ঢাকা, শুক্রবার 22 March 2019, ৮ চৈত্র ১৪২৫, ১৪ রজব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

অপরাজনীতি নয় ছেলের সন্ধান চান বাবা

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা: দীর্ঘ প্রায় ১৫ মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে দেড় বছরের শিশু সাদমান সাকি। এই অবুঝ শিশুটির কি অপরাধ ছিল, তা সকলেরই অজানা। কোন কারণে তাকে বাবা মায়ের স্নেহমাখা আদর থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে জানে না কেউ। এতদিন ধরে খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। হারানো সন্তানের শোকে কাতর হয়ে পড়েছেন তার মা। সারাক্ষণই শুধু সন্তানের খোঁজ করে যান তিনি।

হারানো সন্তানের সন্ধানের দাবিতে তারা জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে ছোটাছুটি করেও শিশু সাদমানের সন্ধান মিলছে না।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বর শুক্রবার দুপুর দেড়টায় ঘরের বাইরে খেলার সময় দেওভোগ কাঠের দোতলা বড় জামে মসজিদ এলাকা থেকে শিশু সাদমান সাকি নিখোঁজ হয়। সাদমান সাকি নিখোঁজের ১৩ দিন পর নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় সাদমান সাকির বাবা সৈয়দ ওমর খালেদ এপন একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছিলেন। একই সাথে সাদমান সাকির সন্ধানের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনশনসহ নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে কয়েকবার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সর্বশেষ সাদমানের সন্ধান দাবিতে গত ১৬ মার্চ নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে একটি মানববন্ধনে দেয়া বক্তব্যকে কেন্দ্র করে শহরব্যাপী শুরু হয়েছে নানা আলোচনা সমালোচনা। তবে সাদমানের বাবা সৈয়দ ওমর খালেদ এপনের দাবি শিশু সন্তান নিয়ে তিনি কোন অপরাজনীতি কিংবা নোংরা রাজনীতি চান না। তার বিশ্বাস এখনও তার শিশু সন্তান সাদমান সাকি বেঁচে আছেন। তাই তিনি শিশু সন্তানের সন্ধান চান।

সাদমানের বাবা সৈয়দ ওমর খালেদ এপন বলেন, যার সন্তান হারায় একমাত্র সেই বুঝে সন্তান হারানোর বেদনা। আমার নিখোঁজ শিশু সন্তানের জন্য তার মা আজ বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। সাংসারিক কোন কাজকর্মই করে না সে। সারাদিন শুধুই সন্তানের খোঁজ করে যায়। আমার সকল ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ হয়ে গেছে এই শিশুটির জন্য। কোন কাজকর্ম করতে পারি না। সারাক্ষণ শুধু কানের কাছে সন্তানের আওয়াজ শোনা যায়। এই বুঝি আমার সন্তান ফিরে এসেছে। কিন্তু আজও আমার সন্তান ফিলে এলো না।

তিনি আরও বলেন, যদি আমি কোন দোষ করে থাকি তাহলে আমাকে শাস্তি দেয়া হোক। আমি যে কোন ধরনের শাস্তি পেতে রাজী আছি। কিন্তু আমার এই অবুঝ শিশুটিকে কেন কষ্ট দেয়া হচ্ছে। তার তো কোন দোষ নেই। জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে সকলের কাছেই আমার আকুল আবেদন দয়া করে আমার হারানো শিশুটির সন্ধান দেয়া হোক।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীর দেয়া বক্তব্য প্রসঙ্গে এপন বলেন, তিনি একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমার হারানো সন্তানের জন্য পুলিশ সুপারকে আহবান জানাতেই পারে। এটা তো তার জন্য দোষের কিছু না। এটা তার নৈতিক দায়িত্ব। কিন্তু অন্য কোন জনপ্রতিনিধি তো সেই দায়িত্বটুকু পালন করে নাই। আমি আমার হারানো সন্তানকে ফিলে সকলের কাছেই দিয়েছি। কিন্তু একমাত্র মেয়র আইভী ছাড়া অন্য কোন জনপ্রতিনিধি প্রকাশ্যভাবে কোন দাবি জানায়নি। নারায়ণগঞ্জে অনেক অনেক বড় প্রভাবশালী নেতা ও জনপ্রতিনিধি রয়েছেন। তারা ইচ্ছা করলে অনেক কিছুই করা সম্ভব। কিন্তু তারপরেও কেন আমার শিশু সন্তান সাদমানকে উদ্ধার করা গেল না। সকলের মাঝ থেকে কিভাবে আমার শিশু সন্তানটি হারিয়ে গেল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ