ঢাকা, শুক্রবার 15 March 2019, ১ চৈত্র ১৪২৫, ৭ রজব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

অবশেষে পতন থামলো ডিএসইতে অব্যাহত সিএসইতে

 

স্টাফ রিপোর্টার: অবশেষে পতন থামলো শেয়ারবাজারে। ব্যাংক, বীমা, আর্থিক খাতসহ সবকটি খাতের সিংহভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমার পরও সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সবকটি মূল্যসূচক বেড়েছে। এর মাধ্যমে টানা তিন কার্যদিবস পতনের পর ঊর্ধ্বমুখীতার দেখা পেল ডিএসই। তবে অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) দরপতন অব্যহত রয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার ডিএসইর তিনটি সূচকের মধ্যে থেকে বেশি বেড়েছে ডিএসই-৩০ সূচকটি। এই সূচকের আওতায় থাকা ৩০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৭টির শেয়ারের দাম কমেছে। বিপরীতে বেড়েছে ১২টির। এরপরও সূচকটি আগের কার্যদিবসের তুলনায় ১৮ পয়েন্ট বেড়েছে। সূচকের এই বড় উত্থানে মূখ্য ভূমিকা রেখেছে গ্রামীণফোন ও ব্রিটিশ-আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানি।

বাজার মূলধনের বড় অংশ নিজেদের দখলে রাখা এই দুই কোম্পানির উপর ভর করে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্সও বেড়েছে। সূচকটি আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৬৫৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অথচ ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ২৩১টি বা ৬৭ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। বিপরীতে দাম বেড়েছে মাত্র ৭৭টির বা ২২ শতাংশের। আর অপরিবর্তীত রয়েছে ৩৯টি প্রতিষ্ঠানের দাম।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতনের মধ্যে ডিএসইতে মূল্যসূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। দিনভর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৮৫ কোটি টাকার শেয়ার। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৭০৮ কোটি ১২ লাখ টাকা। সে হিসাবে আগের কার্যদিবসের তুলনায় লেনদেন কমেছে ১২৩ কোটি ১২ লাখ টাকা।

লেনদেনের এই পতনের দিনে টাকার অংকে ডিএসইতে সর্বাধিক লেনদেন হয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর শেয়ার। কোম্পানিটির মোট ৫৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে এর পরেই রয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক। কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৪৪ কোটি ২১ লাখ টাকার। আর ২৭ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন। লেনদেনে এরপর রয়েছে- ডাচ-বাংলা ব্যাংক, মুন্নু সিরামিক, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, সিঙ্গার বাংলাদেশ, বাটা সু, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স এবং বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ৬ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৫১৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে আজ মোট ২৫০টি প্রতিষ্ঠানের ২১ কোটি ৫২ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছে। এর মধ্যে ৫২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ১৭১টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ