ঢাকা, শনিবার 9 March 2019, ২৫ ফাল্গুন ১৪২৫, ১ রজব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

দেশজুড়ে চলছে ওয়ালটনের বিক্রয় উৎসব

চলছে ওয়ালটনের ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৪। এ উপলক্ষ্যে দেশজুড়ে জমে উঠেছে বিক্রয় উৎসব। চলছে ব্যাপক প্রচার, র‌্যালি, আনন্দ মিছিল এবং শোডাউন। কোথাও বানানো হচ্ছে এক কিলোমিটার দীর্ঘ ব্যানার। কোথাও বা আবার ক্যাম্পেইনের র‌্যালি ছাড়িয়ে যাচ্ছে শত কিলোমিটার এলাকা। ওয়ালটন পণ্য কিনে ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে রেজিস্ট্রেশন করে ক্রেতারাও নিজেদের ভাগ্য পরীক্ষা করে নিচ্ছেন। মিলছে লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচারসহ হাজার হাজার ফ্রি পণ্য।

অনলাইনে দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করতে ‘কাস্টমার ডাটাবেজ’ তৈরির প্রক্রিয়ায় গতি সঞ্চারের লক্ষ্যে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে ওয়ালটন। ক্যাম্পেইনের সিজন ফোর বা চতুর্থ পর্ব শুরু হয়েছে চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি। এর আওতায় ওয়ালটন ফ্রিজ, টিভি, এসি, ল্যাপটপ, কম্পিউটার, ওয়াশিং মেশিন, জেনারেটর ও মাইক্রোওয়েব ওভেন কিনে রেজিস্টেশন করলেই ক্রেতারা পাচ্ছেন সর্বোচ্চ এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার। আছে মোটরসাইকেল, এয়ার কন্ডিশনার, ল্যাপটপ, ফ্রিজ, এলইডি টিভি, ওভেনসহ অসংখ্য পণ্য ফ্রি পাওয়ার সুযোগ। এসব না মিললেও রয়েছে নিশ্চিত ক্যাশব্যাক। এ সুবিধা থাকছে পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত।

ডিজিটাল ক্যাম্পেইন ঘিরে ওয়ালটন শোরুমকে কেন্দ্র করে দেশজুড়ে এখন উৎসবমুখর পরিবেশ। এ উপলক্ষ্যে নেয়া হয়েছে ব্যাপক পদক্ষেপ। প্রতিদিনই অনুষ্ঠিত হচ্ছে র‌্যালি, আনন্দ মিছিল এবং শোডাউন। যাতে অংশ নিচ্ছেন নারী-পুরষ-শিশুসহ সব বয়সের মানুষ।

ওয়ালটনের ক্রিয়েটিভ এ্যান্ড পাবলিকেশন বিভাগের নির্বাহী পরিচালক উদয় হাকিম বলেন, ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে ক্রেতা আকর্ষণ ও স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে দুই ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। প্রথমত, দেশব্যাপী ক্যাম্পেইনের পক্ষে জোর প্রচার চলছে। এজন্য সব ওয়ালটন প্লাজা ও পরিবেশক শোরুম সাজানো হয়েছে রঙিন ব্যানার ও ফেস্টুনে। জেলা ও উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে তৈরি করা হয়েছে তোরণ। চলছে মাইকিং। সুসজ্জ্বিত হাতি, ঘোড়া, ঘোড়ার গাড়ি, লঞ্চ, ট্রাক, পিক-আপ, অটোরিক্সা, ভ্যান, মোটরসাইকেল যোগে চলছে র‌্যালি এবং রোড শো। 

দ্বিতীয় পদক্ষেপ হিসেবে ওয়ালটন পণ্য রেজিস্ট্রেশন করলে ক্রেতাদের দেয়া হচ্ছে কোটি কোটি টাকার ক্যাশ ভাউচার। এর আওতায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এরইমধ্যে অনেকেই এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন। এছাড়া প্রতিদিনই হাজার হাজার ক্রেতা অসংখ্য পণ্য ফ্রি পাচ্ছেন। এসব না মিললেও সবার জন্য থাকছে সর্বনি¤œ ২০০ টাকার ক্যাশ ভাউচার।

ওয়ালটনের সেলস বিভাগের নির্বাহী পরিচালক এমদাদুল হক সরকার জানান, গ্রাহক পর্যায়ে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে এই ক্যাম্পেইন। ক্রেতারা ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনা নিয়ে পণ্য কিনে তা রেজিস্ট্রেশন করছেন। ফলে, কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরির প্রক্রিয়া দ্রুত এগিয়ে চলছে। বিক্রয়োত্তর সেবা দেয়া হচ্ছে আরো দ্রুত।

ওয়ালটনের বিভিন্ন জোনের এরিয়া ম্যানেজারগণ জানান, ৪ মার্চ পর্যন্ত রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কিস্তি ও নগদ টাকায় ওয়ালটন পণ্য কিনে রেজিস্ট্রেশন করে এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন ১২ জন। যা দিয়ে পূরণ হয়েছে তাদের দীর্ঘদিনের লালিত অনেক স্বপ্ন। কেউ নিজেদের ব্যবহারের জন্য পণ্য কিনছেন, কেউ বা আত্মীয়-স্বজন ও প্রিয়জনদের দিচ্ছেন নানা উপহার। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ