ঢাকা, মঙ্গলবার 21 May 2019, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

জাজিরা প্রান্তে বসল ১১তম স্প্যান, দৃশ্যমান ১৬৫০ মিটার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিলারের ওপর বসল ১১তম স্প্যান। এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো এক হাজার ৬৫০ মিটার। আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটে সেতুর ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিলারের ওপর ধুসর রংয়ের ১৩ দশমিক ৬ মিটার প্রস্থ, ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ও তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের ‘৬-সি’ স্প্যানটিকে নির্ধারিত পিলারের ওপর সফলভাবে বসানো হয়েছে।

সেতু বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. হুমায়ুন কবীর জানান, মঙ্গলবার সকাল ৯টায় পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তের ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিয়ারের উপর স্প্যানটি বসানো হয়। এ নিয়ে জাজিরা প্রান্তে নয়টি এবংমাওয়া প্রান্তে দুটি স্প্যান বসল।

ইতোমধ্যে সেতুর প্রায় ৭৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে জানিয়ে হুমায়ুন বলেন, “এপ্রিল মাসে দুটি স্প্যান বসানো হয়েছে। মে মাসে আরও দুইটি এবং চলতি বছরের মধ্যে সব কয়টি স্পেন বসিয়ে সেতুটি দৃশ্যমান করে তুলবো বলে আশা করছি।”

সেতু বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, মাওয়ার মুন্সীগঞ্জের কুমারভোগের বিষেশায়িত জেডি থেকে ১১তম স্প্যান নিয়ে একটি শক্তিশালী ক্রেন সোমবার সকালে রওনা হয়ে বিকালে জাজিরা নাওডোবা এলাকায় পৌছায়।  সকাল ৯টার দিকে পিয়ারের উপর বসানোর জন্য স্প্যানটি তোলা হয়।

এর আগে সোমবার (২২ এপ্রিল) সকাল ৮টায় মুন্সিগঞ্জের মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ৩ হাজার ৬০০ টিন ধারণ ক্ষমতার ‘তিয়ান ই’ ক্রেন বহন করে রওয়ানা দেয়। এরপর সকাল সোয়া ১০টায় পৌঁছায় নির্ধারিত পিলারের কাছে।

পদ্মাসেতুর উপ-সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর  জানান, জাজিরা প্রান্তে সফলভাবে সেতুর ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় ‘৬-সি’ স্প্যানটি। পুরো পদ্মাসেতুতে ১১টি স্প্যান বসানোর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো সেতুর এক হাজার ৬৫০ মিটার। এছাড়া মাওয়া প্রান্তে ১৪ ও ১৫ নম্বর পিলারের ওপর বসবে ১২তম স্প্যানটি।এরজন্য মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে ‘৩-বি’ রং করা হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, ২৯৪টি পাইলের মধ্যে ২৫৫ টি কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া জাজিরা প্রান্তে রেলওয়ে বক্স স্ল্যাব বসেছে ২৮৮টি, রোডওয়ে বক্স স্ল্যাব ৬টি।

২০১৭ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর পদ্মা সেতুর প্রথম স্প্যান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি দ্বিতীয়, ১০ মার্চ তৃতীয়, ১৩ এপ্রিল চতুর্থ, ২৯ জুন পঞ্চম স্প্যান বাসানো হয়। এরপর ২০১৯ সালে ২৩ জানুয়ারি ষষ্ঠ, ২০ ফেব্রুয়ারি সপ্তম, ২০মার্চ অষ্টম, ও ১৮ এপ্রিল নবম স্প্যান বসানো হয়।

আর মুন্সীগঞ্জের মাওয়া পয়েন্টের ৪ ও ৫ নম্বর পিয়ারে গত বছর এবং চলতি বছরের ১৮ এপ্রিল ১৩ ও ১৪ পিয়ারের উপর দশ নম্বর স্প্যানটি বসানো হয়।

হুমায়ুন বলেন, ১১ তম স্প্যানটি বসানোর মধ্যদিয়ে পদ্মাসেতুর কাজ আর একধাপ এগিয়ে গেলো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ