ঢাকা, বুধবার 15 May 2019, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৯ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

উপসাগরের মার্কিন বাহিনী এখন নিশানা--ইরানি কমান্ডার

১৪ মে, রয়টার্স : ইরানের রেভ্যুলেশনারি গার্ডের এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেছেন, উপসাগরে মার্কিন সামরিক বাহিনীর উপস্থিতি এতদিন গুরুতর হুমকি হিসেবে বিবেচিত হলেও, এখন এটি একটি নিশানায় পরিণত হয়েছে।

রেভ্যুলেশনারি গার্ডের মহাকাশ বিভাগের প্রধান আমিরআলি হাজিজাদেহ এ মন্তব্য করেছেন বলে ইরানি বার্তা সংস্থা ইসনার বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা।

মার্কিন সামরিক বাহিনী সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যে একটি বিমানবাহী রণতরী ও বেশ কয়েকটি বি-৫২ বোমারু বিমানসহ অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে।

উপসাগরে গত মাস থেকে টহল দেওয়া একটি রণতরীর জায়গায় যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস আব্রাহাম লিংকনকেও পাঠানো হচ্ছে।

ওই অঞ্চলে মার্কিন বাহিনীর ওপর ইরানের দিক থেকে আসা হুমকির ‘স্পষ্ট ইঙ্গিত’ দেখে তা মোকাবেলায় এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা।

“একটি রণতরীতে ৪০ থেকে ৫০টি বিমান এবং ৬ হাজার সৈন্য থাকে, অতীতে এগুলো আমাদের জন্য গুরুতর হুমকি ছিল, কিন্তু এখন তা একটি নিশানা; হুমকি পরিণত হয়েছে সম্ভাবনায়। তারা যদি অগ্রসর হয়, আমরা একেবারে তাদের মাথায় আঘাত করবো,” বলেছেন আমিরআলি হাজিজাদেহ।

তেহরানের পরমাণু ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিতে লাগাম টানাতে এবং মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে তাদের প্রভাব রোধ করতে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ইরানের তেল রপ্তানি বন্ধের উদ্যোগ নিয়ে দেশটির ওপর অর্থনৈতিক চাপও জোরদার করেছেন। 

সোমবার সম্প্রচারিত হতে যাওয়া সিএনবিসির এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, সম্ভাব্য ইরানি হামলা বিষয়ে গোয়েন্দা তথ্য পেয়েই মধ্যপ্রাচ্যে অতিরিক্ত সেনা ও রণতরী মোতায়েন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ