ঢাকা, শনিবার 30 March 2019, ১৬ চৈত্র ১৪২৫, ২২ রজব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

‘ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে হামলার নেপথ্যে মোসাদের হাত’

২৯ মার্চ, পার্সটুডে : নিউজিল্যান্ডের সবচেয়ে বড় মসজিদের চেয়ারম্যান দাবি করেছেন, ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে হামলার নেপথ্যে ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের হাত রয়েছে। লাভ নিউজিল্যান্ড হেট রেসিজম-এর আয়োজনে বর্ণবাদবিরোধী এক সমাবেশে যোগ দিয়ে অকল্যান্ডের ওমর ফারুক মসজিদের চেয়ারম্যান আহমদ ভামজি এ দাবি করেন।

আহমদ ভামজি তার বক্তব্যে আরো বলেন, ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে অতর্কিত বন্দুক হামলাকারী ব্রেন্টন ট্যারান্ট ‘ইহুদিবাদী ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান’ থেকে অর্থের জোগান পেয়েছিলেন।

টুইটারে পোস্ট করা এক ভিডিওতে ভামজিকে বলতে শোনা যায়, আমার প্রচ- সন্দেহ, এর পেছনে বেশ কয়েকটি গোষ্ঠী রয়েছে। বলতে কোনো দ্বিধা নেই, এই ঘটনায় অবশ্যই মোসাদের হাত রয়েছে।

বর্ণবাদবিরোধী ওই সমাবেশে তার এই বক্তব্যের সময় নিরবতা বিরাজ করছিল। এমন সময় ভেতর থেকে এক ব্যক্তি চিৎকার করে তার বক্তব্যকে সমর্থন দিয়ে বলেন, এটাই সত্য। ইসরাইল এর নেপথ্যে রয়েছে, এটাই সঠিক। ভামজি এ বিষয়ে তদন্তের আহ্বান জানিয়ে বলেন, দেখতে হবে এই বন্দুকধারী কোথা থেকে এ কাজের জন্য অর্থ পেয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মোসাদই এ সবের পেছনে রয়েছে। আমি যখন মোসাদের ব্যাপারে কথা বলি, তখন কেন ইহুদিদেরকে এর জন্য বিব্রত হতে হবে। আমাকে জবাব দিন।

তবে নিউজিল্যান্ডের ইসরাইলি দূতাবাস ভামজির এই বক্তব্যকে অনর্থক উল্লেখ করে নিন্দা জানিয়েছে। ওয়েলিংটনের ইসরাইলি দূতাবাস ভামজির বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে। তারা এক বিবৃতিতে জানায়, নিউজিল্যান্ডের জনগণের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে ইসরাইলবাসীও ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে মুসল্লিদের ওপর চালানো বর্বর হামলায় শোক জানিয়েছে। গত ১৫ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে নির্বিচারে গুলি চালায়। এতে ৫০ জন নিহত হয়। এর পরপরই নিউজিল্যান্ড পুলিশ তাকে আটক করে। পরে আদালত হাজির করা হলে আদালত তাকে রিমান্ডে পাঠায়। ওই হামলায় নিহতদের মধ্যে পাঁচজন বাংলাদেশি রয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ