ঢাকা, বুধবার 6 March 2019, ২২ ফাল্গুন ১৪২৫, ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এখনো ৬২টি পাটকল বন্ধ রয়েছে -পাটমন্ত্রী

সংসদ রিপোর্টার : দেশে মোট ৩১৪টি পাটকলের মধ্যে এখনো ৬২টি পাটকল বন্ধ রয়েছে বলে জাতীয় সংসদে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী।
গতকাল মঙ্গলবার বিকালে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে সরকারি দলের সদস্য তানভীর ইমামের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।
মন্ত্রীর দেওয়া তথ্যমতে, বাংলাদেশ গেজেট অতিরিক্ত ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই মোতাবেক দেশে বিজেএমসির নিয়ন্ত্রণাধীন সরকারি পাটকলের সংখ্যা ২৭টি। সম্প্রতি আরও ছয়টি পাটকল পুনঃগ্রহণ করায় মোট পাটকলের সংখ্যা হয়েছে ৩৩টি। যার মধ্যে সাতটি মিল বন্ধ রয়েছে। আবার বেসরকারি পাট কলের সংখ্যা ২৮১টি, যার মধ্যে ৫৬টি পাটকল বন্ধ রয়েছে।
সংসদে বিরোধীদল জাতীয় পার্টির সাংসদ মসিউর রহমান রাঙ্গার অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ভারত সরকার বাংলাদেশের পাটপণ্যের উপর আরোপিত এন্টি ড্যাম্পিং ডিউটি প্রত্যাহার না করায় ও বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দার কিছুটা ঋণাত্মক প্রভাব আমাদের পাটের বাজারে পড়েছে।
মন্ত্রী জানান, নতুন নতুন পাটজাত দ্রব্য উদ্ভাবনের লক্ষ্যে নানা ধরণের গবেষণা অব্যাহত রয়েছে। যেমন- পাট থেকে ভিসকস, পাট পাতা থেকে পানীয়, পাট থেকে পলিথিন ব্যাগের বিকল্প সোনালি ব্যাগ, পাটকাঠি থেকে চারকোল ও জুট কম্পোজিট গার্মেন্টস- ডেনিম ইত্যাদি উৎপাদন।
সাংসদ আহসান আদেলুর রহমানের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক পলিথিনের বিকল্প হিসেবে পাট দিয়ে তৈরি সোনালি ব্যাগের প্রসার ঘটানোর লক্ষ্যে পাটকল করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে প্রতিদিন এক লাখ সোনালি ব্যাগ তৈরির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
সংসদ সদস্য আবদুল আজিজের এক প্রশ্নের জবাবে গোলাম দস্তগীর গাজী জানান, গত অর্থবছরে দেশে ছয় লাখ ১৮ হাজার ৬৩২ হেক্টর জমিতে পাট উৎপাদন হয়েছে। এ দেশে থেকে পাকিস্তান, ভারত, চীন, নেপাল, আইভরিকোস্ট, জিবুতি, ভিয়েতনাম, ব্রাজিল, এলসালভাদর, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, তিউনিশিয়া ও জার্মানিতে পাট রফতানি করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ