ঢাকা, মঙ্গলবার 5 March 2019, ২১ ফাল্গুন ১৪২৫, ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

গাইবান্ধা পৌর সভায় তিন বছরে বাস্তবায়ন করা হয়েছে ২৩৩টি প্রকল্প

গাইবান্ধা থেকে জোবায়ের আলী : মেয়র অ্যাডভোকেট শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবীর মিলনের নেতৃত্বে গাইবান্ধা পৌর পরিষদের তিন বছর পূর্তির দিন ছিল গত ৭ ফেব্রুয়ারি। জনগণের  ভোটে রাজনৈতিক দল থেকে প্রথম নির্বাচিত মেয়র তিনি। তাঁর নেতৃত্বে নির্বাচিত কাউন্সিলররা ২০১৬ সালের এই দিনে গাইবান্ধা পৌরসভার দায়িত্ব গ্রহণ করেন। নির্বাচনের আগে অ্যাডভোকেট শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবীর মিলন পৌরবাসীকে যে সব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তার অনেকগুলোই বাস্তবায়িত হয়েছে। উন্নত পৗরসভা গঠনে গত তিন বছরে ২২৩টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এসব প্রকল্পের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- বৃহত্তর পরিসরে পৌর শহীদ মিনার নির্মাণ, পৌর পার্কে দৃষ্টিনন্দন ফোয়ারা নির্মাণ, পৌর পার্কের প্রাচীর নির্মাণ, পৌর এলাকার বিভিন্ন স্থানে সোলার স্থাপন, পৌরসভা কার্যালয়ের প্রধান ফটক নির্মাণ, পৌর পার্কে বিনামূল্যে ওয়াইফাই চালু, স্টেশন রোড থেকে হকারদের শনিমন্দির রোডে পুনর্বাসন, দুস্থ পরিবারে টয়লেট প্রদান, পৌর এলাকায় আধুনিক লাইটিং, কলেজ রোডের বস্তিতে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট স্থাপন, ৯ কিলোমিটার নতুন পানির লাইন স্থাপন, ব্রিজ রোড ও হকার্স মার্কেটে টয়লেট নির্মাণ। পৌরসভার তত্ত্বাবধানে সার্কুলার রোড প্রশস্ত ও আরসিসি রাস্তা নির্মাণ, পাঁচ কিলোমিটার আরসিসি রাস্তা নির্মাণ, দক্ষিণ ধানঘড়ায় জান্নাতুল মাওয়া নতুন গোরস্থান নির্মাণ, কুটিপাড়া বাঁধে ও ডেভিড কোং পাড়ায় সাংবাদিক মিতার বাড়ির পাশে পার্ক নির্মাণ, পাঁচ কিলোমিটার নতুন সিসি রাস্তা নির্মাণ, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের জন্য ৬টি নতুন পাম্প হাউজ নির্মাণ, দুই কিলোমিটার সলিং রাস্তা ও পাঁচ কিলোমিটার মাটির নতুন রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া গত তিন বছরে দুই কি.মি নতুন কার্পেটিং ও তিন কি.মি পুরাতন কার্পেটিং রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে, দুই কি.মি ব্রিক ড্রেন ও তিন কি.মি ড্রেনের স্লাব নির্মাণ করা হয়েছে। পৌর গোরস্থানের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য গোরস্থানের ভেতর মাটি ভরাট, মাটির রাস্তা নির্মাণ, গেট নির্মাণ, প্রাচীরের উপর লাইট স্থাপন এবং গোরস্থানের নতুন ৪০ শতক জায়গা বর্ধিত করা হয়েছে। এছাড়াও ডেভিড কোং পাড়া বাঁধে লাইটিং, বাস টার্মিনালে ড্রেন নির্মাণ ও উন্নয়ন, সলিড ওয়েস্ট ডিসপোজাল গ্রাউন্ড উন্নয়ন, পাঁচটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের বিনোদনের উপকরণ স্থাপন, পৌর পার্কে সাউন্ড সিস্টেম চালু, পৌর পার্কে ও পৌরসভা কার্যালয়ে গাড়ি পার্কিং এর ব্যবস্থা, গোডাউন রোড ও খানকাশরীফ বড়বাড়ি যাওয়ার রা¯তা প্রশস্তকর, শ্মশানঘাট উন্নয়ন, ২৫০টি দুস্থ পরিবারে নলকূপ স্থাপন, ডেভিড কোম্পানি পাড়ায় টিউবওয়েলের পানি আর্সেনিক মুক্ত করতে আইআর ইউ স্থাপন, স্বাস্থ্য সেবার উন্নতির জন্য পৌরসভায় টিকাদান কেন্দ্র স্থাপন, নতুন বাজারে সেড নির্মাণ ও নতুনবাজার, হকার্স মার্কেট এবং পুরাতন বাজার উন্নতকরণ, ডিজিটাল কেন্দ্র স্থাপন, ঈমাম- মোয়াজ্জেম-খাদেম ও পুরোহিতদের বার্ষিক সম্মানী প্রদান, জনসাধারণের সাথে যোগাযোগ মাধ্যম উন্নত করতে ১২ ঘন্টা অভিযোগ কেন্দ্র চালু রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
২৩৩টি প্রকল্প বাস্তবায়ন ছাড়াও কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্প এখনও চলমান রয়েছে। সেগুলো হচ্ছে-ফোর লেন রাস্তা নির্মাণ, ঘাঘট লেকের উন্নয়য়ন ও আধুনিকরণ, নগর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন রাস্তার উন্নয়ন এবং এলজিএসপির আওতায় ২ কোটি ৩৩ লাখ টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন রাস্তার উন্নয়ন ও আধুনিক সড়ক বাতির ব্যবস্থা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ