ঢাকা, ‍শনিবার 11 May 2019, ২৮ বৈশাখ ১৪২৬, ৫ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

বাঘায় ‘গোলাগুলীতে’ মাদক ব্যবসায়ী কালু নিহত

রাজশাহী অফিস : রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় ‘গোলাগুলীতে’ এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ২টার দিকে উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের কেশবপুর গ্রামে হামিদুল ইসলামের আমবাগানে কথিত এই গোলাগুীলর ঘটনা ঘটে।
পুলিশের ভাষ্য, নিহত ব্যক্তির নাম জিয়ারুল ইসলাম ওরফে কালু (৩৮)। তিনি বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া গ্রামের মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে। মাদক ব্যবসায়ী কালুর বিরুদ্ধে বাঘা থানায় ১টি অস্ত্র মামলা ও মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনসহ বিভিন্ন অপরাধে ১০টি মামলা রয়েছে। তাঁর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। বাঘা থানার পুলিশ জানায়, পুলিশের কাছে খবর আসে, হামিদুল ইসলামের আমবাগানে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলী চলছে। এর ভিত্তিতে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে অভিযানে যায়। মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলী ছোড়ে। আত্মরক্ষায় পুলিশও পাল্টা গুলী ছোড়ে। এতে পুলিশের ৯ জন সদস্য আহত হন। মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ গুলীবিদ্ধ অবস্থায় জিয়ারুল ইসলাম ওরফে কালুকে উদ্ধার করে বাঘার স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই ব্যক্তিকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে নিহত ব্যক্তির পরিচয় শনাক্ত করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে ১টি বিদেশী পিস্তল, ১টি ম্যাগজিনসহ ২ রাউন্ড গুলী ও ৫৩ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়। আহত পুলিশ সদস্যরা একই হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। অন্যদিকে নিহতের স্ত্রী ইসমা বেগম দাবি করেন, আগের দিন বুধবার রাত ১১টার দিকে কিশোরপুর এলাকা থেকে তার স্বামী ও ব্যবসায়ী পার্টনার চান্দু মোটর সাইকেলযোগে বাড়ি ফিরছিল। পথিমধ্যে গোকুলপুর এলাকার হাজরাপাড়া বালুরঘাট এলাকায় গতিরোধ করে সাদা পোষাকধারি ৪ জন লোক মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। তার স্বামীর মোটরসাইকেলটি ফেলে রেখে যায়। পরে তার নিহত হওয়ার খবর আসে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ