ঢাকা, শনিবার 30 March 2019, ১৬ চৈত্র ১৪২৫, ২২ রজব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

গাউসনগরে আবাসিক এলাকায় বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণের প্রতিবাদে বিশাল মানববন্ধন

গতকাল শুক্রবার জনকণ্ঠ ভবনের সামনে গাউস নগর কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে আবাসিক এলাকায় বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর নিউ ইস্কাটনের গাউসনগর এলাকার ২৫ নম্বর বাড়িটি ‘বৈদ্যুতিক লাইসেন্সিং বোর্ড’ বাণিজ্যিক ভবন বানানোর সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিশাল মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। সেইসাথে বাড়ির জায়গাটি স্থায়ী মসজিদের জন্য বরাদ্দ দেওয়ার দাবি জানান। গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজের পর নিউ ইস্কাটন গাউস নগর এলাকার সামনের মেইনরোডে ‘গাউস নগর কল্যান সমিতির’ উদ্যোগে এই কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধন থেকে ৩১ মার্চ সকালে ২৫ নম্বর বাড়ির সামনে গণজমায়েত কর্মসূচি পালনের ঘোষণা করা হয়। ওইদিন সেখানে দশতলা ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের কথা রয়েছে।
মানববন্ধনে-৩৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোক্তার সরদার, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, কাকরাইল মসজিদের বিশিষ্ট মুরব্বী ইয়াহিয়া, এ প্লাস গ্রুপের চেয়ারম্যান নাঈমসহ এলাকার সহস্রাধিক মানুষ অংশ নেন। এ সময় তারা আবাসিক এলাকায় বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণের প্রতিবাদে নানা শ্লোগান লেখা ব্যানার প্ল্যা-কার্ড বহন করে। আধ ঘন্টার মানববন্ধনটি একদিকে মগবাজার মোড় অন্যদিকে বাংলামোটর পর্যন্ত বিস্তৃতি লাভ করে।
মানবন্ধনে বলা হয়, রাজধানীর নিউ ইস্কাটনের গাউসনগর এলাকাটি সম্পূর্ণ আবাসিক। এখানে ৭ শতাধিক পরিবার স্থায়ীভাবে বসবাস করছে।  জনসংখ্যা রয়েছে তিন হাজারের বেশি। এই এলাকায় কোন অনাবাসিক/বাণিজ্যিক ভবন নেই। এতগুলো মানুষের বিপরীতে স্থায়ী কোন মসজিদ নেই। মসজিদ না থাকায় একটি ছোট নামাজ ঘরে নামাজ আদায়  করেন এলাকার মানুষ। জায়গা সংকুলান না হওয়ায় ছোট ঘরে ৪০ থেকে ৪৫ জন মুসল্লী নামাজ আদায় করতে পারেন। বাকী শত শত মুসল্লি আশপাশের গ্যারেজ, বারান্দা এবং রাস্তায় নামাজ আদায় করেন। বিশেষ করে জুম্মার নামাজে এবং রমজান মাসে রোদ-বৃষ্টি এবং ঝড়ে শত শত মুসল্লিকে কষ্টের শিকার হতে হয়। এমনকি নামাজের সময় যান চলাচলের রাস্তাও বন্ধ হয়ে যায়।
এই অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে গত ৯ ডিসেম্বর এই এলাকার সংসদ সদস্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ২৫ নম্বর বাড়িটি এলাকার মানুষের কাছে স্থায়ী মসজিদ নির্মাণের জন্য বরাদ্দ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কিন্তু কিছু দিন আগে এলাকার মানুষ জানতে পারে সরকারকে ভুল তথ্য দিয়ে বাড়িটি বৈদ্যুতিক লাইসেন্সিং বোর্ড বাণিজ্যিক ভবন হিসেবে বরাদ্দ নিয়েছে। এতে এলাকার মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। 
এলাকার বাসিন্দারা আরও জানান, গত ৪০ বছর ধরে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা বরদ্দ পেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে এই বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। কিন্তু হঠাৎ করে এখানে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ কেউ মেনে নিতে পারছে না। তারা বলছেন এখানে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করা হলে আবাসিক পরিবেশ বিঘিœত হবে।
মানববন্ধনে অংশ নিয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর মোক্তার সরদার বলেন, আবাসিক এলাকায় বাণিজ্যিক ভবন হতে দেওয়া হবে না। এলাকার নিরাপত্তা এবং পরিবেশ নষ্ট হতে দেবো না। প্রয়োজনে প্রতিদিন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে। এসময় তিনি বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণের সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তাদের পদত্যাগ দাবি করেন। আগামি রমজানের আগেই এখানে বানিজ্যিক ভবনের পরিবর্তে মসজিদ নির্মানের সিদ্ধান্ত চান এলাকার ৯ নম্বর বাড়ির মালিক মোহাম্মদ মাসুম।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গাউসনগর এলাকার ভিতরে নিউ ইস্কাটনের ২৫ নম্বর বাড়িটি বর্তমানে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। বাড়িটিতে কোন মানুষের বসবাস নেই। সরকারী কাগজপত্রেও বাড়িটি পরিত্যক্ত উল্লেখ করা হয়েছে। এবং সেখানে বাড়ির চারপাশেই আবাসিক ভবন রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এলাকাবাসীর আশঙ্কা এখানে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করা হলে আবাসিক এলাকার বৈশিষ্ট্য হারাবে। সেইসাথে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ আসা যাওয়া এলাকার মানুষের নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়বে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ