ঢাকা, মঙ্গলবার 26 February 2019, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৫, ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এক মাসের মধ্যে কেমিক্যাল গোডাউন অপসারণ -সাঈদ খোকন

স্টাফ রিপোর্টার : আগামী এক মাসের মধ্যে পুরান ঢাকার আবাসিক এলাকা থেকে সব কেমিক্যাল গোডাউন অপসারণ করার ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন। একইসাথে যেসব বাসা ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে ক্ষতিকর কেমিক্যাল জাতীয় দ্রব্যেও মজুদ পাওয়া যাবে সেখানে বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে বলেও জানান তিনি। গতকাল সোমবার ডিএসসিসির নগর ভবনের সেমিনার কক্ষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে পুরান ঢাকার আবাসিক এলাকা থেকে কেমিক্যাল গোডাউন অপসারণকল্পে এক বিশেষ জরুরি সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। সভায় আলোচনায় অংশ নিয়ে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, পুরান ঢাকার কেমিক্যাল কারখানা নিয়ে আর কোন ছাড় দেয়া হবে না। যেকোন মূল্যে ওই এলাকা কেমিক্যাল মুক্ত করা হবে।
সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী সেলিম, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহাম্মেদ খান, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আবদুর রহমান, ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান, তিতাস গ্যাসের এমডি মোস্তফা কামাল, পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক সোহরাব আলী, বিস্ফোরক অধিদফতরের প্রধান বিস্ফোরক পরিদর্শক শামসুল আলম, ঢাকা জেলা প্রশাসক আবু ছালেহ মোহম্মাদ ফেরদৌস খান, ডিপিডিসির এমডি বিকাশ দেওয়ানসহ বিভিন্ন সেবা সংস্থার প্রতিনিধি এবং পুরান ঢাকার কেমিক্যাল ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
 মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার থেকে কেমিক্যাল গোডাউন অপসারণের কাজ শুরু হবে। ১ এপ্রিলের মধ্যে পুরান ঢাকার সব কেমিক্যাল গোডাউন অপসারণ করা হবে। এ জন্য দুই স্তরের টাক্স ফোর্স গঠন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ১ম স্তরে থাকবে সেবা সংস্থাগুলোর প্রধানসহ অন্যান্য উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা। তারা পরিকল্পনা গ্রহণ, নির্দেশনা প্রদান এবং বাস্তবায়নের কাজ করবেন। আর ২য় স্তরের সদস্যরা এলাকায় থেকে কাজ করবেন।
 সেবা সংস্থাগুলোর প্রধানদের উদ্দেশ্যে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, অভিযানের সময় যেসব বাসায় বা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে ক্ষতিকর ক্যামিকেল জাতীয় দ্রব্য পাওয়া যাবে আপনারা সাথে সাথে সেখানে বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেবেন। আমরা ১৫টি ওয়ার্ড ঝূঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছি। ২/৩টি ওয়ার্ডে একসাথে কাজ করা হবে।
বিভিন্ন যানবাহনে ব্যবহৃত  গ্যাস সিলিন্ডার বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতি আহবান জানিয়ে মেয়র বলেন, যানবাহনে ব্যবহৃত সিলিন্ডার নজরদারিতে আনা দরকার। প্রয়োজনে আইনগতভাবে যানবাহনে সিলিন্ডার ব্যবহার নিষিদ্ধ করা যেতে পারে বলেও মত দেন তিনি।
আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, আগামী এক মাসের মধ্যে পুরান ঢাকাকে বাসযোগ্য করা হবে। এজন্য আর কোন ছাড় দেয়া হবে না। এবার আটঘাট বেধেই নামা হবে। ঘরে ঘরে পুলিশ ও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা খোঁজ নেয়া শুরু করেছে জানিয়ে তিনি এ ব্যাপারে সবাইকে সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ