ঢাকা, মঙ্গলবার 7 May 2019, ২৪ বৈশাখ ১৪২৬, ১ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

জাকাত মন্ত্রণালয় সময়ের দাবি

‘জাকাত থেকেই ৩০ হাজার কোটি টাকা আসতে পারে’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন মুদ্রিত হয়েছে পত্রিকান্তরে। ৫ মে তারিখে মুদ্রিত প্রতিবেদনটিতে বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে বলা হয়, দেশের অর্থনীতির যে আকার তাতে ৩০ হাজার কোটি টাকার বেশি জাকাত আদায় সম্ভব। আর এ পরিমাণ জাকাত আদায় হলে দেশে কোন গরিব থাকবে না বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। ৪ মে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে সেন্টার ফর জাকাত ম্যানেজমেন্ট আয়োজিত সেমিনারে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ বলেন, জাকাত ব্যবস্থাপনায় দুর্বলতার কারণেই দেশে বৈষম্য বাড়ছে। মুসলিম বিশ্বে বর্তমানে যে ক্ষুধা-দারিদ্র্য বিরাজ করছে, জাকাতের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে তা দূর করা সম্ভব। আর দেশে অর্থনীতির যে আকার তাতে ৩০ হাজার কোটি টাকার বেশি জাকাত আদায় সম্ভব।
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম দেশে আয়বৈষম্য নিরসন ও দারিদ্র্য বিমোচনে জাকাতের প্রাতিষ্ঠানিকীকরণের ওপর গুরুত্ব দেন। তিনি বলেন, বর্তমানে যেভাবে জাকাত দেওয়া হয় তাতে গ্রহীতা সাময়িকভাবে উপকৃত হয়, কিন্তু তা টেকসই হয় না। প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে জাকাত আদায় ও বিতরণ করলে দারিদ্র্য বিমোচন টেকসই হবে। কর ব্যবস্থাপনায় জাকাতকে প্রাধিকার দেওয়া যায় কিনা তা বিবেচনা করতেও সরকারকে অনুরোধ করেন তিনি। সেন্টার ফর জাকাত ম্যানেজমেন্ট আয়োজিত সপ্তম জাকাত ফেয়ারের উদ্বোধন করেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান। তিনি বলেন, জাকাত দারিদ্র্য বিমোচনের অন্যতম হাতিয়ার। সমতা ও ন্যায্যতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিত্তবানদের পরিকল্পিত উপায়ে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে জাকাত দেওয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।
মন্ত্রীমহোদয়সহ বিশেষজ্ঞরা জাকাতের সম্ভাবনা ও জাকাত ব্যবস্থাপনার ব্যাপারে যে বক্তব্য রেখেছেন তা জাতির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও আশাপ্রদ। তবে এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন যে, গবেষণার আলোকে জাকাত ব্যবস্থার সম্ভাবনা সম্পর্কে এর আগেও আমরা অবগত হয়েছি। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো, জাকাতের সম্ভাবনাকে বাস্তবে কার্যকর করার ব্যাপারে কাক্সিক্ষত পর্যায়ে পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যায়নি। দারিদ্র্য বিমোচন ও জাতীয় সমৃদ্ধি এত বড় সম্ভাবনাকে শুধু বিত্তবান ও সামাজিক সংগঠনের সদিচ্ছার ওপর ছেড়ে দিলে হবে না, সরকারকেও যথাযথ পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। সময়ের দাবি মেটাতে পৃথক জাকাত মন্ত্রণালয়ও গঠন করা যেতে পারে।
সেই সাথে জাকাতের অর্থ তার সঠিক খাতে সরকার খরচ করবেন, সে আস্থা জনগণের থাকতে হবে সরকারের উপর এবং সে আস্থা রাখার মতো প্রমাণও সরকারকে দিতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ