ঢাকা, মঙ্গলবার 9 April 2019, ২৬ চৈত্র ১৪২৫, ২ শাবান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

মার্চ মাসে রাজনৈতিক সন্ত্রাস

মুহাম্মদ ওয়াছিয়ার রহমান : [তিন]
ছাত্রলীগ ঃ ১ মার্চ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রিকেট খেলা নিয়ে শহীদুল্লাহ কলা ভবনের সামনে ছাত্রলীগ দু’গ্রুপের মাঝে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আসিফ, অনিক ও মারুফ আহত হয়। আহত অনিক রাবি ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর অনুসারী এবং আসিফ ও মারুফ শাখা সভাপতি গোলাম কিবরিয়ার সমর্থক। গাজীপুরের কাপাসিয়ায় রায়েদ ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচনত্তোর সহিংসতায় ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতাদের নামে মামলা দায়ের হয়। মামলার আসামীরা হলো- শহীদ তাজউদ্দিন সরকারী কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি শাকিল মোল্লা, মিনহাজ, সৌরভ, হাফিজুল, বাপ্পি, দিপ্ত, ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শাকিল, রাব্বি ও সুমনসহ ১৬ জন। ৪ মার্চ বরিশাল শহরের ফকিরবাড়ী রোডে ছাত্রলীগ নেতা ও বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হিমু বাশারের বাড়ীর সামনে বিয়ের দাবীতে অনশন করে এক ছাত্রী। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক থাকায় তারা বিভিন্ন সময়ে একাধিক হোটেলে সময় কাটান এবং এমনকি লঞ্চে এক কেবিনে ঢাকায় গমন করেন। পরে হিমু বিয়ে করতে অস্বীকার করায় মেয়েটি এই ব্যবস্থা নেয়। নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে উপজেলা পরিষদের সামনে ছাত্রলীগ দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ইমন ও আব্দুল কাদেরসহ ৭ জন আহত হয়।
৫ মার্চ পিরোজপুর শহরের রাব্বি মার্কেটের সামনে সাবেক ছাত্রলীগ জেলা যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার মাহমুদ সজলকে পিটিয়ে আহত করে ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ হোসেন, শামীম ও আলীমসহ অনেকে। পুলিশ ৫ জনকে আটক করে। ৮ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হল মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে অসতর্ক অবস্থায় হল প্রাধ্যক্ষ ও সাবেক বাংলাদেশ মানবধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডঃ মিজানুর রহমানের ছেলের পায়ের সাথে বাইয়ান নামে এক ছাত্রের ছোঁয়া লাগে। এ নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা ডঃ মিজানের ছেলেকে অপমান করে এবং ডঃ মিজানের পদত্যাগ দাবী করে। ঘটনার পরে ডঃ মিজানুর রহমান পতদ্যাগ করেন। চট্টগ্রামের চান্দনাইশে আমানত ছফা বদরুন্নেছা মহিলা ডিগ্রী কলেজের নতুন একাডেমিক ভবন থেকে ডঃ অলি আহমেদের ভাই আলী আহমেদের নাম মুছে দেয় ছাত্রলীগ। ১০ মার্চ সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু চত্বরে ছাত্রলীগ দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর জাহিদ হাসান, সহকারী প্রক্টর আবু হেনা পহিল, আইপিই বিভাগের শিক্ষক মাহতির মোহাম্মদ বাপ্পি, ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল বারী সজীব, রেজাউল করীম তানভীর, সোহেল রানা ও সাব্বির মামুনসহ আহত ১৫ জন। ছাত্রলীগ শাবি নেতা সাখাওয়াত হোসেন গ্রুপ ও মুশফিকুর রহমান জিয়া গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সিরকার অপুকে শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে বহিস্কার করে ছাত্রলীগ। ১১ মার্চ নারায়নগঞ্জের ফতুল্লায় ছাত্রলীগ নেতা ও তেল চোর সিন্ডিকেটের হোতা ইকবাল হোসেন  চৌধুরীকে ৮ লাখ টাকার চোরাই তেলসহ আটক করে পুলিশ। পরে আদালতে ১৬৪ ধারা মতে স্বীকারোক্তিমূলক জবাববন্দী দেয় ইকবাল।
১২ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি নূরুল হক নূর ও তার সমর্থকদের ওপর হামলা করে ছাত্রলীগ। ১৩ মার্চ সুনামগঞ্জের দিরাই উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী হুমায়রা আক্তার মুন্নিকে হত্যার দায়ে ছাত্রলীগ কর্মী ইয়াহিয়া সরদারকে ফাঁসি দেয় আদালত। গত ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর মুন্নিকে হত্যা করা হয়। ১৯ মার্চ বগুড়ার আদমদীঘিতে শান্তাহার উপজেলা নির্বাচন নিয়ে ছাত্রলীগ দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, আওয়ামী লীগ নেতার বাড়ীতে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। হামলায় ছাত্রলীগ নেতা শাকিল হোসেনকে পারপিট করে। পরে পুলিশ ছাত্রলীগ উপজেলা সভাপতি মশিউর রহমান সজল ও তার ক্যাডার একরামুল হক শুভকে পিস্তলসহ আটক করে। ২৩ মার্চ সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে দলীয় কোন্দলে ছাত্রলীগ নেতা রাজিব সরকার আহত হয়। ছাত্রলীগ জিয়া গ্রুপ ও সাখাওয়াত গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্বে এই ঘটনা ঘটে। ২৯ মার্চ নারায়নগঞ্জের আড়াইহাজারে থানায় ঢুকে পুলিশকে শাসাল ছাত্রলীগ নেতা ও সরকারী সফর আলী কলেজের জিএস আল-আমিনসহ কয়েকজন। থানায় একটি জিডি নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা থানায় গিয়ে জোর করে রেকর্ড খোঁজাখুজি করে। ঘটনায় পুলিশের এএসআই শরীফকে ক্লোজ করা হয়। বগুড়ার ধুনটে গোসাইবাড়ী হাটে মুদি দোকানী বরুণ মন্ডলকে কুপিয়ে জখম করে ছাত্রলীগ উপজেলা সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ স্বপন ও তার সহযোগীরা।
যুব লীগ ঃ ৭ মার্চ বগুড়ায় যুবলীগ সাবেক নেতা আব্দুল মতিন সরকারের ব্যাংক হিসাব জব্দ ও মাল ক্রোকের আদেশ দেয় আদালত। আব্দুল মতিন সরকার ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন মামলার আসামী। ১১ মার্চ ঢাকায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে কোনো ধরনের ঘোষণা ছাড়াই অস্ত্রসহ বিমানে ওঠে যুবলীগ চৌগাছা উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ  চৌধুরী। পরে পুলিশ তাকে আটক করে। ১৬ মার্চ নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে মোগরাপাড়া দমদমা এলাকায় সাংবাদিক আব্দুস সাত্তারের ভাই সুরুজ্জামানকে কুপিয়ে আহত করে যুবলীগ মোগরাপাড়া ইউনিয়ন সভাপতি কালাম ও তার ভাই জামালসহ আরো কয়েকজন। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত মর্মে অয়ন, শাকিল ও আরাফাতকে আটক করে। ২২ মার্চ নারায়নগঞ্জের ফতুল্লার আরামবাগ এলাকায় যুবলীগ দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ২৫ জন আহত হয়। যুবলীগ নেতা সানজু গ্রুপ ও নিজাম গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। ২৩ মার্চ নরসিংদীর পলাশে কেন্দুয়াবো গ্রামে এক সালিশী বৈঠকে ডাঙ্গা  ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে হামলা ও গুলিতে যুবলীগ নেতা শহীদুল ইসলাম বাদলসহ ৫ জন আহত হয়। ২৫ মার্চ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে পুটিখালী ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মিজান খানকে দৈবজ্ঞহাটি এলাকা থেকে ১১ পিস ইয়াবাসহ আটক করে পুলিশ। ২৬ মার্চ ফরিদপুর শহরে বিএনপির স্বাধীনতা দিবসের মিছিলে গোয়ালচামট ও পূর্ব খাবাসপুর জোড়া ব্রিজের কাছে পৃথক দু’টি হামলা করে যুবলীগ-ছাত্রলীগ-স্বেচ্ছাসেবক লীগ। তাদের হামলায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী ইসা, জেলা যুবদল প্রচার সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান সেন্টু, কোষাধ্যক্ষ ইলিয়াস মোল্লা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল আহ্বায়ক জুলফিকার হোসেন জুয়েল, জেলা যুবদল সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া স্বপন, বিএনপি নেতা দিলদার হোসেন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি লিটন, ছাত্রদল নেতা আল-আমিন তুষার ও শ্রমিক দল নেতা বিল্লাল তালুকদারসহ অনেকে আহত হয়।
মহিলা আওয়ামী লীগ ঃ ২৭ মার্চ খুলনা মহানগরীর বাগমারা এলাকায় ঠিকাদার মিজানুর রহমান বালা হত্যা মামলায় মহিলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সাবিহা খাতুনকে আটক করে রিমান্ডে নেয় পুলিশ।
বিএনপি ঃ ৩ মার্চ ঢাকায় বিএনপি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে অংশ নেয়ায় শতাধিক নেতাকে বহিষ্কার করে দলটি। বহিষ্কার হওয়া নেতারা হলো- হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এস.এম শাহজাহান, মঞ্জুর উদ্দিন আহমেদ শাহীন, চুনারুঘাট উপজেলা সভাপতি এস. লিয়াকত হোসেন, সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দল সহ-সম্পাদক খালেদুর রশীদ ঝলক, হবিগঞ্জ জেলা কৃষদ দল সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান আওয়াল, মাধবপুর পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুল আজিজ, বনিয়াচং মহিলা দল আহবায়ক তানিয়া খানম, মাধবপুর মহিলা দল আহ্বায়ক সুফিয়া আক্তার হেলেন, বাহুবল উপজেলা মহিলা দল আহবায়ক নাদিরা খানম, লাখাই উপজেলা যুবদল যুগ্ম-সম্পাদক তাউস আহমেদ, উপদেষ্টা মাজহারুল ইসলাম ডালিম, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা সহ-সভাপতি জিল্লুর রহমান সোয়েব, দক্ষিণ সুরমা বিএনপির উপদেষ্টা শামসুল আলম, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা যুবদল নেতা সুন্দর আলী, উপদেষ্ট মাওলানা রশীদ আহমেদ, জকিগঞ্জ উপজেলা মহিলা দল সভাপতি ইয়াহইয়া বেগম ও জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদল যুগ্ম-আহ্বায়ক ফজলে আশরাফ মান্নাসহ শতাধিক নেতা।
৩ মার্চ ফরিদপুরে বিএনপি নেত্রী  চৌধুরী নায়াব ইউসুফ একটি হত্যা মামলায় আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আদেন করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়। সিলেটে বিএনপির ১১২ নেতা-কর্মী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠায়। ৫ মার্চ ঢাকায় বিএনপির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেয়ায় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলা যুবদল সহ-সভাপতি লিটন আহমেদ, শ্রীমঙ্গল উপজেলা বিএনপি নেত্রী হেলেনা আক্তার  চৌধুরী, কমলগঞ্জ উপজেলা বিএনপি নেতা আব্দুল মুয়ীন ফারুক, পারভীন আক্তর লিলি, চট্টগ্রামের লোহাগড়া বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস.এম ছলিম উদ্দিন চৌধুরী, পটিয়া উপজেলা বিএনপি নেত্রী আফরোজা বেগম জলি, চান্দনাইশ উপজেলা বিএনপি নেত্রী নেওয়াজ বেগম এবং বোয়ালখালী উপজেলা বিএনপি নেত্রী শাহিদা আক্তার শেফুকে বহিস্কার করা হয়। শেরপুরের নলিতাবাড়ী ও সদরে বিএনপির ১০০ নেতা-কর্মী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ