ঢাকা, বুধবার 10 April 2019, ২৭ চৈত্র ১৪২৫, ৩ শাবান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

মাহাথির-আনোয়ারের ভবিষ্যৎ এবং কিছু চ্যালেঞ্জ

৯ এপ্রিল, মালয়মেইল ডট কম : মালয়েশিয়ার রাজনৈতিক জোট পাকতান হারপান সম্প্রতি দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের উদ্দেশ্যে একটি বার্তা দিয়েছে আর তা হচ্ছে যত দ্রুত সম্ভব দেশটির আরেক রাজনৈতিক নেতা আনোয়ার ইব্রাহীমের নিকট ক্ষমতা হস্তান্তরের হিসেবে হিসেবে তাকে ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হোক।

অস্ট্রেলিয়ার সিডনি ভিত্তিক থিংক ট্যাঙ্ক ‘Lowy Institute’ এর বরাত দিয়ে এমন খবর পাওয়া যাচ্ছে।

‘Asia Institute in the University of Tasmania’ এর অধ্যাপক এবং ‘Lowy Institute’ এর গবেষক ড. জেমস চিন বলেন, ‘মাহাথির মোহাম্মদের উচিত দ্রুততার সাথে আনোয়ার ইব্রাহীমকে তার ডেপুটি হিসেবে নিয়োগ দেয়া এবং প্রশাসনের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিতে পরিণত করা যাতে করে আনোয়ার ক্ষমতা গ্রহণ করতে যাচ্ছে বিশ্ববাসী এমন বার্তা পেতে পারে।’

‘আনোয়ারকে ডেপুটি করার জন্য অতি সত্বর একটি ঐক্যমত্যে পৌঁছানো জরুরী এবং একই সাথে তাকে নিয়োগের সুনির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা কার প্রয়োজন।’

পাকতান হারপানের প্রকাশিত প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিল ‘একটি নতুন মালয়েশিয়া: নিকট ভবিষ্যতের চারটি প্রতিকূলতা।’

ড. জেমস চিন বলেন, উপরোল্লিখিত চারটির মধ্যে দুটি হচ্ছে আনোয়ার ইব্রাহীমের রাজনীতির ভবিষ্যতে ‘তার ক্ষমতা গ্রহণের রাজনৈতিক অপলাপ’ বাদ দেয়া এবং এর মাধ্যমে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আনয়ন করা।

তিনি বলেন, ‘মালয়েশিয়ার মত একটি দেশে যেখানে সরকারের সমস্ত ক্ষমতা অতি উচ্চ পর্যায়ে কেন্দ্রীভূত এবং তা প্রধানমন্ত্রীর অফিস দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় সেখানে এসব দূর করার জন্য আনোয়ার ইব্রাহীমের দক্ষতা যাচাই করা প্রয়োজন।’

কয়েক মাস পূর্বেও আনোয়ার ইব্রাহীম তার এবং ড. মাহাথিরের মধ্যকার ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়াকে একটি ধীর চলমান বিষয় বলে অভিহিত করেছিলেন এবং তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছিলেন যে, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের জন্য তাকে অন্তত আরো দুবছর অপেক্ষা করতে হতে পারে। যদিও ড. মাহাথির বার বার বলে আসছিলেন যে, তিনি অতি সত্বর আনোয়ার ইব্রাহীমের নিকট ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন কিন্তু তিনি সুনির্দিষ্ট কোনো দিন তারিখ ঘোষণা করেন নি।

তবে পাকতান হারপানের কিছু নেতা মনে করেন প্রশাসন কে ঢেলে সাজানোর জন্য মাহাথির মোহাম্মদের পূর্ণ মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা জরুরী।

এরই মধ্যে মালয়েশিয়ার রাজনীতিতে গুজব ছড়িয়ে পড়ে যে, আসন্ন রমজান মাসে দেশটির অর্থ মন্ত্রী মোহাম্মদ আজমিন আলী ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিতে চলেছেন। কিন্তু আজমিন আলী এ খবরের সত্যতা অস্বীকার করেছেন।

মালয়েশিয়ার বর্তমান ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন আনোয়ার ইব্রাহীমের স্ত্রী এবং পিকেআরের সাবেক প্রেসিডেন্ট ড. ওয়ান আজিজাহ ওয়ান ইসমাইলি।

ড. জেমস চিন অবশ্য মালয়েশিয়ার রাজনীতিতে ইসলামের ভূমিকা এবং ইসলামকে রাজনীতিকরণের দৃশ্য পরিবর্তনের জন্য তার গবেষণায় প্রস্তাব এনেছেন।

‘Jeffrey Cheah Institute on South-east Asia’ এর সাবেক একজন গবেষক বলেন, ‘অনৈসলামিক বিশ্বাস সমূহের জন্য দাপ্তরিক ভাবে যদি মত প্রকাশের জন্য প্লাটফর্ম দেয়া যায় তবে এর মাধ্যমে আন্তঃধর্মীয় আলোচনায় তা অবধঅন রাখতে পারবে।’

ড. জেমস চিন বলেন, মালয়েশিয়ায় রাজনৈতিক ইসলামের আগমন এবং প্রশাসনের সর্বত ধর্মীয় করণ দেশটিতে হয়ত অ-সহিষ্ণু ইসলামের বিকাশ ঘটবে যা মুসলিম এবং অমুসলিমদের কে মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দিবে।

ড. জেমস চিন তার প্রতিবেদনে পাকতান হারপানের প্রশাসনের জন্য অন্য দুটি প্রতিকূলতার তুলে ধরেন। এর একটি হচ্ছে- ‘মালয় এজেন্ডা এবং ভূমিপুত্র নীতি’, আর অন্যটি হচ্ছে- ‘মালয়েশিয়ান চুক্তি আইন ১৯৬৩।’

তিনি বলেন, ‘দেশটির প্রশাসন যদি এসব প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠতে না পারে তবে তা শুধুমাত্র রাজনীতিকে অস্থিতিশীল করে দিবে না বরং তা ২০১৮ সালের নির্বাচনে করা প্রশাসনের পূণর্গঠনের প্রতিশ্রুতিকে ভ-ুল করে দিবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ