ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 September 2019, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মহররম ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

নিরাপত্তাহীনতায় দ্রুত দেশে ফিরতে চান মুশফিক-তামিমরা

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে গিয়ে ভীতিকর অভিজ্ঞতার মুখে পড়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটার দল।

বর্তমান অবস্থায় দেশটিতে থাকা নিরাপদ মনে না করায় দ্রুত দেশে ফিরতে চান তারা।

নিউজিল্যান্ড স্থানীয় সময় দুপুর পৌনে ২টায় ক্রাইস্টচার্চের মসিজিদ আল নূরে সন্ত্রাসী হামলা হয়। এতে কমপক্ষে ৯ জন নিহত হন। আহত হন আনুমানিক শতাধিক জন। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

সেই মসজিদেই নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন তামিম-মিরাজরা। প্রবেশের মুহূর্তে স্থানীয় এক পথচারী তাদের মসজিদে ঢুকতে নিষেধ করেন। বলেন এখানে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন খেলোয়াড়েরা। পরে দৌড়ে টিম বাসের মধ্যে ঢুকে যান এবং মেঝেতে শুয়ে পড়ে। খানিক পরই ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। তারা এখন হ্যাগলি ওভাল স্টেডিয়ামে অবস্থান করছেন। তবে খুব কাছ থেকে এমন মারাত্মক ঘটনার সাক্ষী হয়ে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছেন ক্রিকেটাররা।

নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, ভয়াবহ সন্ত্রাসী কার্যকলাপে ভীষণ ভয় পেয়েছেন টাইগাররা। দ্রুত দেশে ফিরতে চাচ্ছেন তারা।

ক্রিকেটবিষয়ক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোর বাংলাদেশ প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইসাম ঘটনাস্থলে ছিলেন। খোদ তিনি নিজেই এ খবর জানিয়েছেন।

মোহাম্মদ ইসাম বলেন, আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম। সব খেলোয়াড় নিরাপদে আছেন। তবে তারা দেশে ফিরে যেতে চান।

তিনি বলেন, আমি মনে করি না, বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা খেলার মতো মানসিক অবস্থায় আছেন। তারা শিগগির দেশে ফিরতে চান। আমার অভিজ্ঞতা থেকেই বলছি।

ক্রাইস্টচার্চের হাগলি ওভাল মাঠে শনিবার বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় টেস্ট হওয়ার কথা রয়েছে। তবে ম্যাচটি মাঠে গড়ানো নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। তবে এ ব্যাপারে এখনও আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেয়নি নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ