবহানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন চলমান। উন্নয়নের যতগুলো সূচক আছে তার মধ্যে উচ্চ শিক্ষার মানোন্নয়ন একচি সূচক। তিনি বলেন, মুক্ত চিন্তার জায়গা হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়। তাই আমাদেরকে সৃষ্টিশীল কাজ করতে হবে। ক্লাসে পাঠদানের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের সাথে শিক্ষকদেরকে বন্ধুত্বসুলভ আচারণের পরামর্শ দিয়ে  নতুন শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আশারাখি উচ্চ শিক্ষা প্রদানের ক্ষেত্রে আপনারা নিজেকে আরও যোগ্য করে গড়ে তুলবেন।
অনুষ্ঠানে রিসোর্স পারসন হিসেবে মুলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের কোয়ালিটি এস্যুরেন্স বিভাগের সাবেক প্রধান এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি প্রযুক্তি বিভাগের প্রফেসর সঞ্জয় কে অধিকারী। এ কর্মশালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষকগণ অংশগ্রহণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ