ঢাকা, রোববার 12 May 2019, ২৯ বৈশাখ ১৪২৬, ৬ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সরকার খালেদা জিয়ার সকল মানবাধিকার কেড়ে নিয়েছে -মির্জা ফখরুল

গতকাল শনিবার নয়াপল্টনস্থ বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের উদ্যোগে কিশোরগঞ্জে চলন্ত বাসে নার্স শাহিনুর আক্তার তানিয়াকে গণধর্ষণ ও হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : কারাবন্দী দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে ‘গণতন্ত্রের মা’ আখ্যা দিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গণতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়া আজ প্রতিহিংসার শিকার হয়ে পরিত্যক্ত একটি নির্জন কারাগারে বন্দী রয়েছেন। এই সরকার তার সকল মানবাধিকার কেড়ে নিয়েছে। আন্তর্জাতিক মা দিবস উপলক্ষে গতকাল শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।
বাণীতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল মায়ের প্রতি আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, আমি তাদের অব্যাহত সুখ ও সমৃদ্ধি কামনা করি। ‘মা’ শব্দটি ছোট হলেও এর পরিধি বিশাল। “মা” একটি পবিত্র শব্দ, যে ভাষায়ই তাকে সম্বোধন করা হোক না কেন, সর্বকালে সর্বক্ষেত্রে সৃষ্টির আদিলগ্ন থেকে দেশ ও কালের সীমানা অতিক্রম করেও মায়ের আত্মত্যাগের ভালবাসার রুপ অনেকটা অভিন্ন। সন্তানদের জন্য কঠিন ত্যাগ স্বীকার কেবল মায়েদের পক্ষেই সম্ভব। তিনি সন্তানের জন্য কষ্ট যাতনা মুখ বুজে সহ্য করেন, অসীম ত্যাগ স্বীকার করেন। মা’র অনুগ্রহ ছাড়া কোন প্রাণীরই প্রাণধারণ করা অসম্ভব। সত্যের জন্য, সম্মানের জন্য, আত্মমর্যাদার জন্য মায়ের সান্নিধ্য সন্তানকে যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলে। অনেক শক্তির আধার একজন মা।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘গণতন্ত্রের মা’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আজ প্রতিহিংসার বিচারে পরিত্যক্ত একটি নির্জন কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়েছে। কেড়ে নেয়া হয়েছে মানুষ হিসেবে তার সকল মানবাধিকার। অথচ আর্থিক ও সামাজিক অগ্রগতিতে এদেশে দেশনেত্রীর  অবদান কিংবদন্তিতুল্য। তিনি বলেন, রাষ্ট্রের গণতান্তিক বিকাশ এবং অগ্রসর সমাজ বিনির্মাণের ক্ষেত্রে তার রাজনৈতিক জীবন কেটেছে নিরবচ্ছিন্ন সংগ্রাম ও নিরলস পরিশ্রমে। তার নেতৃত্বে বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় নারী শিক্ষার ব্যাপক প্রসার ঘটেছিল। বিএনপি’র শাসনামলে স্কুল থেকে ছাত্রীরা যাতে ঝরে না পড়ে তার জন্য দেশনেত্রী নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। আজকের এই দিনে নারী শিক্ষার আলোকবর্তিকা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া স্বেচ্ছাচারীর কারাগারে বন্দী-তাকে নি:শর্ত মুক্তি দিতে হবে। মা দিবসে আমি দেশের সকল নাগরিককে আহবান জানাবো তারা যেন মায়েদের প্রতি যথাযোগ্য সম্মান ও কর্তব্য পালন করেন, কারণ কেবলমাত্র সন্তানদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠার একমাত্র শর্ত হচ্ছে মায়ের মর্যাদা সম্পর্কে সচেতন থাকা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ