ঢাকা, বোববার 31 March 2019, ১৭ চৈত্র ১৪২৫, ২৩ রজব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

আগ্রাসনের পক্ষে আবারো ট্রাম্প

চাতুর্য ও ছলাকলা দিয়ে প্রকৃত সত্যকে বেশিদিন ধামাচাপা দিয়ে রাখা যায় না। ফলে বিশ্ববাসী এখন স্পষ্টভাবেই বুঝতে পারছে যে, সন্ত্রাস, বর্ণবাদ ও ধর্মবিদ্বেষ বর্তমান সভ্যতার মূল সংকট। এই সংকট থেকে মুক্তি পেতে হলে সভ্যতার শাসকদের ফিরে আসতে হবে সত্য, ন্যায় ও মানবতাবাদের পথে। কিন্তু তেমন লক্ষণ তো দেখা যাচ্ছে না। ন্যায়ের পথে থাকলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গোলান মালভূমিকে ইসরাইলের অংশ হিসেবে স্বীকৃতি দেন কেমন করে? গোলান মালভূমির ওপর ইসরাইলের সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি দিয়ে ২৫ মার্চ সোমবার নথিতে সই করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ওয়াশিংটনে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠকের সময়ই তিনি আগ্রাসী ওই নথিতে সই করবেন। গত ২৪ মার্চ একথা জানিয়েছেন ইসরাইলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরাইয়েল কাৎজ। উল্লেখ্য যে, ১৯৬৭ সালে মধ্যপ্রাচ্যের আরব দেশগুলোর সঙ্গে ছয় দিন স্থায়ী এক যুদ্ধের পর ইসরাইল পশ্চিম তীর ও গাজায় ফিলিস্তিনি ভূমি ছাড়াও সিরিয়ার অন্তর্ভুক্ত গোলান মালভূমি নিজ দখলে নিয়ে আসে।
এদিকে গত ২৩ মার্চ ইউরোপীয় ইউনিয়নের ফরেন পলিসি চিফ ফেডেরিকা মগেরিনির মুখপাত্র এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ইইউ আন্তর্জাতিক আইন মেনে চলায় ১৯৬৭ সাল  থেকে দখলকৃত গোলানসহ অঞ্চলটির ওপর ইসরাইলের সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি দেয় না এবং এর কোনোটিকেই ইসরাইলের অংশ বলে মনে করে না ইইউ।’ উল্লেখ্য যে, ইসরাইল ১৯৮১ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে গোলানে তাদের বসতি বিস্তৃত করলেও তাতে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি মেলেনি। মিত্র দেশ আমেরিকাও এ বিষয়ে দূরত্ব বজায় রেখেছিল। তবে গত বছর তেলআবিব থেকে জেরুসালেমে দূতাবাস সরিয়ে আনা ট্রাম্প-প্রশাসনই শেষ পর্যন্ত গোলানে ইসরাইলি দখলদারিত্বকে স্বীকৃতি দেয়ার পদক্ষেপ নিল।
ট্রাম্পের এই উদ্যোগের নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া, তুরস্কসহ অনেক দেশ। সিরিয়া নিন্দা জানিয়ে বলে, এ অবস্থানের মধ্য দিয়ে ইসরাইলের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ‘অন্ধ পক্ষপাতিত্ব’ আবারো প্রকাশ পেয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রের বরাত দিয়ে সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানায়, ‘গোলান সিরিয়ার। এটি আবরদের ভূখণ্ড ছিল এবং থাকবে। এ বাস্তবতার কখনোই পরিবর্তন ঘটবে না। সম্ভাব্য সব উপায়ে গোলানের পবিত্র ভূমিকে দখলমুক্ত করার ব্যাপারে সিরিয়া এখন আরো বেশি দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।’ ফলে প্রশ্ন জাগে, ট্রাম্প প্রশাসন পৃথিবীকে কোন দিকে নিয়ে যেতে চায়?

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ