ঢাকা, মঙ্গলবার 5 March 2019, ২১ ফাল্গুন ১৪২৫, ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ডিমলায় অপহরণের ২ মাস পর ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী উদ্ধার

নীলফামারী সংবাদদাতা : নীলফামারীর ডিমলায় অপহরণের ২ মাস পর ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে ঢাকা থেকে উদ্ধার করেছে ডিমলা থানা পুলিশ।
ডিমলা থানা পুলিশ সূত্রে জানা  গেছে, ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলি গ্রামের জহুরুল ইসলামের কন্যা ও ঝুনাগাছ চাপানী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সুমি আক্তার কে গত ৭ই জানুয়ারী বিকেলে তার বাড়ি থেকে হাতিবান্দা থানার পুরান কাচারি এলাকার নির্মল দাসের ছেলে কার্তিক দাস(৩০) তার সঙ্গিয় ৩জনসহ সুমিকে জোর পূর্বক মোটর সাইকেল যোগে অপহরণ করে নিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে সুমির পিতা জহুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ৪ জনের নামে ডিমলা থানায় একটি অপহরণের মামলা করে।
মামলার প্রেক্ষিতে ডিমলা থানার এসআই ইলিয়াছ আলী গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত রোববার নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানা এলাকা থেকে সুমিকে উদ্ধার করে। এ সময় মূল অপহরণকারী কার্তিক দাসকে আটক করা হয়। সোমবার অপহরণ কারী কার্তিক দাসকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
পলাতক আসামী গ্রেফতার : নীলফামারীর ডিমলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী হাসিনুর রহমান (৩৫) কে রবিবার রাতে নিজ বাড়ী থেকে গ্রেফতার করেছে ডিমলা থানা পুলিশ। সে উপজেলা সদরের রামডাঙ্গা গ্রামের  ভেদু মিয়ার ছেলে । জানা গেছে নীলফামারী জেলা স্পেশাল ট্রাইবুন্যাল যুগ্ন দায়রা জজ আদালতে ২০১৯ সালে হাসিনুরকে বিশেষ ক্ষমতা আইনের একটি মামলায় ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ বলেন, হাসিনুরকে আদালতের রায়ে সাজাপ্রাপ্ত হওয়ার পরে ২ মাস যাবত পলাতক ছিলো।  সোমবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ