ঢাকা, শুক্রবার 26 April 2019, ১৩ বৈশাখ ১৪২৬, ১৯ শাবান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

তুরস্ককে যারা সবক দেয় তাদের রক্ত ঝরানোর ইতিহাস রয়েছে:এরদোগান

২৫ এপ্রিল, রয়র্টাস, ইন্টারফ্যাক্স   নিউজ এজেন্সি : তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান বলেছেন, যারা মানবাধিকার, গণতন্ত্র, আর্মেনিয়ান সমস্যা এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তুরস্ককে সবক দেয় তাদের সবারই রক্ত ঝরানোর ইতিহাস রয়েছে।

গত বুধবার রাজধানী আঙ্কারায় সরকারি আর্কাইভ সংরক্ষণ এবং ঐতিহাসিক গবেষণাবিষয়ক একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে এ কথা বলেন তিনি। এরদোগান বলেন, ২৫ বছর আগে রুয়ান্ডায় গণহত্যা চালিয়ে আট লাখ মানুষ হত্যায় ফ্রান্সের সম্পৃক্ততার বিষয়টি এখন স্পষ্ট। অথচ এখন তারা আমাদেরকে মানবাধিকার শেখাতে চায়। গণহত্যা চালানো ফ্রান্স কোনো পরামর্শ দেয়ারই যোগ্যতা রাখে না। আলজেরিয়া ও রুয়ান্ডায় কারা গণহত্যা চালিয়েছে, তা আমরা ভালোভাবেই অবগত আছি।

বিগত শতাব্দীতে গণহত্যা ও নির্যাতনের জন্য যারা দায়ী এখন তারা মানবাধিকার ও স্বাধীনতার মুখোশ পরিধান করেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এরদোগান পশ্চিমা বিশ্বের সমালোচনা করে বলেন, তারা মানুষ এবং প্রকৃতির ওপরে বর্বরোচিত যুদ্ধ সব স্বার্থের ওপরে দেখে।

জুলাইতেই এস-৪০০ হস্তান্তর করবে রাশিয়া: গত বুধবার রাশিয়ার ইন্টারফ্যাক্স নিউজ এজেন্সির বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এসব তথ্য জানায়।

আলেকজান্ডার মিখেভ ইন্টারফ্যাক্সকে বলেন, ইতোমধ্যে সবকিছু আলোচনা এবং রাজি হয়েছে।

রাশিয়ার সঙ্গে তুরস্ক এস-৪০০ চুক্তি সই করলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার হুমকি দিয়েছে। এ নিয়ে আঙ্কারা বলেছে, এস-৪০০ ক্রয় নিষেধাজ্ঞা জারি করা উচিত নয় কারণ তুরস্ক ওয়াশিংটনের প্রতিপক্ষ নয় এবং ন্যাটোর জোটের প্রতি অঙ্গীকারবদ্ধ।

প্রসঙ্গত, তুরস্ক ১৯৯৯ সালে ১০০টি এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান কেনার জন্য আমেরিকার সঙ্গে চুক্তি করেছে। এর মধ্যে গত বছরের ২২ জুলাই প্রথম চালান হিসেবে একটি বিমান হস্তান্তর করে আমেরিকা।

ন্যাটোভুক্ত দেশ তুরস্ক আমেরিকা নেতৃত্বাধীন কয়েকটি দেশের এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান তৈরি ও কেনার প্রকল্পে যুক্ত রয়েছে। অন্যান্য দেশগুলো হচ্ছে আমেরিকা, ইংল্যান্ড, ইতালি, নেদারল্যান্ড, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নরওয়ে এবং ডেনমার্ক।

তুরস্ক রাশিয়ার এস-৪০০ আকাশ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা ক্রয়ে অটল থাকলে যুক্তরাষ্ট্র সিনেটে তুরস্কের বিরুদ্ধে অত্যাধুনিক এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান না দিতে বিল পাস করে।

এদিকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে এস-৪০০ পাওয়ার জন্য রাশিয়ার সঙ্গে ২ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি করে তুরস্ক।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ